প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

2টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10ehf1)
 
== ইতিহাস ==
ফারেনহাইট ১৭২৪ সালে তাঁর দিনপঞ্জীতে লিখেন,<ref name = 'ftempsc'/> তিনি তাঁর তাপমাত্রা পরিমাপক স্কেল টি দাঁড়া করিয়েছেন ৩ টি তাপমাত্রা সাপেক্ষে। সেগুলোর প্রথম টি হল [[বরফ]], পানি এবং [[অ্যামোনিয়াম ক্লোরাইড]] এর মিশ্রণের তাপমাত্রা, যাকে তিনি {{nowrap|০ °F}} বলেছেন। পরের তাপমাত্রা হল পানি এবং বরফের মিশ্রণের তাপমাত্রা, যা {{nowrap|৩২ °F}} নির্দেশ করে।<ref>{{বই উদ্ধৃতি |title=Physics for Future Presidents |last=Muller |first=R.A. |year=2009 |pages=2-5, 2-17 |url=http://physics.berkeley.edu/academics/Courses/physics10/teaching/Physics10/PffP_textbook_F08/PffP-02-heat-F08.pdf |accessdate=20 February 2010 |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20100613125240/http://physics.berkeley.edu/academics/Courses/physics10/teaching/Physics10/PffP_textbook_F08/PffP-02-heat-F08.pdf |আর্কাইভের-তারিখ=১৩ জুন ২০১০ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> শেষ তাপমাত্রা টি হল {{nowrap|৯৬ °F}} যা মানব দেহের স্বাভাবিক তাপমাত্রা। এছাড়া তাঁর স্কেল অনুসারে পারদের স্ফুটনাঙ্ক হল {{nowrap|৬০০ °F}}।
 
পরবর্তিতে বিজ্ঞানীরা আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন পানির স্ফুটনাঙ্ক, তার হিমাঙ্কের চেয়ে প্রায় ১৮০ ডিগ্রী বেশি। তাই তারা পানির স্ফুটনাঙ্ক এবং হিমাঙ্কের মধ্যবর্তী পার্থক্য পুরোপুরি ১৮০ ডিগ্রী ধরে ১ ডিগ্রী ফারেনহাইটের সংজ্ঞা পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেন।<ref name='ftempsc'>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|url=http://www.sizes.com/units/temperature_Fahrenheit.htm |title=Fahrenheit temperature scale |accessdate=May 9, 2008 |date=December 12, 2006 |publisher=Sizes, Inc }}</ref> এর ফলে নতুন সংশোধিত স্কেলে মানব শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা দাঁড়ায় {{nowrap|৯৮.৬ °F}}।<ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি | last = Elert | first = Glenn | title = Temperature of a Healthy Human (Body Temperature) | url = http://hypertextbook.com/facts/LenaWong.shtml | accessdate = 2008 | doi = 10.1046/j.1471-6712.2002.00069.x | year = 2002 | journal = Scandinavian Journal of Caring Sciences | volume = 16 | pages = 122}}</ref>
 
শুধুমাত্র [[যুক্তরাষ্ট্র]] এবং অল্প কিছু দেশ ([[ব্রাজিল]]<ref name='belizeweather'>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|url=http://www.hydromet.gov.bz/ |title=Belize Weather Bureau |accessdate=May 9, 2008}}</ref>, [[বার্মা]], এবং [[লাইবেরিয়া]]<ref>[https://www.cia.gov/library/publications/the-world-factbook/appendix/appendix-g.html CIA Factbook: Weights and Measures]</ref>) গবেষণা বহির্ভূত ব্যবহারের ক্ষেত্রে এখনও ফারেনহাইট স্কেল ব্যবহার করে। বাকি প্রায় সব দেশ সেলসিয়াস স্কেলকে তাপমাত্রা পরিমাপের প্রাথমিক স্কেল হিসেবে গ্রহণ করেছে।
যুক্তরাষ্ট্রে আবহাওয়া পূর্বাভাষ, রান্না করার তাপমাত্রা এবং হিমায়ন তাপমাত্রা সাধারণত ডিগ্রী ফারেনহাইটে বলা হয়। [[যুক্তরাষ্ট্র|যুক্তরাষ্ট্রের]] ফারেনহাইট স্কেলে থেকে যাওয়ার পেছনে অনেক কারণ দেখানো হয়।<ref>[http://books.google.com/books?id=xRMPAAAAYAAJ&pg=PA165&dq=centigrade+too+large&lr=&as_brr=0&as_pt=ALLTYPES#PPA166,M1] Halsey, Frederick A., Dale, Sanuel S., "The metric fallacy," The American institute of weights and measures, Second Edition, 1919. Pages 165-166, 176-177. Retrieved May 19, 2009</ref> যদিও [[নিউজিল্যান্ড]] এবং [[অস্ট্রেলিয়া|অস্ট্রেলিয়ার]] মত অনেক দেশ যারা আগে ফারেনহাইট স্কেল ব্যবহার করত, তারা একে সেকেল মনে করে সম্পূর্নরূপে সেলসিয়াস স্কেল গ্রহণ করেছে।<ref>[http://nomorewinter.com/nzinfo/moneyandmetrics.htm] {{ওয়েব আর্কাইভ|ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20090125201019/http://nomorewinter.com/nzinfo/moneyandmetrics.htm |তারিখ=২৫ জানুয়ারি ২০০৯ }} Information about New Zealand's money and metric measures</ref>
 
== উপস্থাপনা ==
৪৫,৫৮৫টি

সম্পাদনা