"আসাম চুক্তি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
সংবিধান, আইনি সংস্থান, আন্তর্জাতিক সম্মতি চুক্তি, রাষ্ট্রীয় প্রতিশ্রুতি, বদান্য বিবেচনা প্রভৃৃতি সমস্যাগুলি মাথায় রেখে উক্তবিষয়ক সমস্ত আলোচনা অগ্রসর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ আলোচ্য বিষয়গুলি নিম্নরূপ:
===বিদেশী সমস্যা===
*১) ১লা জানুয়ারী ১৯৬৬, এই তারিখটির ওপর ভিত্তি করে বিদেশী শনাক্তকরণ এবং তাদের নাম নির্বাচনী ও নাগরিকত্বের তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে৷
*২) ১লা জানুয়ারী ১৯৬৬ তারিখের পূর্বে আসা বা স্থানীয় অধিবাসী অথবা যাদের নাম ১৯৬৭র নির্বাচনী তালিকাতে ছিলো তাদেরকে বিধিসম্মত নির্ভুল ভারতীয় নাগরিক হিসাবে ধরা হবে৷
*৩) যে সমস্ত বহিরাগত ১লা জানুয়ারী ১৯৬৬ খ্রিস্টাব্দ থেকে ২৪শে মার্চ ১৯৭১ এর মধ্যে বিদেশ থেকে আসামে এসেছেন তারা ১৯৪৬ এর বিদেশী শনাক্তকরণ আইন ও ১৯৬৪র বিদেশী ট্রাইবিউন্যাল আইনের আওতাভুক্ত হবে৷
*৪) বিদেশী হিসাবে তালিকাবদ্ধদের শনাক্ত করে নির্বাচনী ভোটার তালিকা থেকে নাম বহিষ্করণ করা চালু থাকবে৷ বিদেশী নিবন্ধীকরণ আইন ১৯৩৯ এবং ১৯৩৯ বিদেশী নিবন্ধন নীতি অনুযায়ী প্রত্যেক সন্দেহভাজন অনাগরিককে সংশ্লিষ্ট জেলার নাগরিকত্ব নিবন্ধন কার্যালয়ে আপিল করতে পারেন নিজেকে নাগরিক প্রমাণ করার জন্য৷
*৫) উপরোক্ত উদ্দেশ্যে সুষ্ঠুভাবে কাজ চালানোর জন্য ভারত সরকার উপযুক্ত নির্ভুল সরকারী যন্ত্রাদি প্রদান করবেন৷
*৬) বিদেশী হিসাবে শনাক্তকরণের ১০ বছর অতিক্রম হওয়ার পর নির্বাচনী তালিকাদের বিষ্কার করা নামগুলি পুণরায় বিবেচনার মাধ্যমে পুণরুদ্ধার করা হবে৷
*৭) যেসমস্ত বিদেশীকে আগে থেকেই বিতাড়িত করা হয়েছিলো কিন্তু তৎসত্ত্বেও তারা আবার পুণরায় আসামে এসে উপস্থিত হয়েছেন, তাদেরকে আবার একইভাবে বিতাড়িত করতে হবে৷
*৮) ২৫শে মার্চ ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দ, এই তারিখের পরে আসামে আসা বিদেশীডের আইন অনুসারে শনাক্তকরণ, নির্বাচনী তালিকা থেকে বহিষ্করণ ও বিতাড়ন প্রক্রিয়া চলতে থাকবে৷ এই সমস্ত বিদেশীদের বিরুদ্ধে আপৎকালীন কড়া পদ্ধতি নেওয়া হবে৷
*৯) অবৈধ অভিবাসী আইন ১৯৮৩ বিষয়ে আসাম ছাত্র সংগঠনের দ্বারা আনীত বিভিন্ন জটিলতাকে ভারত সরকার গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবে৷
 
==স্বাক্ষরকারী==