"গুয়াতেমালা নগরী" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(সংশোধন)
}}
'''গুয়াতেমালা নগরী''' ({{lang-es|Ciudad de Guatemala}} ''সিউদাদ্‌ দে গুয়াতেমালা'') [[মধ্য আমেরিকা]]র রাষ্ট্র [[গুয়াতেমালা]]র রাজধানী ও বৃহত্তম শহর।<ref>{{Cite web|url=https://www.ucl.ac.uk/dpu-projects/Global_Report/pdfs/Guatemala.pdf |title=Carlos Enrique Valladares Cerezo, "The case of Guatemala City, Guatemala"}}</ref> এটি প্রশাসনিকভাবে দেশটির দক্ষিণ মধ্যভাগে গুয়াতেমালা জেলার গুয়াতেমালা পৌরসভাতে অবস্থিত। ভৌগোলিকভাবে এটি একটি আগ্নেয় উচ্চভূমির বাইয়ে দে লা এর্মিতা (Valle de la Ermita) নামক উপত্যকাতে সমুদ্র সমতল থেকে ১৪৯৩ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত। এর জলবায়ু নাতিশীতোষ্ণ পার্বত্য প্রকৃতির। গুয়াতেমালা নগরী দেশটির প্রধান অর্থনৈতিক, পরিবহন ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। দেশের সিংহভাগ শিল্পোৎপাদন কারখানাগুলি এই শহরে বা এর চারপাশের শহরতলীতে অবস্থিত।
এখানে প্রায় ৯ লক্ষ ৪২ হাজার লোকের বাস।<ref name=":0">{{Cite web|url=http://www.oj.gob.gt/estadisticaj/reportes/poblacion-total-por-municipio(1).pdf|title=Guatemala: Estimaciones de la Población total por municipio. Período 2008-2020.|last=|first=|date=|website=Organismo Judicial República de Guatemala|trans-title=Guatemala: Estimates of the total population by municipality. 2008-2020 period.|archive-url=https://web.archive.org/web/20180723003849/http://www.oj.gob.gt/estadisticaj/reportes/poblacion-total-por-municipio(1).pdf|archive-date=23 July 2018|dead-url=no|access-date=14 September 2018}}</ref> বৃহত্তমবৃহত্তর গুয়াতেমালা মহানগর এলাকাতে প্রায় ২০ লক্ষ লোক বাস করে। জনসংখ্যার বিচারে এটি সমগ্র মধ্য আমেরিকার বৃহত্তম শহর। এর পূর্ণ সরকারী নাম নুয়েবা গুয়াতেমালা দে আসুনসিওন (Nueva Guatemala de la Asunción)।
 
গুয়াতেমালা নগরীতে ১৬৭৬ সালে (পুরাতন গুয়াতেমালা শহরে) প্রতিষ্ঠিত গুয়াতেমালার সান কার্লোস বিশ্ববিদ্যালয় দেশটির সর্বপ্রধান শিক্ষাকেন্দ্র। এখানে ১৯৭১ সালে প্রতিষ্ঠিত ফ্রান্সিসকো মাররোকিন বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১৮৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত জাতীয় সঙ্গীত মহাবিদ্যালয় অবস্থিত। এছাড়া কারিগরি, বাণিজ্যিক ও সামরিক শিক্ষার প্রতিষ্ঠানও আছে। এখানে বেশ কিছু পুরাতাত্ত্বিক ও ঐতিহাসিক জাদুঘর এবং ভূগোল ও ইতিহাস সমিতির কার্যালয় আছে। জাতীয় পুরাতাত্ত্বিক জাদুঘরে মায়া সভ্যতার অনেক নিদর্শন আছে। কেন্দ্রীয় চত্ত্বরের কাছে জাতীয় সংস্কৃতি প্রাসাদ অবস্থিত।
৪৭,৭৩১টি

সম্পাদনা