"আবু তাহের" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(উদ্ধৃতি টেমপ্লেট ও অন্যান্য সংশোধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
== মুক্তিযুদ্ধ-উত্তর ভূমিকা ==
মুক্তিযুদ্ধের পরে তাহের প্রথমে [[বাংলাদেশ সেনাবাহিনী|বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর]] কর্নেল পদে দায়িত্ব পালন করেন, কিন্তু মতবিরোধের জন্য পদত্যাগ করেন। তিনি বামপন্থী রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ১৯৭৫ সালের [[নভেম্বর ৭|৭ই নভেম্বর]] তাঁর নেতৃত্বে সিপাহি-জনতারসিপাহী বিপ্লব সংঘটিত হয়, যা [[খালেদ মোশাররফ]] সরকারের পতন ঘটায়, এবং জেনারেল [[জিয়াউর রহমান|জিয়াউর রহমানকে]] কারামুক্ত করে।
 
পরবর্তীতে দায়েরকৃত এক হত্যা মামলায় তাহেরকে সামরিক আদালতে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় এবং ১৯৭৬ সালের ২১ জুলাই তাঁকে ফাঁসি দেয়া হয়।<ref>{{বই উদ্ধৃতি |শিরোনাম= একাত্তরের বীরযোদ্ধা, খেতাব পাওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাথা (দ্বিতীয় খন্ড)|শেষাংশ= |প্রথমাংশ= |লেখক-সংযোগ= |coauthors= |বছর=মার্চ ২০১৩ |প্রকাশক= প্রথমা প্রকাশন |অবস্থান= |আইএসবিএন= 9789849025375|পাতা= ৩৮|পাতাসমূহ= |সংগ্রহের-তারিখ= |ইউআরএল=}}</ref> [[২০১১]] সালের [[২২ মার্চ]] বাংলাদেশের মহামান্য হাইকোর্ট সামরিক আদালতে কর্নেল তাহেরের ফাঁসির রায়কে অবৈধ ঘোষণা করে।<ref name="বিডিনি১">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.banglanews24.com/national/news/bd/33653.details#1 |শিরোনাম=আজ আমি আনন্দিত, আমি গর্বিত : লুৎফা তাহের |সংবাদপত্র=বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম অনলাইন |তারিখ=২২ মার্চ ২০১১ |সংগ্রহের-তারিখ= ২৫ জানুয়ারি ২০১৮}}</ref>
৪৪টি

সম্পাদনা