"গ্রাহাম ম্যাকেঞ্জি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(পরিমার্জিত রূপ)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
{{তথ্যছক ক্রিকেটার
{{Infobox cricketer
| name = গ্রাহাম ম্যাকেঞ্জি
| country = অস্ট্রেলিয়া
জন কার্টিন হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন। সেখানে বিদ্যালয়ের প্রথম একাদশে ব্যাট ও বল উভয় বিভাগে ভাল করেন। ষোল বছর বয়সে ক্লেয়ারমন্ট-কটস্লো দলের পক্ষে ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম স্তরভিত্তিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তাঁর। কিন্তু, ক্রীড়াশৈলীতে ধারাবাহিকতা না থাকায় তাঁকে দ্বিতীয় একাদশে অবনমন করা হয়। ১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে দ্বিতীয় স্তরভিত্তিক ক্রিকেট খেলতে থাকেন ও পেস বোলারের অভাব থাকায় বোলিং করে ১৪.৫০ গড়ে ৫০ উইকেট পান।
 
১৯৫৯-৬০ মৌসুমে পুণরায় দলের প্রথম একাদশে অন্তর্ভুক্ত হন। ঐ মৌসুমে ৩৯.৪৬ গড়ে ৫১৫ রান ও ১১.২১ গড়ে ৪৯ উইকেট পান। এরফলে রাজ্য দলনির্বাচকমণ্ডলী মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত [[শেফিল্ড শিল্ড|শেফিল্ড শিল্ডের]] খেলায় [[ভিক্টোরিয়া ক্রিকেট দল|ভিক্টোরিয়া]] বিপক্ষে অংশগ্রহণের জন্য তাঁকে আমন্ত্রণ জানায়। খেলায় তিনি কোন উইকেট পাননি এবং ২২ ও ৪১ রান তোলেন। পার্থে [[Southern Redbacks|দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার]] বিপক্ষে অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত খেলায় তিনি তাঁর প্রথম [[উইকেট]] লাভ করেন। মৌসুম শেষে দলীয় অধিনায়ক [[Ken Meuleman|কেন মিউলম্যান]] তাঁকে [[ফাস্ট বোলিং|ফাস্ট বোলিংয়ে]] মনোনিবেশ ঘটানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন।<ref name="wisden">{{ওয়েব উদ্ধৃতি| titleশিরোনাম= Wisden 1965 – Graham McKenzie |urlইউআরএল=http://content-aus.cricinfo.com/ci/content/story/154555.html| yearবছর= 1965 |accessdateসংগ্রহের-তারিখ=2007-05-21| publisherপ্রকাশক=-[[Wisden]]}}</ref>
 
== খেলোয়াড়ী জীবন ==
শেফিল্ড শিল্ডে চমকপ্রদ ক্রীড়াশৈলীর প্রেক্ষিতে ১৯ বছর বয়সে তাঁকে ১৯৬১ সালের [[দি অ্যাশেজ|অ্যাশেজ সফরে]] [[রিচি বেনো|রিচি বেনো’র]] নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়া দলের অন্যতম সদস্য মনোনীত হন। লর্ডসে অনুষ্ঠিত সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে তাঁর অভিষেক ঘটে। খেলায় তিনি ৫/৩৭ লাভ করেন। তন্মধ্যে, শেষ তিন উইকেট দখল করেন মাত্র ১২ বলে। ঐ খেলায় [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল|ইংল্যান্ডের]] বিপক্ষে তাঁর দল ৫ উইকেটে জয় পায়।
 
১৯৬৬-৬৭ মৌসুমে [[দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল|দক্ষিণ আফ্রিকা]] সফর করেন। এরপর ১৯৬৭-৬৮ মৌসুমে ভারত সফরে যান। কিন্তু, [[ভারত জাতীয় ক্রিকেট দল|ভারতের]] বিপক্ষে একমাত্র দশ উইকেট প্রাপ্তির পর শেষ দুই খেলায় তাঁকে নেয়া হয়নি। ধারণা করা হয় যে, ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের উপর তাঁর আধিপত্য বিস্তারের ফলে এ সিরিজে দর্শকদের অংশগ্রহণ কমে যাবে।<ref name="az">{{বই উদ্ধৃতি | lastশেষাংশ = Cashman, Franks, Maxwell, Sainsbury, Stoddart, Weaver, Webster | yearবছর = 1997 | titleশিরোনাম = The A-Z of Australian cricketers|pagesপাতাসমূহ =193–194}}</ref>
 
১৯৬৮-৬৯ মৌসুমে সফরকারী [[ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল|ওয়েস্ট ইন্ডিজের]] বিপক্ষে ২৫.২৬ গড় ৩০ উইকেট পান। ২৭ বছর বয়সে সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে ২০০ টেস্ট উইকেট পান যা একসময় রেকর্ড হিসেবে পরিগণিত হয়েছিল।<ref name="az"/> একই মৌসুমে ভারত সফরে ২১.০০ গড়ে ২১ উইকেট পান। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৪ টেস্টে অংশ নিয়ে ১/৩৩৩ পেয়েছিলেন ও তাঁর দল [[হোয়াইটওয়াশ]] হয়েছিল।
১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে খেলা চালিয়ে যান। ১৯৭৭ সালে অবসর ভেঙ্গে [[ক্যারি প্যাকার|ক্যারি প্যাকারের]] বিশ্ব সিরিজ ক্রিকেটে অংশ নেন। এরপর তাঁর পরিবার দক্ষিণ আফ্রিকায় চলে যায় ও সেখানে তিনি ঘরোয়া সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অংশ নেন। এরপর পুণরায় পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে আসেন।<ref name="az"/>
 
প্রথম পশ্চিম অস্ট্রেলীয় হিসেবে ১৯৬৫ সালে [[উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাক|উইজডেন]] কর্তৃক [[উইজডেন বর্ষসেরা ক্রিকেটার|বর্ষসেরা ক্রিকেটার]] হিসেবে মনোনীত হন।<ref name="wisden"/> ২০১০ সালে ম্যাকেঞ্জিকে [[অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট হল অব ফেম|অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট হল অব ফেমে]] অন্তর্ভুক্ত করা হয়।<ref name="HoF">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|urlইউআরএল=http://www.cricinfo.com/australia/content/story/448134.html|titleশিরোনাম=Lawry and McKenzie gain places in Hall of Fame|dateতারিখ=14 February 2010|publisherপ্রকাশক=ESPN Cricinfo|accessdateসংগ্রহের-তারিখ=14 February 2010}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
{{অস্ট্রেলীয় প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট মৌসুমে শীর্ষস্থানীয় উইকেটলাভকারী (১৯৫০-৫১ থেকে ১৯৯৯-০০)}}
{{কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রণ}}
{{পূর্বনির্ধারিতবাছাই:ম্যাকেঞ্জি, গ্রাহাম}}
 
{{পূর্বনির্ধারিতবাছাই:ম্যাকেঞ্জি, গ্রাহাম}}
[[বিষয়শ্রেণী:১৯৪১-এ জন্ম]]
[[বিষয়শ্রেণী:জীবিত ব্যক্তি]]
১,৭০,৪৭২টি

সম্পাদনা