"শব্দ (ব্যাকরণ)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(2405:205:60A5:5290:0:0:2A04:48B0-এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে এম আবু সাঈদ-এর সম্পাদ...)
ট্যাগ: পুনর্বহাল
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
=====৫. বিদেশি শব্দ=====
বিভিন্ন সময়ে বাংলা ভাষাভাষী মানুষেরা অন্য ভাষাভাষীর মানুষের সংস্পর্শে এসে তাদের ভাষা থেকে যে সব শব্দ গ্রহণ করেছে, বাংলা ভাষার শব্দ ভান্ডারে অন্য ভাষার শব্দ গৃহীত হয়েছে, সেগুলোকে বলা হয় বিদেশি শব্দ। যে কোনো ভাষার সমৃদ্ধির জন্য বিদেশি শব্দের আত্মীকরণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর এদিক দিয়ে বাংলা ভাষা বেশ উদারও বটে।
* [[আরবি]] শব্দ : বাংলায় ব্যবহৃত আরবি শব্দসমূহকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়:—
 
*'''(১) [[আরবি]]ধর্মসংক্রান্ত শব্দ :''' আল্লাহ, ইসলাম, ঈমান, ওযু, কোরবানি, কুরআন, কিয়ামত, গোসল, জান্নাত, জাহান্নাম, তওবা, তসবি, জাকাত, হজ, হাদিস, হারাম, হালাল ইত্যাদি।
 
জান্নাত, জাহান্নাম, হওবা, হসবি, যাকাত, হজ, হাদিস, হারাম, হালাল
'''(২) প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক শব্দ:''' আদালত, আলেম, ইনসান, ঈদ, উকিল, ওজর, এজলাস, এলেম, কানুন, কলম, কিতাব, কেচ্ছা, খারিজ, গায়েব, দোয়াত, নগদ, বাকি, মহকুমা, মুন্সেফ, মোক্তার, রাযরায় ইত্যাদি।
* [[ফারসি]] শব্দ : বাংলায় ব্যবহৃত ফারসি শব্দগুলোকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়:—
* [[ফারসি]] শব্দ : খোদা, গুনাহ, দোযখ, নামায, পয়গম্বর, ফেরেশতা, বেহেশত, রোযা,
 
কারখানা, চশমা, জবানবন্দি, তারিখ, তোশক, দফতর, দরবার, দোকান,দস্তখত, দৌলত, নালিশ, বাদশাহ, বান্দা, বেগম, মেথর, রসদ
*'''(১) [[ফারসি]]ধর্মসংক্রান্ত শব্দ :''' খোদা, গুনাহ, দোযখ, নামাযনামাজ, পয়গম্বর, ফেরেশতা, বেহেশত, রোযা,রোজা ইত্যাদি।
আদমি, আমদানি, জানোয়ার, জিন্দা, নমুনা, বদমাস, রফতানি, হাঙ্গামা৷
 
* [[ইংরেজি]] শব্দ : প্রায় অপরিবর্তিত উচ্চারণে- চেয়ার, টেবিল, পেন, পেন্সিল, ইন্টারনেট, ইনপুট, আউটপুট, আপলোড, ডাউনলোড।
'''(২) প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক শব্দ:''' কারখানা, চশমা, জবানবন্দি, তারিখ, তোশক, দফতর, দরবার, দোকান, দস্তখত, দৌলত, নালিশ, বাদশাহ, বান্দা, বেগম, মেথর, রসদ ইত্যাদি।
পরিবর্তিত উচ্চারণে - আফিম (opium), ইস্কুল (school), বাক্স (box), হাসপাতাল (hospitai), বোতল (bottle), ডাক্তার (doctor), ইংরেজি (English) ইত্যাদি।
 
'''(৩) বিবিধ শব্দ:''' আদমি, আমদানি, জানোয়ার, জিন্দা, নমুনা, বদমাস, রফতানি, হাঙ্গামা৷হাঙ্গামা ইত্যাদি।
 
[[ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ]]র মতে, বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত বিদেশি শব্দগুলোর মধ্যে ফারসি শব্দই সবচেয়ে বেশি।
 
* [[ইংরেজি]] শব্দ : দুই প্রকারের পাওয়া যায়:—
 
'''(১) প্রায় অপরিবর্তিত উচ্চারণে'''- চেয়ার, টেবিল, পেন, পেন্সিল, ইউনিভার্সিটি, ইউনিয়ন, কলেজ, টিন, নভেল, নোট, নোট, পাউডার, ব্যাগ, ফুটবল, মাস্টার, লাইব্রেরী, স্কুল, ব্যাঙ্ক ইত্যাদি।
 
'''(২) পরিবর্তিত উচ্চারণে '''- আফিম (opium), ইস্কুল (school), বাক্স (box), হাসপাতাল (hospitaihospital), বোতল (bottle), ডাক্তার (doctor), ইংরেজি (English) ইত্যাদি।
* [[পর্তুগিজ]] শব্দ : আনারস, আলপিন, আলমারি, গির্জা, গুদাম, চাবি, পাউরুটি, পাদ্রি, বালতি ৷
* [[ফরাসি]] শব্দ : কার্তুজ, কুপন , ডিপো, রেস্তোরাঁ।
* [[ওলন্দাজ]] শব্দ : ইস্কাপন, টেক্কা, তুরুপ, রুইতন, হরতন (তাসের নাম) ৷
* [[গুজরাটি]] শব্দ : খদ্দর, হরতাল ৷
* পাঞ্জাবি শব্দ : চাহিদা, শিখ
* [[চীনা]] শব্দ : চা, চিনি, লুচি
* মায়ানমার/ বর্মি শব্দ : ফুঙ্গি, লুঙ্গি
* [[জাপানি]] শব্দ : রিক্সা, হারিকিরি ৷
* [[হিন্দী]] শব্দ : চিঠি, ঠিকানা, পানি ইত্যাদি।
* মিশ্র শব্দ:
এছাড়াও আরেকটি বিশেষ ধরনের শব্দ আছে। দুইটি ভিন্ন ধরনের শব্দ সমাসবদ্ধ হয়ে বা অন্য কোনো উপায়ে একত্রিত হলে ঐ নতুন শব্দটিকে বলা হয় মিশ্র শব্দ। এক্ষেত্রে যে দুইটি শব্দ মিলিত হলো, তাদের শ্রেণীবিভাগ চিনতে পারাটা খুব জরুরি। যেমনঃ
<br />রাজা-বাদশা (তৎসম+ফারসি),<br />হাট-বাজার (বাংলা+ফারসি), <br />হেড-মৌলভী (ইংরেজি+ফারসি),<br />হেড-পন্ডিত (ইংরেজি+তৎসম),<br />খ্রিস্টাব্দ (ইংরেজি+তৎসম),<br />ডাক্তারখানা (ইংরেজি+ফারসি),<br />পকেট-মার (ইংরেজি+বাংলা)।
রাজা-বাদশা (তৎসম+ফারসি),
হাট-বাজার (বাংলা+ফারসি),
হেড-মৌলভী (ইংরেজি+ফারসি),
হেড-পন্ডিত (ইংরেজি+তৎসম),
খ্রিস্টাব্দ (ইংরেজি+তৎসম),
ডাক্তারখানা (ইংরেজি+ফারসি),
পকেট-মার (ইংরেজি+বাংলা)।
 
===গঠন অনুসারে শ্রেণিবিভাগ===