প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

সম্পাদনা সারাংশ নেই
আদর্শ [[আরবি ভাষা]] কুয়েতের সরকারি ভাষা। আদর্শ আরবি ভাষাটি ধ্রুপদী আরবি ভাষার একটি আধুনিকায়িত রূপ। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানে এখনও ধ্রুপদী আরবি ব্যবহৃত হয়। অন্যান্য সমস্ত আনুষ্ঠানিক কাজকর্ম, শিক্ষা ও গণমাধ্যমে আদর্শ আরবি ভাষা ব্যবহৃত হয়। কুয়েতের জনগণের প্রায় ৮৫% ভাব মৌখিক আদান-প্রদানের জন্য উপসাগরীয় আরবি ভাষা ব্যবহার করেন। এছাড়া দক্ষিণী আরবি ভাষা মেহরিতেও কিছু কুয়েতি কথা বলেন। বিদেশী ভাষা হিসেবে [[ইংরেজি ভাষা]] বহুল প্রচলিত। ইংরেজিতে বেতার-টিভির অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয়।
 
সংস্কৃতি!:কুয়েতের বেদুইন সম্প্রদায়ের নিজস্ব সংস্কৃতি রয়েছে। সাগরে মংস্য শিকার ও মরুভুমিতে ভেড়া ও উট চড়িয়ে তারা জীবিকা সংগ্রহ করতো। বর্তমানে তেলের খনি আবিষ্কারের পর তারা সমৃদ্ধশালী অর্থনীতির রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। কিন্তু তাদের পুরনো ঐতিহ্য ধরে রাখতে শীতের সময় মরুভূমিতে তাবু তৈরি করে আনন্দ ফুর্তি করে থাকে। এসব তাবুতে বাংলাদেশী শ্রমিকদের দিয়ে নিস্ঠুর অমানবিক কাজ জোর করে করাতে বাদ্ধ করায়। তাদের রান্না বান্না ও মদ ও মাগি সরবরাহের জন্য তারা বাইরের দেশের মানুষদের বাদ্ধ করায়। এরা ফিলিপাইন ও অন্যান্য গরিব দেশ থেকে সরকারী ভাবে ভালো কাজের চুক্তির মাধ্যমে নারী শ্রমিক নিয়ে এসে তাদের বাসায় রেখে দাসীর মত আচরণ করে। কুয়েতে সিগারেট খাওয়া ভাত খাওয়ার মত।ছেলে বাপের সামনে খাই। মেয়ে খাই। মা খাই। বাড়িতে যারা কাজ করে তাদের দিয়ে তারা যৌন চাহিদা মিটানো কে তারা হালাল মনে করে। একজন কুয়েতি নাগরিক সরকার থেকে গাড়ি, বাড়ি ও রেশন পেয়ে থাকে। এরা কোন কাজ করে না। সারাদিন নেশা করে আর হোটেলের খাবার খাই। বাইরের দেশের শ্রমিকদের এরা ঘৃণা করে। তবে কিছু সংখ্যক কুয়েতি খুবই ভালো।এরা সবার সাথে ব্যবহার করে। যারা তাদের দেশে কাজের জন্য যায় তাদের কে কাজের পারমিট দেওয়ার জন্য আকামা লাগাতে তাদের উপার্জনের এক ভাগ নিয়ে নেয়। আকামা লাগাতে সরকারী খরচ পাচ দিনার লাগলেও কুয়েতিরা এক হাজার দিনার নিয়ে নেয়। বিশেষ করে বাংলাদেশের প্রবাসীদের এরা বেশি নির্যাতন করে। এরা মানুষ কে মানুষ মনে করে না। এদের দেশে মানবতা বলে কোন কথা নেয়। পৃথিবীর সবচেয়ে নিকৃষ্ট মন মানষিকতা ও সংস্কৃতির এক দেশের নাম কুয়েত
== সংস্কৃতি ==
 
== আরও দেখুন ==
* [[কুয়েতের পরিবহন ব্যবস্থা]]
বেনামী ব্যবহারকারী