"কার্ল ভিলহেল্ম শেলে" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎মৃত্যু: সংশোধন
(এই সম্পাদনা পরিবর্তনযোগ্য।)
 
(→‎মৃত্যু: সংশোধন)
১৭৮৫ সালের শুরুর দিকে, তার কীডনি রোগের উপসর্গ ধরা পড়ে। ১৭৮৬ সালের প্রথম দিকে, তার এক ধরনের স্কিন ডিজিজ হয়, যা কিডনি সমস্যাগুলির সাথে যুক্ত হয়ে তার মৃত্যু ত্বরান্বিত করে। এই কথা মাথায় রেখেই মৃত্যুর দুইদিন আগে তিনি এক বিধবা নারী "পোল" এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হনে; যাতেকরে তিনি তার সম্পত্তি তার কাছে দিতে পারেন।
 
যদিও শিলে এর গবেষণায় উদ্ভূত বস্তুগুলি দীর্ঘসময় ধরে বিপজ্জনক বলে প্রমাণিত হয়েছে, তবে যৌগিক এবং উপাদানগুলি সেগুলি ব্যবহার শুরু করে, বিশেষ করে ভারী ধাতু দিয়ে শুরু করার জন্য বিপজ্জনক। তার সমসাময়িক অধিকাংশের মতোই, এমন এক যুগে যেখানে রাসায়নিক চরিত্রগতের কয়েকটি পদ্ধতি ছিল। শেলি যে নতুন পদার্থ আবিষ্কার করতেন, সেটির গন্ধ ও স্বাদ নেওয়ার জন্য তিনি নিজেই সেটি খেয়ে ফেলতেন। ১৭৮৬ সালের ২১শে মে ক্যাপিংয়ে তার বাড়িতে তার আবিষ্কৃত আর্সেনিক, পারদ, সীসা, তার যৌগ এবং সম্ভবত হাইড্রফুলোয়িকহাইড্রোলিক এসিডের সংমিশ্রিত এক্সপোজার এবং অন্যান্য পদার্থগুলির কারনে ৪৩ বছর বয়সে এই মহামতি মারা যান। পরবর্তিতে ডাক্তাররা জানিয়েছিলেন যে, তিনি পারদের বিষাক্ততায় মারা গেছেন।
 
== সোর্সঃ ==
২টি

সম্পাদনা