"মোরিস মাতরলাঁক" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
[[File:Maurice Maeterlinck 1925.jpg|thumb|left|upright|১৯২৫ সালে মেটারলিংক]]
১৯২৬ সালে, '''মেটারলিংক''' তাঁর প্রবন্ধ "লা ভায় দেস টারমাইটস" (ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয় "সাদা পিঁপড়ের জীবন" নামে) প্রকাশ করেন, এটি একটি [[তাত্ত্বিক]] বই, যেটা আফ্রিকান কবি ও বিজ্ঞানী [[ইউগেন মারাইস]] এর গবেষণা ও লেখা " সাদা পিঁপড়ের সত্তা" বইয়ের সত্ত্ব চুরি করে লেখা,<ref>"Die Huisgenoot", ''Nasionale Pers'', 6 January 1928, cover story.</ref> যাকে [[লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়]] এর জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক, [[ডেভিড বিগনেল]] "একাডেমিক চুরির সর্বোত্তম উদাহরণ" হিসেবে আখ্যায়িত করেন ।<ref name="bignell">{{cite web |url=http://www.biology.qmul.ac.uk/research/staff/bignell/Inaugural.htm |title=Termites: 3000 Variations On A Single Theme |accessdate=2009-07-28 |author=David E. Bignell |deadurl=yes |archiveurl=https://web.archive.org/web/20070827211941/http://www.biology.qmul.ac.uk/research/staff/bignell/Inaugural.htm |archivedate=27 August 2007 |df= }}</ref><br/><br/>
মারাইস মেটারলিংককে তাঁর বইয়ে উইপোকার বাসার "সাংগঠনিক অবিচ্ছিন্নতা" সম্পর্কে তাঁর ধারণা নকল করার জন্য অভিযুক্ত করেন ।<ref name="swart">{{cite journal|title=The Construction of Eugène Marais as an Afrikaner Hero |author=Sandra Swart |journal=Journal of Southern African Studies |year=2004 |volume=December |issue=30.4 |url=http://www.oulitnet.co.za/seminarroom/marais_swart.asp |deadurl=yes |archiveurl=https://web.archive.org/web/20100308014642/http://www.oulitnet.co.za/seminarroom/marais_swart.asp |archivedate=8 March 2010 |df= }}</ref>১৯২৩ সালের জানুয়ারি মাসে ডায় বার্গারে এবং [[দক্ষিণ আফ্রিকা]]র [[আফ্রিকান]] ভাষী পত্রিকায় মারাইস উইপোকার বাসা সম্পর্কে তাঁর ধারণা প্রকাশ করেন, যা ১৯২৫ থেকে ১৯২৬ সাল পর্যন্ত "সাদা পিঁপড়ের সত্তা" শিরোনামের অধীনে উইপোকা সম্পর্কিত শিরোনামেশিরোনামসমূহ ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করা হয় । ১৯২৬ সালে মেটারলিংকের বইটি প্রায় একই রকম বিষয়বস্তু<ref name="bignell" /> নিয়ে প্রকাশিত হয় ।
 
===শেষ জীবন===
১৭৪টি

সম্পাদনা