"ক্রিটেশিয়াস–প্যালিওজিন বিলুপ্তি ঘটনা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: ২০১৭ উৎস সম্পাদনা
 
পলিপ্লয়ডির ফলে সপুষ্পক উদ্ভিদরা বিলুপ্তি ঘটনার ধাক্কা সহ্য করতে পেরেছিল। এর সম্ভাব্য কারণ হল তাদের উপলভ্য জিনের অনেকগুলি অনুলিপি থাকার ফলে তারা বেশি দ্রুততার সঙ্গে দ্রুত পরিবর্তনশীল পরিবেশে অভিযোজিত হতে পেরেছিল।
 
<br />
=== উভচর ===
K-Pg সীমানায় উভচরদের বিলোপনের নমুনা সীমিত। মন্টানায় ঐ সীমানায় প্রাপ্ত জীবাশ্মীভূত মেরুদণ্ডী নমুনাসমূহের একটি গবেষণা এই সিদ্ধান্তে এসে পৌঁছায় যে, ঐ বিলুপ্তি ঘটনায় কোনও উভচর প্রজাতিই লুপ্ত হয়নি। কিন্তু এই গবেষণার অন্তর্গত নয় এমন অনেক মাস্ট্রিক্টিয়ান উভচরের প্রজাতি ছিল, যাদের চিহ্ন প্যালিওসিনে পাওয়া যায় না। এদের মধ্যে পড়ে ''থিয়াটোনিয়াস ল্যান্সেন্সিস'' ব্যাঙ, এবং ''অ্যালবানার্পেটন গ্যালাক্টিয়ন'' নামক অ্যালবানার্পেটনিড। অতঃপর অন্ততঃ কিছু কিছু উভচর প্রজাতি K-Pg সীমানায় লুপ্ত হয়েছিল এ'কথা বলা যায়। উভচরদের আপাত অপেক্ষাকৃত কম বিলোপনের হার সম্ভবতঃ সামগ্রিকভাবে মিঠেজলের প্রাণিদের কম বিলোপনের হারের সঙ্গে জড়িত।
 
=== অনার্কোসর ===
 
==== করিস্টোডেরা ====
করিস্টোডেরা (আংশিক জলচর [[আর্কোসরোমর্ফা|আর্কোসরোমর্ফ]])-রা K-Pg সীমানা অতিক্রম করতে সমর্থ হয়, কিন্তু আদি মায়োসিনে লোপ পায়। চ্যাম্পোসরাসের মূর্ধার দাঁতের একটি গবেষণায় দেখা যায়, এদের বিভিন্ন প্রজাতির খাদ্যাভ্যাসে K-T ঘটনার ফলে পরিবর্তন এসেছিল।
 
==== কচ্ছপ ====
ক্রিটেশিয়াসের যাবতীয় কচ্ছপ প্রজাতির প্রায় ৮০% K-Pg সীমানা পার করেছিল। তারা যে ছয়টি গোত্রের অন্তর্ভুক্ত ছিল, তাদের প্রতিটিই প্যালিওজিনে প্রবেশ করে এবং আজও তাদের প্রত্যেকের উত্তরাধিকারী প্রজাতি পৃথিবীতে বেঁচে আছে।
 
==== লেপিডোসরিয়া ====
বর্তমান অনার্কোসর সরীসৃপদের অন্তর্গত লেপিডোসরিয়া গোষ্ঠী (সাপ, গিরগিটি, তুয়াতারা) K-Pg সীমানা পার করেছিল। স্কোয়ামাটারাও এদেরই একটি শাখা। আজকের তুয়াতারা-রা রাইনোসেফালিয়ানদের শেষ প্রতিনিধি।
 
আদি মেসোজোয়িকে রাইনোসেফালিনরা, লেপিডোসরিয়াদের একটি বৃহৎ ও বিস্তৃত শাখা ছিল, কিন্তু ক্রিটেশিয়াসের মাঝামাঝি থেকে তাদের প্রভাব কমতে শুরু করে। অবশ্য অন্ত্য ক্রিটেশিয়াসেও দক্ষিণ আমেরিকায় তাদের যথেষ্ট প্রভাব ছিল। আজ তাদের জীবন্ত প্রতিনিধি নিউজিল্যান্ডের একটিমাত্র গণ।
 
স্কোয়ামাটা বর্গের বর্তমান প্রতিনিধি টিকটিকি ও গিরগিটি, সাপ, এবং আম্ফিসবেনিয়ান (কৃমিসদৃশ গিরগিটি)-রা। এরা জুরাসিক যুগে বিবর্তনীয় বিকিরণের মাধ্যমে বিভিন্ন বাস্তুতান্ত্রিক ধাপ অধিকার করতে থাকে, এবং গোটা ক্রিটেশিয়াস জুড়ে সফল ত্থেকে যায়। এরা K-Pg সীমানা অতিক্রম করে আজকের সরীসৃপদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ও বিচিত্র গোষ্ঠী হিসেবে রয়েছে। এদের অন্তর্গত এখন ৬০০০ এরও বেশি প্রজাতি। অবশ্য স্থলচর স্কোয়ামেটদের অনেকগুলি গোত্র K-Pg সীমানায় লুপ্ত হয়েছিল, যেমন মনস্টারসরিয়ান ও পলিগ্লিফানোডন্ট, এবং জীবাশ্ম প্রমাণ থেকে জানা যায় সমস্ত স্কোয়ামাটাই ঐ সীমানায় ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, এবং প্রাক্‌-বিলুপ্তি ঘটনার স্থিতি পুনরুদ্ধার করতে তাদের প্রায় এক কোটি বছর লেগে গিয়েছিল। মোসাসরাস, প্লীসিওসরাস প্রভৃতি বৃহৎ অনার্কোসর জলচর সরীসৃপ ছিল সমসাময়িক সমুদ্রের শীর্ষ খাদক। এরা ক্রিটেশিয়াসের শেষভাগে বিলুপ্ত হয়ে যায়। ক্রিটেশিয়াস-প্যালিওজিন বিলুপ্তি ঘটনার পূর্বেই জীবাশ্মের খতিয়ান থেকে ইকথিওসরাসরা উধাও হয়ে গিয়েছিল।
 
== তথ্যসূত্র ==
{{সূত্র তালিকা}}