"উমেশচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
|party=[[ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস]]
|known_for=[[ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস|ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের]] প্রথম সভাপতি
|alma_mater=[[ওরিয়েন্টাল সেমিনারি]]<br/>[[হিন্দু স্কুল]]|spouse={{marriage|হেমাঙ্গিনী মতিলাল|১৮৫৯}}}} '''উমেশচন্দ্র বন্দোপাধ্যায়বন্দ্যোপাধ্যায়''' (অথবা উমেশ চন্দ্র ব্যানার্জী [[বাংলা ভাষা|বাঙালি]] নামগুলির বর্তমান ইংরেজী '''বানানবিধি''' দ্বারা) (২৯ ডিসেম্বর ১৮৪৪ - ২১ জুলাই ১৯০৬) [[ভারত|ভারতীয়]] ব্যারিস্টার ছিলেন এবং [[ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস|ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের]] প্রথম সভাপতি ছিলেন।
 
== প্রাথমিক দিনগুলি ==
'''উমেশচন্দ্র বন্দোপাধ্যায়বন্দ্যোপাধ্যায়''' ২৯ ডিসেম্বর ১৮৪৪ সালে অধুনা [[পশ্চিমবঙ্গ|পশ্চিমবঙ্গের]] [[কলকাতা]]<nowiki/>য়, জন্মগ্রহণ করেন। <ref name="Bio" /> তিনি [[ওরিয়েন্টাল সেমিনারি|ওরিয়েন্টাল সেমিনারী]] এবং [[হিন্দু স্কুল|হিন্দু স্কুলে]] পড়াশোনা করেন। <ref name="Bio" /> ১৮৫৯ সালে তিনি হেমঙ্গিনী মতিলালের সাথে বিবাহসূত্রে আবদ্ধ হন। ১৮৬২ সালে [[কলকাতা]] সুপ্রিম কোর্টের অ্যাটর্নিদের সংস্থা ডাব্লু পি গিল্যান্ডার্সে, একজন করণিক হিসাবে যোগ দেন। এই পদে থাকাকালীন তিনি আইনের ভাল জ্ঞান অর্জন করেছিলেন, যা তাঁর পরবর্তী পেশায় তাঁকে ব্যাপকভাবে সাহায্য করেছিল। ১৮৬৪ সালে [[মুম্বই|বোম্বের]] আরজে জিজিবাইয়ের থেকে বৃত্তি লাভের মাধ্যমে তাঁকে [[ইংল্যান্ড|ইংল্যান্ডে]] পাঠান হয়। <ref name="Bio" /> যেখানে তিনি মিডল টেম্পলে যোগ দেন এবং ১৮৬৭ সালের জুন মাসে আদালতে ডাক পান। <ref name="Mahmud1994">{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://books.google.com/books?id=w8XPyBqxwX8C&pg=PA19|শিরোনাম=Pillars of Modern India, 1757–1947|শেষাংশ=Sayed Jafar Mahmud|বছর=1994|প্রকাশক=APH Publishing|পাতা=19|আইএসবিএন=978-81-7024-586-5}}</ref> ১৮৬৮ সালে কলকাতায় ফিরে আসার পর তিনি কলকাতা হাইকোর্টের ব্যারিস্টার-এ-আইন , স্যার চার্লস পলের পৃষ্ঠপোষকতা পান। <ref name="Bio">{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://archive.org/stream/dictionaryofindi00buck#page/48/mode/1up|শিরোনাম=Dictionary of Indian Biography|শেষাংশ=Buckland, CE|বছর=1906|প্রকাশক=Swan Sonnenshein & Co.|পাতা=48}}</ref> আরেকজন ব্যারিস্টার, জে. পি. কেনেডিও তাঁকে একজন আইনজীবী হিসেবে, তাঁর খ্যাতি প্রতিষ্ঠায় ব্যাপকভাবে সাহায্য করেছিলেন। কয়েক বছরের মধ্যে তিনি হাইকোর্টে ব্যারিস্টারের মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ন হয়ে ওঠেন। তিনি স্থায়ী পরামর্শ হিসাবে কর্মরত প্রথম ভারতীয় ছিলেন, সেই ক্ষমতাবলে যথাক্রমে- ১৮৮২, ১৮৮৪, ১৮৮৬-৮৭ ও ১৮৮৩ সালে তিনি চারবার দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। তিনি কলকাতা হাইকোর্টে [[সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়|সুরেন্দ্রনাথ ব্যানার্জিকে]] রক্ষা করেছিলেন, যখন তাঁর বিরুদ্ধে বিখ্যাত আদালত অবমাননা মামলা হয়েছিল। তিনি [[কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়|কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের]] সহকর্মী ছিলেন এবং সেখানকার আইন অনুষদের সভাপতি ছিলেন <ref name="Bio" /> এবং এই পদে প্রায়ই এটি আইন পরিষদের প্রতিনিধিত্ব করেন। <ref name="Mahmud1994" /> ১৯০১ সালে তিনি কলকাতা আদালত থেকে অবসর গ্রহণ করেন। <ref name="Bio" /> তাঁর কন্যা জানকী বানার্র্জী ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউহাম কলেজে প্রাকৃতিক বিজ্ঞান, রসায়ন, প্রাণিবিদ্যা ও শারীরবৃত্তবিজ্ঞান নিয়ে গবেষণা করেন। <ref name="Nasta2012">{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://books.google.com/books?id=dgYGlJI9vrUC&pg=PA70|শিরোনাম=India in Britain: South Asian Networks and Connections, 1858-1950|শেষাংশ=Susheila Nasta|তারিখ=2012|প্রকাশক=Palgrave Macmillan|পাতা=70|আইএসবিএন=978-0-230-39272-4}}</ref>
 
== ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস সভাপতি হিসাবে ==
১,৭৮৫টি

সম্পাদনা