"ব্যবহারকারী:Sammay Sarkar/খসড়া/২" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎বর্ণনা: অনুবাদ
(→‎বর্ণনা: অনুবাদ)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
এধরণের ক্ষয়ের মাধ্যমে একটি পদার্থের পরমাণু অন্য পদার্থের পরমাণুতে [[পারমাণবিক রূপান্তর|রুপান্তরিত]] হয় এবং একটি বিটা কণা ও একটি ইলেক্ট্রন [[অ্যান্টিনিউট্রিনো]] বিকিরিত হয়। সকল নিউক্লাইড ক্ষয়ের সাধারণ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, ক্ষয় থেকে উৎপন্ন কণাগুলোর মোট ভর, মূল নিউক্লাইডের ভরের চেয়ে কম হয়। প্রাথমিক এবং সর্বশেষ বন্ধন শক্তির পার্থক্যটুকু ক্ষয়লদ্ধ কণাসমূহের গতিশক্তি দ্বারা ব্যায়িত হয়।<ref name="Byrne"/>
 
''স্থায়িত্ব উপত্যকা'' ধারণাটির একটি ফল হচ্ছে নিউট্রন ও প্রোটন সংখ্যার ফাংশন হিসেবে বন্ধন শক্তি অনুসারে সকল নিউক্লাইডকে সজ্জিত করার সুবিধা।<ref name="Mackintosh"/> অধিকাংশ স্থিতিশীল নিউক্লাইডের প্রোটন ও নিউট্রন সংখ্যা অনেকটাই একে-অপরের কাছাকাছি, ফলে ''Z'' = ''N'' নির্দেশক রেখাটি স্থায়ী নিউক্লাইডসমূহকপর চিহ্নিত করার একটি প্রাথমিক উপায়। তবে প্রোটনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে নিউক্লাইডকে স্থায়িত্ব দানের জন্য দরকারী নিুট্রনেরনিউট্রনের সংখ্যাও বৃদ্ধি পায়, তাই বৃহঞবৃহৎ ''Z'' সংখ্যা সম্পন্ন নিউক্লাইডের স্থায়িত্বের জন্য আরও বৃহত্তর নিউট্রন সংখ্যা, ''N'' > ''Z'', প্রয়োজন হয়। স্থায়িত্ব উপত্যকা গঠিত হয় বন্ধন শক্তির ঋণাত্বক মান দ্বারা, যেখানে বন্ধন শক্তি হল নিউক্লাইডকে এর উপাদান কণায় বিভক্ত করতে প্রয়োজনীয় শক্তি। স্থিতিশীল নিউক্লাইডের বন্ধন শক্তি উচ্চ, এবং এরা স্থায়িত্ব উপত্যকার গভীরতর এলাকায় অবস্থিত। অন্যদিকে দুর্বল বন্ধন শক্তিসম্পন্ন নিউক্লাইডে ''N'' এবং ''Z'' এর সন্নিবেশ স্থায়িত্ব রেখার বাইরে এবং স্থায়িত্ব উপত্যকার উপরিভাগে অবস্থিত। অস্থিতিশীল নিউক্লাইড গঠিত হতে পারে [[পারমাণবিক রিঅ্যাক্টর]] বা [[সুপারনোভা]] প্রভৃতি উৎস হতে। এধরণের নিউক্লাইড সাধারণত [[ক্ষয় শৃঙ্খল]] নামক কতগুলো ক্রমানুসারী [[পারমাণবিক বিক্রিয়া]]র মাধ্যমে ধাপে ধাপে স্থায়িত্ব উপত্যকার ঢাল বেয়ে নামে। এই ক্ষয় ধারার প্রতিটি ধাপে উৎপন্ন নিউক্লাইড পূর্ববর্তী ধাপের চেয়ে বেশি বন্ধন শক্তি সম্পন্ন এবং ধারার সর্বশেষ নিউক্লাইডটি স্থিতিশীল।<ref name="Mackintosh"/> স্থায়িত্ব উপত্যকা ধারণার মাধ্যমে স্থায়ী এবং অস্থায়ী প্রচুর সংখ্যক নিউক্লাইডগুলোকে সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে সাজানোর একটি পদ্ধতি পাওয়া যায়, এবং কখন, কেন ও কী ধারায় তেজষ্ক্রিয় ক্ষয় ঘটে তার একটি সহায়ক চিত্র গঠিত হয়।<ref name="Mackintosh"/>
 
<gallery mode="packed" widths="200px" heights="200px">
File:BindingNuDat2.png|স্থায়িত্ব উপত্যকার লেখচিত্র, নিউক্লাইড (আইসোটোপ) সমূহ বন্ধন শক্তিক্রমে সজ্জিত। কৌণিক রেখাটি সমসংখ্যক নিউট্রন ও প্রোটন সংখ্যা নির্দেশ করে। গাঢ় নীল বর্গগুলো প্রবলতম বন্ধন শক্তি সম্পন্ন তথা সবচে স্থিতিশীল নিউক্লাইডগুলোকে চিহ্নিত করে। স্থায়িত্ব উপত্যকার ভূমিতে বন্ধন শক্তি সর্বোচ্চ।
File:BindingNuDat2.png|Chart of nuclides (isotopes) by binding energy, depicting the valley of stability. The diagonal line corresponds to equal numbers of neutrons and protons. Dark blue squares represent nuclides with the greatest binding energy, hence they correspond to the most stable nuclides. The binding energy is greatest along the floor of the valley of stability.
File:HalflifeNuDat2.png|অর্ধায়ু অনুসারে সজ্জিত নিউক্লাইডের লেখচিত্র। কালো বর্গগুলো দীর্ঘতম অর্ধায়ু সম্পন্ন এবং সবচেয়ে স্থিতিশীল নিউক্লাইড চিহ্নিত করে। স্থায়িত্ব উপত্যকার ভূমিতে নিউক্লিয়াসগুলোর স্থায়িত্ব এবং আয়ু সর্বোচ্চ। নিউক্লাইডে ২০ টির বেশি প্রোটন থাকলে তার স্থায়িত্বের জন্য প্রোটনের চেয়ে অধিক সংখ্যক নিউট্রন প্রয়োজন।
File:HalflifeNuDat2.png|Chart of nuclides by half life. Black squares represent nuclides with the longest half lives hence they correspond to the most stable nuclides. The most stable, long-lived nuclides lie along the floor of the valley of stability. Nuclides with more than 20 protons must have more neutrons than protons to be stable.
File:DecayModeNuDat2.png|ক্ষয়ের ধরণ অনুসারে সজ্জিত নিউক্লাইড। কালো বর্গগুলো স্থায়িত্বপূর্ণ নিউক্লাইড নির্দেশ করে। হালকা নীল নিউক্লাইড অতিরিক্ত নিউট্রন বা প্রোটন বাহী, এবং যথাক্রমে β<sup>−</sup> (হালকা নীল) বা β<sup>+</sup> (সবুজ) ক্ষয়যোগ্য। উচ্চ পারমাণবিক সংখ্যার নিউক্লাইডে আলফা ক্ষয় (কমলা) অথবা স্বতস্ফূর্ত ফিশন (গাঢ় নীল) এর সম্ভাবনা প্রবল।
File:DecayModeNuDat2.png|Chart of nuclides by type of decay. Black squares are stable nuclides. Nuclides with excessive neutrons or protons are unstable to β<sup>−</sup> (light blue) or β<sup>+</sup> (green) decay, respectively. At high atomic number, alpha emission (orange) or spontaneous fission (dark blue) become common decay modes.
</gallery>
 
৯৩৬টি

সম্পাদনা