"ক্লাইভ র‍্যাডলি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি!
(আন্তর্জাতিক ক্রিকেট - নতুন অনুচ্ছেদ!)
(প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি!)
 
'''ক্লাইভ থর্নটন র‍্যাডলি''', এমবিই ({{lang-en|Clive Radley}}; [[জন্ম]]: [[১৩ মে]], [[১৯৪৪]]) হার্টফোর্ডে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ও সাবেক ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা।<ref name="Cap">{{cite book |title=If The Cap Fits |last=Bateman |first=Colin |authorlink= |coauthors= |year=1993 |publisher=Tony Williams Publications |location= |isbn=1-869833-21-X |page= 136 |url= }}<!--|accessdate=27 April 2011--></ref> [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল|ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের]] অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭৮ সময়কালে স্বল্প সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে [[মিডলসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব|মিডলসেক্স]] ও নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেট অকল্যান্ড দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন ‘র‍্যাডার্স’ ডাকনামে পরিচিত '''ক্লাইভ র‍্যাডলি'''।
 
== প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট ==
১৯৬১ সালে [[Minor Counties Championship|মাইনর কাউন্টিতে]] [[Norfolk County Cricket Club|নরফোকের]] পক্ষে ৮টি খেলায় অংশ নেন। এরপর ১৯৬২ সালে মিডলসেক্সের দ্বিতীয় একাদশে খেলেন। এ দলটিতে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত অংশ নেন। অন্যদিকে ১৯৬৪ থেকে ১৯৮৭ সাল প্রথম একাদশের পক্ষে ৫২০টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে ৪৬টি শতরানের ইনিংস উপহার দেন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ করেন ২০০। এছাড়াও, ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে [[Auckland Aces|অকল্যান্ড এইসের]] পক্ষে খেলেছিলেন।
 
বেশ কয়েকবছর মিডলসেক্সের দক্ষ [[ফিল্ডিং (ক্রিকেট)|ফিল্ডারের]] ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। [[মাইক ব্রিয়ারলি]] [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অধিনায়কদের তালিকা|ইংল্যান্ডের দলনেতার]] ভূমিকায় অধিষ্ঠিত হলেও বেশ সুচারুভাবে তাঁর [[অধিনায়ক (ক্রিকেট)|নেতৃত্বের]] শূন্যতা পূরণে সক্ষমতা দেখিয়েছেন।
 
== আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ==
সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে আটটি টেস্ট ও চারটি [[একদিনের আন্তর্জাতিক|একদিনের আন্তর্জাতিকে]] অংশগ্রহণ করেছিলেন। [[প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট|প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে]] সংগৃহীত ৩৫.৪৪ ব্যাটিংয়ের গড়ের তুলনায় টেস্টের ৪৮.১০ গড় তুলনান্তে অনেক বেশী। তবে, বেশ বয়স নিয়ে তেত্রিশ বছর বয়সে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটেছিল ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি উচ্চতার অধিকারী ক্লাইভ র‍্যাডলি’র।<ref name="Cap"/> ১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৮ তারিখে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট ক্রিকেটে]] অভিষেক ঘটে ক্লাইভ র‍্যাডলি’র।
 
অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত নিজস্ব দ্বিতীয় টেস্টে দীর্ঘ ১১ ঘন্টা ক্রিজে অবস্থান করে ১৫৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এরপর পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টেও ১১৫ রান তুলেন। শেষ দুই টেস্টে ৫৯ ও ৭৭ রানের ইনিংস খেলেন। ফলশ্রুতিতে শীতকালে অস্ট্রেলিয়া গমনের জন্যে ইংরেজ দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন।
 
বেশ দূর্ভাগ্যজনকভাবে ক্লাইভ র‍্যাডলি’র টেস্ট খেলোয়াড়ী জীবন স্বল্প সময়েই শেষ হয়ে যায়। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে [[অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ক্রিকেট দল|অস্ট্রেলিয়া]] গমন করেন। সিরিজের প্রথম টেস্টে মাথায় গুরুতর আঘাত পেলে এ ঘটনা ঘটে। স্বল্প কয়েকজন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারের অন্যতম হিসেবে সর্বশেষ একদিনের আন্তর্জাতিকে [[শতক (ক্রিকেট)|শতরান]] করার গৌরব অর্জন করেছিলেন। ১৯৭৮ সালে [[নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দল|নিউজিল্যান্ডের]] বিপক্ষে এ শতরানটি করেছিলেন।
 
ঘরোয়া ক্রিকেটে অনবদ্য ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৭৯ সালে উইজডেন কর্তৃক অন্যতম [[উইজডেন বর্ষসেরা ক্রিকেটার|বর্ষসেরা ক্রিকেটারের]] সম্মাননায় ভূষিত হন।
৭২,২৯৫টি

সম্পাদনা