"স্বেচ্ছাসেবী কাজ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

অনুবাদ
(অনুবাদ)
(অনুবাদ)
জ্যানেট এইলার এবং ডিউইট ই.গিলেস, এর ''Where's the Learning in Service-Learning? (শিক্ষণীয়-কাজের মধ্যে শিক্ষা কোথায়?)'' অনুসারে শিক্ষণীয়-কাজ আর অন্যের সেবা করার মধ্যে মগ্ন থাকার অনেক একাডেমিক আর ব্যক্তিগত ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে। নতুন মানুষদের মাঝে থাকা আর একটি দলের সাথে একসঙ্গে কাজ করতে পাড়ার শিক্ষা একজনের দলগতকাজ এবং সম্পর্কের দক্ষতাগুলিকে উন্নত করতে সাহায্য করে, এটি প্রচলিত ধারণাকে হ্রাস করে, অন্যের সংস্কৃতির প্রতি উপলব্ধি বাড়ায়, আর তরুণদের যারা তাদের সাথে সম্পর্কিত এমন অন্যান্যদের খুঁজে বের করতে এটি কাজ করে।
 
এইলার এবং গিলেস উল্লেখ করেছেন যে একটি কলেজের শুরু আর শেষের সেমিস্টারের এক সপ্তাহে ৩ ঘন্টা, নাগরিক সেবার সাথে যুক্ত থাকার ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিভিন্ন সংস্কৃতি সম্পর্কে অনেক শ্রদ্ধাবোধ দেখা যায়। সেমিস্টারের শেষে যে শিক্ষার্থীরা শিক্ষণীয়-কাজে অংশগ্রহণ করেছিল, তাদের বলতে দেখা গেছে যে, তারা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি শিখেছে তা হলো কারো সম্পর্কে ধারণা করে নেয়া উচিত নয়, এবং সব ধরণের মানুষদেরকেই মূল্যায়ন করা উচিত তার কারণ হলো সব ধরণের মানুষ কিছু একই রকমের গুণাবলী ধারণ করে।<br />
 
গোষ্ঠীর স্বেচ্ছাসেবী কাজ শিক্ষার্থীদের একাডেমিক জীবন আর কলেজ অভিজ্ঞতার জন্য একটি শক্তিশালী ভবিষ্যত হিসেবে কাজ করে। গবেষণার মাধ্যমে দেখা গেছে যে, যেসব শিক্ষার্থীরা তাদের কলেজ শিক্ষার একটি পাঠ্য হিসেবে নাগরিক সেবাকে বেঁচে নিয়েছে তাদের শিক্ষার সাথে এর একটি বড় যোগসূত্র রয়েছে। (Astin, 1992;[27] Pascarella and Terenzini, 1991[28]) এছাড়াও, যেসব কলেজ শিক্ষার্থীরা গোষ্ঠীর স্বেচ্ছাসেবী কাজের প্রকল্পে যুক্ত হয়, তাদের কলেজ অভিজ্ঞতার বিবরণ থেকে দেখা যায় তাদের গোষ্ঠীর স্বেচ্ছাসেবী কাজের প্রকল্প শেষ হবার পর তাদের একাডেমিক শিক্ষার সাথে এর প্রচুর মিল রয়েছে।[২৯] ইউনিভার্সিটি হেলথ সেবার মতানুসারে, বিবরণ থেকে পাওয়া গিয়েছে যে, স্বেচ্ছাসেবী কাজ সুনিশ্চিতভাবে শিক্ষার্থীদের সামগ্রিকভাবে মানসিক এবং আবেগপ্রবণ শারীরিক অবস্থাকে প্রভাবিত করে।[৩০]
 
=== সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী কাজ  বা কল্যানমুলক স্বেচ্ছাসেবী কাজ ===
ইউরোপের কিছু দেশের সরকারি আর বেসরকারি সংস্থাগুলো একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত হাসপাতাল, স্কুল, স্মারক বহনকারী এবং কল্যাণ প্রতিষ্ঠানের মতো জায়গায় একটি সহায়ক অবস্থান প্রদান করে। অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবী কাজের সাথে এর পার্থক্য হলো, একটি কঠোর আইনী বিধিমালা আছে যে, কোন সংস্থাগুলো স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়োগ করতে পারবে আর কত সময়ের জন্য একজন স্বেচ্ছাসেবক স্বেচ্ছাসেবী কাজে নিয়োজিত থাকতে পারবে। এই ধরণের নিয়মের ফলে, একজন স্বেচ্ছাসেবক একটি নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ সরকার থেকে আয় করতে পারে। ইউরোপের সব থেকে বড় জনশক্তি রয়েছে, জার্মান ফেডারেল ভলান্টিয়ার্স সার্ভিস এর (Bundesfreiwilligendienst), যেটি ২০১১ সালে যাত্রা শুরু করে, যার ২০১২ সালে ৩৫,০০০ এর বেশি ফেডারেল স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে।[৩১] ভলান্টারী সোশ্যাল ইয়ার (Freiwilliges Soziales Jahr) হচ্ছে অস্ট্রিয়া আর জার্মানি- এর সবচে পুরোনো প্রতিষ্ঠান।[৩২][৩৩]   
৩৬টি

সম্পাদনা