"বসনীয় ভাষা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

* বসনিয়াক কবি এবং লেখক মুহামেদ হেভায়ি উস্কুফি বোস্নেভি তাঁঁর ১৬৩২ সালের মাগবুলি-আরিফ অভিধানে ভাষাটিকে বসনীয় হিসাবে উল্লেখ করেছেন।
* প্রথম ব্যাকরণবিদদের মধ্যে একজন, খ্রিস্টীয় পাদ্রি বার্তোলোমেও কাসিও তাঁঁর ১৬৪০ সালের "রিতুয়াল রিমস্কি" ("রোমান আচার") ভাষাটিকে বলেছেন "নাশকি" ("আমাদের ভাষা") বা বোসানস্কি ("বসনীয়")। চাকাভীয় অঞ্চলে জন্মগ্রহণ করলেও তিনি "বসনীয়" শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন।
* ইতালীয় ভাষাবিজ্ঞানী ইয়াকোভ মিকালিয়া (১৬০১-১৬৫৪) তাঁঁর ১৬৪৯ সালের ব্লাগু ইয়েজিকা স্লোভিন্সকোগা (থিসোরাস লিঙ্গুয়া ইলিরিকে) অভিধানে বলেছেন যে তিনি "সবচেয়ে সুন্দর শব্দ" অন্তর্ভুক্ত করতে চান, "সমস্ত ইলিরীয় ভাষাগুলির মধ্যে বসনীয় সবচেয়ে সুন্দর", এবং সমস্ত ইলিরীয় লেখকদের সেই ভাষায় লিখতে চেষ্টা করা উচিত।
*
* ১৮শ শতাব্দীর বোসনিয়াক কাহিনীকার মুলা মুস্তাফা বাশেস্কিয়া তাঁঁর সংগৃহীত বসনীয় কবিতার বর্ষপঞ্জিতে যুক্তি দেন যে "বসনীয় ভাষা" আরবি থেকে অনেক বেশি সমৃদ্ধশালী, কারণ বসনীয়তে "যাওয়া" ক্রিয়াটির জন্য ৪৫টি শব্দ রয়েছে।
* ভেনিসবাসী লেখক, প্রকৃতিবিদ এবং মানচিত্রকার আলবের্তো ফোর্তিস (১৭৪১-১৮০৩) তাঁঁর ভিয়াজ্জিও ইন দালমাৎসিয়া (ডালমাশিয়া ভ্রমণে) লেখায় মোর্লাখদের ভাষাকে ইলিরীয়, মোর্লাখ, এবং বসনীয় বলেছেন।
* ক্রোয়েশীয় লেখক এবং অভিধান সংকলক মতিয়া পেতার কাতানচিচ ১৮৩১ সালে বাইবেলের অনুবাদগুলির ছয়টি খন্ড প্রকাশ করেছিলেন যা "স্লাভো-ইলিরীয় থেকে বসনীয় ভাষার উচ্চারণে স্থানান্তরিত" হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে।
 
== লিখন পদ্ধতি ==