"সাবিত্রী জিন্দাল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
{{কাজ চলছে}}
 
'''সাবিত্রী দেবী জিন্দাল''' (জন্ম ২০ মার্চ ১৯৫০) একজন বিশিষ্ট [[ভারতীয়]] ব্যবসায়ী।ব্যবসায়ী এবং রাজনীতিবিদ।
 
== জীবনী ==
সাবিত্রী ১৯৫০ সালে ২০ মার্চে [[আসাম|আসামের]] [[তিনসুকিয়া]] জেলায় জন্মগ্রহন করেন। ১৯৭০ সালে তিনি ওম প্রকাশ জিন্দালিনকে বিয়ে করেন, যিনি জিন্দাল গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা। সাবিত্রী বর্তমানে এমেরিটাস, জিন্দাল ষ্টীল এন্ড পাওয়ার লিমিটেডের চেয়ারপার্সন।
 
সাবিত্রী জিন্দাল [[হরিয়াণা|হরিয়ানার]] হিসার থেকে নির্বাচিত হরিয়ানা বিধানসভার সদস্য ছিলেন। তিনি ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত হরিয়ানা বিধানসভা নির্বাচনে পরাজিত হন। ২০০৫ সালে তার স্বামী ওম প্রকাশ জিন্দাল হেলিকপ্টার দূর্ঘটনায় মারা গেলে তিনি জিন্দাল গ্রুপের চেয়ারপার্সনের দায়িত্ব নেন। সাবিত্রী দেবী [[ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস|ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের]] সদস্য।
 
তিনি কোম্পানীর দায়িত্ব নেয়ার পর কোম্পানীর আয় ৪ গুন বৃদ্ধি পায়। ১৯৫২ সালে সাবিত্রী দেবীর স্বামী ওম প্রকাশ জিন্দাল ও.পি জিন্দাল গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন, যিনি একজন [[প্রকৌশলী]] ছিলেন। পরবর্তীতে এটি ইস্পাত, শক্তি, খনির, তেল ও গ্যাস উৎপাদন শুরু করে। কোম্পানীর এই চারটি খাত তার চার পুত্র পৃথিভিরাজ, সজ্জন, রতন এবং নাভেন জিন্দাল কতৃক পরিচালিত হয়। জিন্দাল গ্রুপ [[ভারত|ভারতের]] ৩য় শীর্ষ ইস্পাত উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান।
 
সাবিত্রী দেবী ভারতের সবচেয়ে ধনী নারী এবং ২০১৬ সালের হিসাবে সর্বভারতের ১৬ তম ধনী, তার $৪ বিলিয়ন ইউএস ডলারের উপর সম্পদ রয়েছে। এছাড়াও তিনি ২০১৬ সালের হিসাবে বিশ্বের ৪৫৩ তম ধনী।
 
== রাজনীতি ==
সাবিত্রী দেবী [[ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস|ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের]] সদস্য। ২০০৫ সালে জিন্দাল [[হিসার]] সংসদীয় আসন থেকে হরিয়ানা বিধানসভায় নির্বাচিত হন, এই আসনে তার স্বামী ওম প্রকাশ জিন্দাল প্রতিনিধিত্ব করেন। ২০০৯ সালে তিনি পুনরায় নির্বাচিত হয়ে ২০১৩ সালের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্যসরকারের মন্ত্রী ছিলেন। তিনি রাজস্ব ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, একীকরণ, পুনর্বাসন ও গৃহায়ন মন্ত্রণালয় এবং শহুরে স্থানীয় সংস্থা ও হাউজিং রাজ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করেন।
 
তিনি কোম্পানীর দায়িত্ব নেয়ার পর কোম্পানীর আয় ৪ গুন বৃদ্ধি পায়। ১৯৫২ সালে সাবিত্রী দেবীর স্বামী ওম প্রকাশ জিন্দাল ও.পি জিন্দাল গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন, যিনি একজন [[প্রকৌশলী]] ছিলেন। পরবর্তীতে এটি ইস্পাত, শক্তি, খনির, তেল ও গ্যাস উৎপাদন শুরু করে। কোম্পানীর এই চারটি খাত তার চার পুত্র পৃথিভিরাজ, সজ্জন, রতন এবং নাভেন জিন্দাল কতৃক পরিচালিত হয়। জিন্দাল গ্রুপ [[ভারত|ভারতের]] ৩য় শীর্ষ ইস্পাত উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান।
<br />