"তেলাপোকা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্প্রসারণ
(সম্প্রসারণ)
 
==শ্রেনীকরণ এবং বিকাশ==
ঊনবিংশ শতাব্দিতে একটি ধারনার কারনে বিজ্ঞানীরা মনে করেছিলেন যে তেলাপোকা প্রাচীন পোকার একটি দল থেকে উৎপন্ন হয়েছে যাদের [[ডেভোনিয়ান]] উৎপত্তি রয়েছে।<ref name="Legendre_et_al_2015">{{cite journal |last1=Legendre |first1=F. |last2=Nel |first2=A. |last3=Svenson |first3=G. J. |last4=Robillard |first4=T. |last5=Pellens |first5=R. |last6=Grandcolas |first6=P. |title=Phylogeny of Dictyoptera: Dating the Origin of Cockroaches, Praying Mantises and Termites with Molecular Data and Controlled Fossil Evidence |journal=PLoS ONE |date=2015 |volume=10 |issue=7 |pages=e0130127 |doi=10.1371/journal.pone.0130127 |pmid=26200914 |pmc=4511787}}</ref> ঐ সময়ে বাস করা তেলাপোকাগুলো বর্তমানগুলো থেকে ভিন্ন আকৃতির ছিল, কারন তাদের লম্বা বহিঃ ওভিপোসিটর ছিল এবং তারা [[মেনটিস]] ও ব্লাটোডিয়ানের পূর্বপুরুষ ছিল। যেহেতু শরীর, পেছনের পাখনা এবং মুখাংশগুলো ফসিলরূপে বিভিন্ন সময়ের পাওয়া যায় নি তাই, যে ফসিগুলো পাওয়া গিয়েছিল তার সাথে আধুনিক তেলাপোকার সম্পর্ক বোঝা যায় নি বা বিষয়টি তখন বিতর্কিত ছিল। আধুনিক তেলাপোকা যাদের অভ্যন্তরিন ওভিপোজিটর রয়েছে তাদের ক্রেটাসিয়াস যুগের প্রথম দিক হতে দেখা যায়। সাম্প্রতিক একটি [[ফাইলোজেনেটিক]] বিশ্লেষনে দেখা যায় যে তেলাপোকারা কমপক্ষে [[জুরাসিক|জুরাসিক যুগ]] থেকে টিকে আছে।<ref name="Legendre_et_al_2015" />
[[File:Baltic amber inclusions - Cockroach (Pterygota, Neoptera, Dictyoptera, Blattodea).JPG|thumb|left|[[বাল্টিক এ্যাম্বার|বাল্টিক এ্যাম্বারে]] ৪০-৫০ মিলিয়ন বছর ([[ইয়োসিন]] যুগের) পুরনো তেলাপোকা]]
 
