"শব্দ (ব্যাকরণ)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎বিদেশি শব্দ: শ্রেণিবিন্যাস, মতো, পকেটমার, অসংগতি, লাইব্রেরি, স্কুল ইত্যাদি
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(→‎বিদেশি শব্দ: শ্রেণিবিন্যাস, মতো, পকেটমার, অসংগতি, লাইব্রেরি, স্কুল ইত্যাদি)
* [[আরবি]] শব্দ : বাংলায় ব্যবহৃত আরবি শব্দসমূহকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়:—
 
'''(১) ধর্মসংক্রান্ত শব্দ:''' আল্লাহ, ইসলাম, ঈমান, ওযুঅজু, কোরবানি, কুরআন, কিয়ামত, গোসল, জান্নাত, জাহান্নাম, তওবা, তসবিতাসবি, জাকাত, হজ, হাদিস, হারাম, হালাল ইত্যাদি।
 
'''(২) প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক শব্দ:''' আদালত, আলেম, ইনসান, ঈদ, উকিল, ওজর, এজলাস, এলেম, কানুন, কলম, কিতাব, কেচ্ছা, খারিজ, গায়েব, দোয়াত, নগদ, বাকি, মহকুমা, মুন্সেফ, মোক্তার, রায় ইত্যাদি।
* [[ফারসি]] শব্দ : বাংলায় ব্যবহৃত ফারসি শব্দগুলোকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়:—
 
'''(১) ধর্মসংক্রান্ত শব্দ:''' খোদা, গুনাহ, দোযখদোজখ, নামাজ, পয়গম্বর, ফেরেশতা, বেহেশত, রোজা ইত্যাদি।
 
'''(২) প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক শব্দ:''' কারখানা, চশমা, জবানবন্দি, তারিখ, তোশক, দফতর, দরবার, দোকান, দস্তখত, দৌলত, নালিশ, বাদশাহ, বান্দা, বেগম, মেথর, রসদ ইত্যাদি।
* [[ইংরেজি]] শব্দ : দুই প্রকারের পাওয়া যায়:—
 
'''(১) প্রায় অপরিবর্তিত উচ্চারণে'''- চেয়ার, টেবিল, পেন, পেন্সিল, ইউনিভার্সিটি, ইউনিয়ন, কলেজ, টিন, নভেল, নোট, নোট, পাউডার, ব্যাগ, ফুটবল, মাস্টার, লাইব্রেরীলাইব্রেরি, স্কুল, ব্যাঙ্কব্যাংক ইত্যাদি।
 
'''(২) পরিবর্তিত উচ্চারণে '''- আফিম (opium), ইস্কুলস্কুল (school), বাক্স (box), হাসপাতাল (hospital), বোতল (bottle), ডাক্তার (doctor), ইংরেজি (English) ইত্যাদি।
* [[পর্তুগিজ]] শব্দ : আনারস, আলপিন, আলমারি, গির্জা, গুদাম, চাবি, পাউরুটি, পাদ্রি, বালতি ৷
* [[ফরাসি]] শব্দ : কার্তুজ, কুপন , ডিপো, রেস্তোরাঁ।
* [[হিন্দী]] শব্দ : চিঠি, ঠিকানা, পানি ইত্যাদি।
* মিশ্র শব্দ:
 
এছাড়াওএ ছাড়াও আরেকটি বিশেষ ধরনের শব্দ আছে। দুইটি ভিন্ন ধরনের শব্দ সমাসবদ্ধ হয়ে বা অন্য কোনো উপায়ে একত্রিত হলে ওই নতুন শব্দটিকে বলা হয় মিশ্র শব্দ। এক্ষেত্রে যে দুইটি শব্দ মিলিত হলো, তাদের শ্রেণীবিভাগশ্রেণিবিভাগ চিনতে পারাটা খুব জরুরি। যেমনঃ
<br />রাজা-বাদশা (তৎসম+ফারসি),<br />হাট-বাজারহাটবাজার (বাংলা+ফারসি), <br />হেড-মৌলভীমৌলভি (ইংরেজি+ফারসি),<br />হেড-পন্ডিত (ইংরেজি+তৎসম),<br />খ্রিস্টাব্দখ্রিষ্টাব্দ (ইংরেজি+তৎসম),<br />ডাক্তারখানা (ইংরেজি+ফারসি),<br />পকেট-মারপকেটমার (ইংরেজি+বাংলা)।
 
===গঠন অনুসারে শ্রেণিবিভাগ===
যে -সব শব্দকে বিশ্লেষণ করলে আর কোন শব্দ পাওয়া যায় না, তাকে মৌলিক শব্দ বলে। অর্থাৎ, যে সব শব্দকে ভাঙলে আর কোন অর্থসঙ্গতিপূর্ণ শব্দ পাওয়া যায় না, তাকে মৌলিক শব্দ বলে। যেমনঃ গোলাপ, নাক, লাল, তিন, ইত্যাদি।
 
এই শব্দগুলোকে আর ভাঙা যায় না, বা বিশ্লেষণ করা যায় না। আর যদি ভেঙে নতুন শব্দ পাওয়াও যায়, তার সঙ্গে শব্দটির কোন অর্থসঙ্গতি থাকে না। যেমন, উদাহরণের গোলাপ শব্দটি ভাঙলে গোল শব্দটি পাওয়া যায়। কিন্তু গোলাপ শব্দটি গোল শব্দ থেকে গঠিত হয়নি। এই দুটি শব্দের মাঝে কোন অর্থসঙ্গতিওঅর্থসংগতি নেই। তেমনি নাক ভেঙে না বানানো গেলেও নাক না থেকে আসেনি। অর্থাৎ, এই শব্দগুলোই মৌলিক শব্দ। ‘গোলাপ’ শব্দটির সঙ্গে ‘ই’ প্রত্যয় যোগ করে আমরা ‘গোলাপী’ শব্দটি বানাতে পারি। তেমনি ‘নাক’-র সঙ্গে ‘ফুল’ শব্দটি যোগ করে আমরা ‘নাকফুল’ শব্দটি গঠন করতে পারি।
 
=====সাধিত শব্দ=====
 
===অর্থমূলক শ্রেণিবিভাগ===
অর্থগত ভাবেঅর্থগতভাবে শব্দসমূহকে ৩ ভাগে ভাগ করা যায়:
=====যৌগিক শব্দ=====
যে-সব শব্দের ব্যুৎপত্তিগত অর্থ ও ব্যবহারিক অর্থ একই, তাদের যৌগিক শব্দ বলে।
কর্তব্য কৃ+তব্য যা করা উচিত
বাবুয়ানা বাবু+আনা বাবুর ভাব
মধুর মধু+র মধুর মতমতো মিষ্টি গুণযুক্ত
দৌহিত্র দুহিতা+ষ্ণ্য (দুহিতা= মেয়ে, ষ্ণ্য= পুত্র) কন্যার মতমতো, নাতি
চিকামারা চিকা+মারা দেওয়ালের লিখন।
 
বেনামী ব্যবহারকারী