"জনি ওয়ারডল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ব্যক্তিগত জীবন - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি
(বিতর্কিত ভূমিকা - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি)
(ব্যক্তিগত জীবন - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি)
একমাত্র ইংরেজ বোলার হিসেবে এ পদ্ধতিতে একচ্ছত্র প্রভাববিস্তার করেছেন। এরফলে তিনি অনেক সফলতা পেয়েছেন। ১৯৫৬-৫৭ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। সেখানে তিনি ইংল্যান্ডের বাইরে এক মৌসুমে শতাধিক উইকেট লাভের ন্যায় অনন্য কৃতিত্ব প্রদর্শনে সক্ষমতা দেখান। এর পাশাপাশি সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেটে চায়নাম্যান বোলিং করেছেন।
 
== ব্যক্তিগত জীবন ==
১৯৫৭ সালে জনি ওয়ারডল নিজস্ব আত্মজীবনীমূলক ‘হ্যাপি গো জনি’ শিরোনামীয় পুস্তক প্রকাশ করেন।
 
ইয়র্কশায়ার ও এমসিসি কর্তৃপক্ষ উভয়েই জনি ওয়ারডলকে আজীবন সদস্য করার চেষ্টা চালিয়েছিলেন। ডনকাস্টারের কাছে থাকা কান্ট্রি ক্লাবের ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করেন।
 
ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত হবার পর অপারেশন করা হয়। তবে, আরোগ্য লাভ করেননি জনি ওয়ারডল। অতঃপর ২৩ জুলাই, ১৯৮৫ তারিখে ৬২ বছর বয়সে ইয়র্কশায়ারের হ্যাটফিল্ড এলাকায় তাঁর দেহাবসান ঘটে। মৃত্যুর পর ১৯৮৮ সালে অ্যালেন হিল ‘জনি ওয়ারডল: ক্রিকেট কনজুরর’ শিরোনামে আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ প্রকাশ করেন।<ref>''Wisden'' 1989, p. 1248.</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
৭৭,২৭৩টি

সম্পাদনা