"ক্ল্যারি গ্রিমেট" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

পরিমার্জিত রূপ
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্য থাকল এর পরিচালককে জানান।)
(পরিমার্জিত রূপ)
}}
 
'''ক্ল্যারেন্স ভিক্টর ক্ল্যারি গ্রিমেট''' ({{lang-en|Clarrie Grimmett}}; [[জন্ম]]: [[২৫ ডিসেম্বর]], [[১৮৯১]] - [[মৃত্যু]]: [[২ মে]], [[১৯৮০]]) নিউজিল্যান্ডের ডুনেডিনে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক [[ক্রিকেট|ক্রিকেটার]] তারকা ছিলেন। [[অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ক্রিকেট দল|অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের]] পক্ষে [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট ক্রিকেটে]] অংশগ্রহণ করেছেন '''ক্ল্যারি গ্রিমেট'''। ক্রিকেট বোদ্ধাদের অভিমত, ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম [[spin bowler|স্পিন বোলার]] তিনি। এছাড়াও তিনি [[flipper (cricket)|ফ্লিপারের]] উদ্ভাবক। [[বড়দিন|বড়দিনে]] জন্ম নেয়া গ্রিমেট প্রসঙ্গে [[বিল ও’রিলি]] বলেন, ঐ দেশ থেকে বড়দিন উপলক্ষে তিনি সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার হিসেবে অস্ট্রেলিয়া গ্রহণ করেছে।<ref>[[বিল ও’রিলি|Bill O'Reilly]], "Clarrie Grimmett", in John Woodcock (ed.) ''Wisden Cricketers' Almanack 1981'' (Queen Anne Press, London, 1981) 103-105 at 103.</ref>
 
== প্রারম্ভিক জীবন ==
 
== খেলোয়াড়ী জীবন ==
৩৩ বছর বয়সে টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ পান। ১৯২৪ থেকে ১৯৩৬ সময়কালে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৩৭ টেস্টে অংশ নেন। উইকেট প্রতি ২৪.২১ গড়ে ২১৬ [[উইকেট]] সংগ্রহ করেন। ১৯২৫ সালে অভিষেক টেস্টেই [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল|ইংল্যান্ডের]] বিপক্ষে অনুষ্ঠিত সিডনি টেস্টে [[টেস্ট ক্রিকেট অভিষেকে দুইবার ৫ উইকেট লাভকারী ক্রিকেটারদের তালিকা|দুইবার ৫-উইকেট]] শিকার করেন।<ref name="espncricinfo">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|url=http://www.espncricinfo.com/ci/engine/match/62548.html |title=5th Test: Australia v England at Sydney, Feb 27-Mar 4, 1925 |accessdate=2011-12-13|work=espncricinfo}}</ref> টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ২০০ উইকেট লাভের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। প্রতি খেলায় তিনি গড়ে ৬ [[উইকেট]] তুলে নেন।
 
টেস্ট জীবনের শেষ চার বছর দলীয় সঙ্গী ও বিখ্যাত লেগ স্পিনার [[বিল ও’রিলি|বিল ও’রিলি’র]] সাথে অনেকগুলো উইকেট ভাগাভাগি করেন। সর্বমোট ২১বার পাঁচ-উইকেট ও খেলায় ৭বার ১০-উইকেট লাভ করেছেন। ডারবানে [[দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল|দক্ষিণ আফ্রিকার]] বিপক্ষে শেষ টেস্টে অংশ নেন। সিরিজে ৪৪ উইকেট পেলেও নিজ দেশে ১৯৩৬-৩৭ মৌসুমে অনুষ্ঠিত সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দল থেকে বাদ পড়েন ও [[Frank Ward (cricketer)|ফ্রাঙ্ক ওয়ার্ড]] তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন। ফলে ১৯৩৮ সালে ইংল্যান্ড সফরে তিনি যাননি।
 
== সম্মাননা ==
৭৭,২৩৫টি

সম্পাদনা