"মৈতৈ মণিপুরী ভাষা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বিষয়বস্তু যোগ
(হটক্যাটের মাধ্যমে বিষয়শ্রেণী:ভারতের ভাষা যোগ)
(বিষয়বস্তু যোগ)
|url=http://www.languageinindia.com/may2013/rebikameitheiendangeredfinal.pdf
|journal=Language in India |volume=13 |issue=5 |pages=520–533}}</ref>
 
== ব্যুৎপত্তি ==
মৈতৈয়ের অনেক স্থানীয় ভাষাভাষীরা "মণিপুরী" নামটি থেকে "মৈতৈ" (বা "মৈতৈলোন্") নামটি বেশি পছন্দ করেন।
"মৈতৈলোন" শব্দটি মৈতৈ জাতির নাম এবং মৈতৈ শব্দ "লোন্‌" ''ভাষা'' থেকে এসেছে।
মৈতৈ শব্দটি হয়ত "মি" ''মানুষ'' + "থৈ" ''আলাদা; স্বতন্ত্র'' শব্দ দুটি থেকে এসেছে।
পশ্চিমি ভাষাবিদরাও "মৈতৈ" নামটি ব্যবহার করেন।<ref name="Chelliah 1997: 2">Chelliah (1997: 2)</ref>
 
আবার রাজ্যের নাম "মণিপুর" থেকেও এর নাম "মণিপুরী" বলা হয়।<ref name="Chelliah 1997: 2"/>
"মণিপুর" শব্দটির একটি পৌরাণিক [[লোক ব্যুৎপত্তিতত্ত্ব|লোক-ব্যুৎপত্তি]] আছে, যেখানে বলা হয় নাগদেবতা বাসুকির মাথা থেকে একটি উজ্জ্বল হীরক "মণি" নিক্ষিপ্ত করা হয় এবং যার ফলে সারা পৃথিবীতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ছড়িয়ে দেয়।<ref name="Chelliah 1997: 2"/>
ভারতের সরকারী ক্ষেত্রে এবং সরকারী প্রতিষ্ঠানে ভাষার নামটি "মণিপুরী" হিসাবে ব্যবহার করা হয়।
কখনও "মণিপুরী" শব্দটি [[বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী ভাষা]] এবং বিষ্ণুপ্রিয়া জাতির ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয়।
এছাড়াও "মণিপুরী" শব্দটি মণিপুর রাজ্য সম্বন্ধীয় যে কোন বিষয় ব্যবহার করা হয়।
 
== তথ্যসূত্র ==
{{বাংলাদেশের ভাষাসমূহ}}
{{ভারতের ভাষাসমূহ}}
 
{{Authority control}}
 
[[বিষয়শ্রেণী:ভাষা]]