"বঙ্গোপসাগর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

3টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10ehf1)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(3টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10ehf1))
 
== বিস্তার ==
[[ইন্টারন্যাশানাল হাইড্রোগ্রাফিক অর্গানাইজেশন]] বঙ্গোপসাগরের যে সীমারেখা নির্দিষ্ট করে দিয়েছে, সেটি নিম্নরূপ:<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|url=http://www.iho-ohi.net/iho_pubs/standard/S-23/S23_1953.pdf|title=Limits of Oceans and Seas, 3rd edition|year=1953|publisher=International Hydrographic Organization|accessdate=7 February 2010|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20111008191433/http://www.iho-ohi.net/iho_pubs/standard/S-23/S23_1953.pdf|আর্কাইভের-তারিখ=৮ অক্টোবর ২০১১|অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ}}</ref>
 
::পূর্ব দিকে:'' মায়ানমারের [[নেগ্রাইস অন্তরীপ]] (১৬°০৩' উত্তর) থেকে একটি রেখা [[আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ|আন্দামানের]] বৃহদায়তন দ্বীপগুলির উপর দিয়ে এমনভাবে টানা হয়েছে, যাতে দ্বীপগুলির মধ্যভাগের সংকীর্ণ জলভাগ রেখার পূর্ব দিকে পড়ে এবং বঙ্গোপসাগর থেকে বিচ্ছিন্ন থাকে। এই রেখাটি [[লিটল আন্দামান দ্বীপ]] (১০°৪৮' উত্তর অক্ষরেখা ও ৯২°২৪' পূর্ব দ্রাঘিমা রেখা) পর্যন্ত প্রসারিত। তারপর [[আন্দামান সাগর|মায়ানমার সাগরের]] দক্ষিণপশ্চিম সীমা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের সীমা প্রসারিত। ([[সুমাত্রা|সুমাত্রার]] ওয়েজং রাজা ({{স্থানাঙ্ক|5|32|N|95|12|E|display=inline}}) থেকে পোয়েলো ব্রু পর্যন্ত একটি রেখা [[নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ|নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের]] পশ্চিম দিকের দ্বীপগুলির উপর দিয়ে এমনভাবে প্রসারিত, যাতে দ্বীপগুলির মধ্যভাগের সংকীর্ণ জলভাগ মায়ানমার সাগরে পড়ে। এই রেখাটি দক্ষিণে লিটল আন্দামান দ্বীপের স্যান্ডি পয়েন্ট পর্যন্ত প্রসারিত।
 
== নামকরণ ==
প্রাচীন [[হিন্দুধর্ম|হিন্দু]] শাস্ত্রে বঙ্গোপসাগরকে বলা হয়েছে ‘মহোদধি’ ([[সংস্কৃত ভাষা|সংস্কৃত]]: महोदधि, অর্থাৎ, বিরাট জলাধার)।<ref name="Kuttan">{{বই উদ্ধৃতি | url=https://books.google.com/books?id=nERVRxj22W0C&pg=PA243 | title=The Great Philosophers of India | publisher=AuthorHouse | author=Kuttan | year=2009 | isbn=978-1434377807}}</ref><ref name="indiatourism4u">{{ওয়েব উদ্ধৃতি | url=http://www.indiatourism4u.in/tourism/960/Tamil-Nadu/Dhanushkodi/ | title=Dhanushkodi | publisher=indiatourism4u.in | accessdate=21 August 2013 | আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20140308014348/http://www.indiatourism4u.in/tourism/960/Tamil-Nadu/Dhanushkodi | আর্কাইভের-তারিখ=৮ মার্চ ২০১৪ | অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> প্রাচীন মানচিত্রগুলিতে এই উপসাগরটি ''সাইনাস গ্যাঞ্জেটিকাস'' বা ''গ্যাঞ্জেটিকাস সাইনাস'' নামে পরিচিত। এই কথা দুটির অর্থ গঙ্গা উপসাগর। <ref>[[commons:File:1794 Anville Map of the Ancient World - Geographicus - AncientWorld-anville-1794.jpg|1794, Orbis Veteribus Notus by Jean Baptiste Bourguignon d'Anville]]</ref>
 
বঙ্গোপসাগরের অন্যান্য সংস্কৃত নামগুলি হল ‘বঙ্গোপসাগর’ (সংস্কৃত: वङ्गोपसागर), বঙ্গসাগর (সংস্কৃত: वङ्गसागर) ও পূর্বপয়োধি (সংস্কৃত:पूर्वपयोधि, পূর্ব মহাসাগর)।
 
== দ্বীপপুঞ্জ ==
বঙ্গোপসাগরে অনেকগুলো দ্বীপমালা রয়েছে। তন্মধ্যে - [[আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ|আন্দামান]], [[নিকোবর]] এবং [[মার্গুই]] দ্বীপপুঞ্জ অন্যতম। উত্তর-পূর্বে [[মায়ানমার]] উপকূলের [[চিদুবা]] দ্বীপপুঞ্জ কয়েকটি কর্দমাক্ত আগ্নেয়গিরির জন্য বিখ্যাত যা মাঝে মাঝে সক্রিয় হয়। [[গ্রেট আন্দামান]] হচ্ছে আন্দামান দ্বীপমালার প্রধান দ্বীপ; অন্যদিকে [[রিচি|রিচি'র]] দ্বীপটি ক্ষুদ্রতম দ্বীপপুঞ্জের আওতাধীন। ৫৭২টি দ্বীপের মধ্যে ৩৭টিতে অধিবাসী রয়েছে। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপেই বেশীরভাগ লোক বাস করে যা মোট জনগোষ্ঠীর ৬.৫%।<ref>[{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=পোর্ট ব্লেয়ার |ইউআরএল=http://www.and.nic.in/port-blair.htm পোর্ট|সংগ্রহের-তারিখ=১০ ব্লেয়ার]ফেব্রুয়ারি ২০১১ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20070930024520/http://www.and.nic.in/port-blair.htm |আর্কাইভের-তারিখ=৩০ সেপ্টেম্বর ২০০৭ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref>
 
== সমুদ্র সৈকতসমূহ ==
৫৪,৩৩২টি

সম্পাদনা