"ইসরায়েল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সর্বশেষ সম্পাদিত পরিবর্তন প্রত্যাখ্যান ও Huldra-এর করা 3394077 নং সংশোধন পুনরুদ্ধার: অনুচ্ছেদের পূর্বের নামই যুক্তিযুক্ত
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা দৃশ্যমান সম্পাদনা
(সর্বশেষ সম্পাদিত পরিবর্তন প্রত্যাখ্যান ও Huldra-এর করা 3394077 নং সংশোধন পুনরুদ্ধার: অনুচ্ছেদের পূর্বের নামই যুক্তিযুক্ত)
== সংস্কৃতি ==
ইসরায়েলের সংস্কৃতি পশ্চিমা ঘরানার।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.hse.ru/en/news/28331917.html |প্রকাশক=National Research University Higher School of Economics |শিরোনাম=Asian Studies: Israel as a 'Melting Pot' |সংগ্রহের-তারিখ=18 April 2012}}</ref>
=== ইসরায়েলের পর্যটন ===
ইসরায়েলের পর্যটন মূলত ইহুদী ধর্মের পবিত্র ও ঐতিহাসিক স্থানগুলিকে কেন্দ্র করে আবর্তিত। দেশটির সর্বত্র ইহুদী ধর্মের ও সভ্যতার স্মৃতিবিজড়িত নানা প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। ইহুদীদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় শহর এবং মুসলিম ও খ্রিস্টানদেরও গুরুত্বপূর্ণ তীর্থস্থান হল জেরুজালেম শহর। জেরুজালেমের ইহুদী মন্দির ও পশ্চিম দেওয়াল বিখ্যাত। এছাড়া আছে যিশুখ্রিস্টের জন্মস্থান বেথেলহেম, বাসস্থান নাজারেথ।এখানে হারাম আল শরীফ তথা আল-আকসা মসজিদ অবস্থিত।ইসলামের তৃতীয় পবিত্রতম মসজিদ যা মুসলিমদের প্রথম কিবলা হিসাবে পরিচিত। ভূমধ্যসাগরের তীর জুড়ে রয়েছে অনেক অবকাশ যাপন কেন্দ্র। আরও আছে লবণাক্ত মৃত সাগর, যার পানিতে ভেসে থাকা যায়। লোহিত সাগরের উপকূল এবং গ্যালিলির সাগরের উপকূলেও অনেক অবকাশ কেন্দ্র আছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.jpost.com/LandedPages/PrintArticle.aspx?id=71992 |সংবাদপত্র=The Jerusalem Post |শিরোনাম=Tourist visits above pre-war level |শেষাংশ=Burstein |প্রথমাংশ=Nathan |তারিখ=14 August 2007 |সংগ্রহের-তারিখ=20 March 2012}}</ref>