ঊনবিংশ শতাব্দিতে একটি ধারনার কারনে বিজ্ঞানীরা মনে করেছিলেন যে তেলাপোকা প্রাচীন পোকার একটি দল থেকে উৎপন্ন হয়েছে যাদের [[ডেভোনিয়ান]] উৎপত্তি রয়েছে।<ref name="Legendre_et_al_2015">{{cite journal |last1=Legendre |first1=F. |last2=Nel |first2=A. |last3=Svenson |first3=G. J. |last4=Robillard |first4=T. |last5=Pellens |first5=R. |last6=Grandcolas |first6=P. |title=Phylogeny of Dictyoptera: Dating the Origin of Cockroaches, Praying Mantises and Termites with Molecular Data and Controlled Fossil Evidence |journal=PLoS ONE |date=2015 |volume=10 |issue=7 |pages=e0130127 |doi=10.1371/journal.pone.0130127 |pmid=26200914 |pmc=4511787}}</ref> ঐ সময়ে বাস করা তেলাপোকাগুলো বর্তমানগুলো থেকে ভিন্ন আকৃতির ছিল, কারন তাদের লম্বা বহিঃ ওভিপোসিটর ছিল এবং তারা [[মেনটিস]] ও ব্লাটোডিয়ানের পূর্বপুরুষ ছিল। যেহেতু শরীর, পেছনের পাখনা এবং মুখাংশগুলো ফসিলরূপে বিভিন্ন সময়ের পাওয়া যায় নি তাই, যে ফসিগুলো পাওয়া গিয়েছিল তার সাথে আধুনিক তেলাপোকার সম্পর্ক বোঝা যায় নি বা বিষয়টি তখন বিতর্কিত ছিল। আধুনিক তেলাপোকা যাদের অভ্যন্তরিন ওভিপোজিটর রয়েছে তাদের ক্রেটাসিয়াস যুগের প্রথম দিক হতে দেখা যায়। সাম্প্রতিক একটি [[ফাইলোজেনেটিক]] বিশ্লেষনে দেখা যায় যে তেলাপোকারা কমপক্ষে [[জুরাসিক|জুরাসিক যুগ]] থেকে টিকে আছে।<ref name="Legendre_et_al_2015"/>
== বসবাস এবং বন্টন ==
সারা বিশ্বেই এদের খুজে পাওয়া যায় এবং তারা সকল পরিবেশেই বেচে থাকে বিশেষ করে উষ্ণ পরিবেশে।<ref name="Meyer">{{cite web|last1=Meyer|first1=J.|title=Blattodea|url=https://www.cals.ncsu.edu/course/ent425/library/compendium/blattodea.html|work=General Entomology|publisher=University of North Carolina|accessdate=9 November 2015}}</ref> এরা অত্যন্ত ঠান্ডা পরিবেশেও বেচে থাকতে পারে, যার ফলে এদের আর্কটিক অঞ্চলেও দেখা যায়। কিছু প্রজাতি আবার −১৮৮&nbsp;°F (−১২২&nbsp;°C) বেচে থাকতে পারে। এত নিম্ন তাপমাত্রায় বাচার জন্য তারা গ্লাইসিরল দিয়ে নিজেদের তৈরি করে।<ref name="Mohs_McGee_2007">{{cite book|last1=Mohs|first1=K.|last2=McGee|first2=I.|title=Animal planet: the most extreme bugs|year=2007|publisher=John Wiley & Sons|isbn=978-0-7879-8663-6|page=35|edition=1st}}</ref> উত্তর আমেরিকায় ৫০ প্রজাতির তেলাপোকা রয়েছে যাদের আবার ৫টি পরিবারে ভাগ করা হয়েছে যাদের পুরো মহাদেশে পাওয়া যায়।<ref name="Meyer" /> অস্ট্রেলিয়া ৪৫০ প্রজাতি রয়েছে।<ref name="assu">{{cite web|title=Cockroaches: Order Blattodea|url=http://australianmuseum.net.au/cockroaches-order-blattodea|publisher=Australian Museum|accessdate=November 10, 2015|date=January 13, 2012}}</ref> শুধুমাত্র বড় চারটি প্রজাতিকেই ক্ষতিকর হিসেবে গন্য করা হয়।
 
এরা অনেক জায়গায় বাস করে গাছের পাতায়, সবজির পাকানো কান্ডে, পচা কাঠে, কুদার গর্তে, বাকলের নিচে, কাঠের স্তুপের নিচে এবং ধ্বংসাবশেষে। কিছু প্রজাতি আবার শুষ্ক পরিবেশে বাস করে এবং জল ছাড়া বাচার পদ্ধতি অভিযোজন করে নিয়েছে। অন্যগুলো জলজ, জলের উৎস আছে এমন জায়গার কিনারে বাস করে। জলজ তেলাপোকারা খাদ্যের জন্য পানির উপরিভাগ ভেদ করে তাদের শরীরের অগ্রভাগ দিয়ে যা চোষক হিসেবে কাজ করে, কিন্তু কিছু আবার তাদের থোরাসিক ঢালের নিচে বাতাস ধরে রেখে ডুব দেয়। অন্যগুলো বনের শামিয়ানায় বাস করে সম্ভবত তারাই সেখানে বসবাস করে এমন অমেরুদন্ডি প্রানী। তারা দিনের বেলা ফোকরে, মরা পাতার নিচে, পাখি বা কীটের বাসা বা পরাশ্রয়ী উদ্ভিদে লুকিয়ে থাকে, রাতে খাদ্যের সন্ধানে বের হয়।<ref name="Bell">{{cite book|author1=Bell, William J.|author2=Roth, Louis M.|author3=Nalepa, Christine A.|title=Cockroaches: Ecology, Behavior, and Natural History|url=https://books.google.com/books?id=R7eVRP08kasC&pg=PA55|year=2007|publisher=JHU Press|isbn=978-0-8018-8616-4|pages=55–58}}</ref>
 
==তথ্য সূত্র==
{{সূত্র তালিকা}}
১,৯৬৯টি

সম্পাদনা