"জগদীশ চন্দ্র বসু স্মৃতি জাদুঘর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

উদ্ধৃতি টেমপ্লেটের তারিখ সংশোধন
(বিষয়শ্রেণী:ঢাকা বিভাগের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা অপসারণ; [[বিষয়শ্রেণী:মুন্সিগঞ্জ জেলার প্...)
(উদ্ধৃতি টেমপ্লেটের তারিখ সংশোধন)
| designation5_number =
}}
'''স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর বাড়ি''' [[মুন্সিগঞ্জ জেলা]]র [[শ্রীনগর উপজেলা]]য় অবস্থিত বাংলাদেশের অন্যতম একটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন। এটি প্রখ্যাত বাঙালি উদ্ভিদবিজ্ঞানী স্যার [[জগদীশ চন্দ্র বসু]]র পৈতৃক বাড়ি। এটি শ্রীনগর উপজেলার রাঢ়ীখাল গ্রামে অবস্থিত। ঢাকা থেকে এর দুরুত্ব প্রায় ৩৫ কিলোমিটার।<ref name="ঘুরে আসুন">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|url=http://www.banglanews24.com/index.php/tourism/news/465783/%E0%A6%98%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%86%E0%A6%B8%E0%A7%81%E0%A6%A8-%E0%A6%9C%E0%A6%97%E0%A6%A6%E0%A7%80%E0%A6%B6-%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A7%9C%E0%A6%BF |title=ঘুরে আসুন জগদীশ চন্দ্রের বাড়ি |newspaper=[[বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম]] |date=১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ |accessdate=৯ অক্টোবর ২০১৬}}</ref>
 
== ইতিহাস ==
[[File:Sir Jagadish Charndra Basur Bari (Front Gate) (Photographed by MdIHT).jpg|thumb|স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর বাড়ির প্রধান ফটক]]
স্যার [[জগদীশ চন্দ্র বসু]] প্রথম সফল বাঙালি বিজ্ঞানী যিনি উদ্ভিদের যে প্রাণ আছে তা আবিস্কার করেন। এছাড়া তিনি বেতার যন্ত্র আবিস্কারের স্বপ্নদ্রষ্টা।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|url=http://www.bd-pratidin.com/various/2013/11/26/28679 |title=জগদীশ চন্দ্র বসু |newspaper=[[বাংলাদেশ প্রতিদিন]] |date=২৬ নভেম্বর, ২০১৩ |accessdate=৯ অক্টোবর ২০১৬}}</ref> তার পৈতৃক বাড়িটির ত্রিশ একর জায়গায় জগদীশ চন্দ্র বসু কলেজ ও কমপ্লেক্স নির্মিত হয়েছে।<ref name="ঘুরে আসুন"/> তার জীবিত অবস্থায় তিনি তার সম্পত্তি দান করে যান। সেখানে ১৯২১ সালে সুরুজ বালা সাহা বিদ্যালয় ও পরে ১৯৯১ সালে জগদীশ চন্দ্র বসু ইনস্টিটিউশন ও কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়।<ref name="সংস্কারের অভাবে">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|url=http://www.dailysangram.com/post/103526-%E0%A6%B8%E0%A6%82%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%85%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A7%87-%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%9A%E0%A7%8D%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%9C%E0%A6%97%E0%A6%A6%E0%A7%80%E0%A6%B6-%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A6%B8%E0%A7%81-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A7%83%E0%A6%A4%E0%A6%BF-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%98%E0%A6%B0 |title=সংস্কারের অভাবে হারিয়েছে যাচ্ছে স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু স্মৃতি জাদুঘর |newspaper=[[দৈনিক সংগ্রাম]] |date= |accessdate=৯ অক্টোবর ২০১৬}}</ref> ২০১১ সালে জগদীশ চন্দ্র বসু কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে, যা চলে জগদীশ চন্দ্র বসু ইনস্টিটিউশনের উদ্যোগে। কমপ্লেক্সে নির্মিত হয়েছে জগদীশ চন্দ্র বসু স্মৃতি জাদুঘর, পশু-পাখির ম্যুরাল, কৃত্রিম পাহাড়-ঝরনা ও সিঁড়ি বাধানো পুকুর ঘাট। জাদুঘরে জগদীশ চন্দ্র বসুর পোট্রেট, গবেষণাপত্র, হাতে লেখা পান্ডুলিপি, [[রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর|রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের]] নোবেল প্রাপ্তিতে তাকে লেখা চিঠি ও রবীন্দ্রনাথের বসুকে লেখা চিঠি, তেল রং দিয়ে অাঁকা ১৭টি দুর্লভ ছবি, রয়্যাল সোসাইটিতে দেওয়া বক্তৃতার কপি এবং নানা দুর্লভ জিনিস রয়েছে।<ref name="ঘুরে আসুন"/><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|url=http://bonikbarta.com/news/2015-01-02/24180/%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%9C%E0%A6%97%E0%A6%A6%E0%A7%80%E0%A6%B6-%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A6%B8%E0%A7%81-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%98%E0%A6%B0--/ |title=জগদীশ চন্দ্র বসু স্মৃতি জাদুঘর |newspaper=বণিক বার্তা |date=জানুয়ারি ২, ২০১৫ |accessdate=৯ অক্টোবর ২০১৬}}</ref>
 
== অবকাঠামো ==
৩,৭৮,২২৪টি

সম্পাদনা