"বারট্রান্ড রাসেল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

5টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10ehf1)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(5টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10ehf1))
রাসেল ১৯০০ সালের শুরুতে ব্রিটিশদের ''[[idealism|আদর্শবাদের]] বিরুদ্ধে বিদ্রোহে'' নেতৃত্ব প্রদান করেন। তাকে [[analytic philosophy|বিশ্লেষণী দর্শনের]] অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা বিবেচনা করা হয়, এর অন্যান্য প্রতিষ্ঠাতারা ছিলেন তার শিষ্য [[Ludwig Wittgenstein|ভিটগেনস্টেইন]] এবং পূর্বসূরি [[Gottlob Frege|ফ্রেগে]] এবং তাকে ২০ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠতম যুক্তিবিদদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়।<ref name="stanford" /> রাসেল এবং [[A. N. Whitehead|হোয়াইটহেড]] একত্রে ''[[Principia Mathematica|প্রিন্কিপিয়া ম্যাথমেটিকা]]'' নামে একটি গ্রন্থ রচনা করেন, যাতে তারা গণিতকে যুক্তির ভিত্তির ওপর প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করেন। তার দার্শনিক নিবন্ধ "[[On Denoting|অন ডিনোটিং]]" ''দর্শনশাস্ত্রে মডেল'' হিসেবে বিবেচিত হয়।<ref>Ludlow, Peter, "Descriptions", The Stanford Encyclopedia of Philosophy (Fall 2008 Edition), Edward N. Zalta (ed.), URL = [http://plato.stanford.edu/archives/fall2008/entries/descriptions/].</ref> দুটো গ্রন্থই [[যুক্তি]], [[গণিত]], [[সেট তত্ত্ব]], ভাষাতত্ত্ব এবং দর্শনকে গভীরভাবে প্রভাবিত করেছে।
 
তিনি ছিলেন একজন প্রখ্যাত [[anti-war|যুদ্ধবিরোধী]] ব্যক্তিত্ব এবং জাতিসমূহের মধ্যে মুক্ত বাণিজ্যে বিশ্বাস করতেন।<ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|লেখক=Richard Rempel|বছর=1979|শিরোনাম=From Imperialism to Free Trade: Couturat, Halevy and Russell's First Crusade|সাময়িকী=Journal of the History of Ideas|খণ্ড=40|সংখ্যা নং=3|পাতাসমূহ=423–443|ডিওআই=10.2307/2709246|ইউআরএল=http://jstor.org/stable/2709246|প্রকাশক=University of Pennsylvania Press}}</ref><ref>{{বই উদ্ধৃতি|লেখক=Bertrand Russell|শিরোনাম=Political Ideals|প্রকাশক=Routledge|প্রকৃত-বছর=1917|বছর=1988|আইএসবিএন=0-415-10907-8}}</ref> তিনি ছিলেন সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী। রাসেল তার অহিংস মতবাদ প্রচারের জন্যে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় জেলবন্দী হন, তিনি [[Adolf Hitler|হিটলারের]] বিরুদ্ধে প্রচারণা চালান, [[সোভিয়েত]] [[totalitarianism|টোটালিটারিয়ানিজম]] এবং [[Vietnam War|ভিয়েতনাম যুদ্ধে]] আমেরিকার অংশগ্রহণের সমালোচনা করেন এবং [[nuclear disarmament|পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের]] পক্ষে ছিলেন সর্বদা সোচ্চার।<ref name="Gallery">[{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=The Bertrand Russell Gallery |ইউআরএল=http://russell.mcmaster.ca/~bertrand/ The|সংগ্রহের-তারিখ=৭ Bertrandজুলাই Russell২০১০ Gallery]|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20110928232717/http://russell.mcmaster.ca/~bertrand/ |আর্কাইভের-তারিখ=২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref>
 
রাসেল ১৯৫০ সালে [[Nobel Prize in Literature|সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার]] অর্জন করেন, যা ছিল "তার বহুবিধ গুরুত্বপূর্ণ রচনার স্বীকৃতিস্বরূপ যেখানে তিনি মানবতার আদর্শ ও চিন্তার মুক্তিকে ওপরে তুলে ধরেছেন।"<ref name="nobel prize">The Nobel Foundation (1950). [http://nobelprize.org/nobel_prizes/literature/laureates/1950/russell-bio.html Bertrand Russell: The Nobel Prize in Literature 1950]. Retrieved on 11 June 2007.</ref>
* In Quest of Happines [সুখ / মোতাহের হোসেন চৌধুরী ]
* Impact of Science on Society [সমাজে বিজ্ঞানের প্রভাব / সুহৃদ সরকার ]
* [https://web.archive.org/web/20081006184733/http://www.positiveatheism.org/hist/russell1.htm "A Free Man's Worship"] (1903)
* [http://www.luminary.us/russell/atheist_agnostic.html "Am I an Atheist or an Agnostic?"] (1947)
* [https://web.archive.org/web/20070529182822/http://www.solstice.us/russell/icarus.html "Icarus, or The Future of Science"] 1923
* [https://web.archive.org/web/20081013171622/http://www.solstice.us/russell/religionciv.html "Has Religion Made Useful Contributions to Civilization?"] 1930
* [https://web.archive.org/web/20081015044506/http://www.solstice.us/russell/ideas_harm.html "Ideas that Have Harmed Mankind"] (1950)
* [http://www.zpub.com/notes/idle.html "In Praise of Idleness"] (1932)
* [http://nobelprize.org/literature/laureates/1950/russell-lecture.html "What Desires Are Politically Important?"] (1950)
৮১,২৪৬টি

সম্পাদনা