"সৌদি আরব" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
[[চিত্র:সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ.jpg|বাম|থাম্ব|সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান]]
{{উইকিউপাত্ত স্থানাঙ্ক}}
{{Infobox Country
== রাজনীতি ==
রাষ্ট্র রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে শাসিত হয়।<ref name=Cavendish78>{{বই উদ্ধৃতি |title=World and Its Peoples: the Arabian Peninsula |last=Cavendish |first=Marshall |year=2007 |isbn=978-0-7614-7571-2 |page=78}}</ref> তাই রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড বা নির্বাচনের ব্যবস্থা নেই। ১৯৯২ সালে রাজকীয় ফরমানের মাধ্যমে চালু করা মৌলিক আইন অনুযায়ী বাদশাহকে অবশ্যই [[শরিয়া]]র প্রয়োগ করতে হবে এবং এতে কুরআন ও সুন্নাহকে রাষ্ট্রের সংবিধান হিসেবে গ্রহণ করা হয়।<ref name= Gerhard>{{বই উদ্ধৃতি |title=Encyclopedia of world constitutions, Volume 1 |last=Robbers |first=Gerhard |year=2007 |isbn=0-8160-6078-9 |page=791}}</ref> সংবিধান হিসেবে কোরআানকে গ্রহন করা হলেও এখানে [[রাজতন্ত্র]]ই বিদ্যমান। প্রথা অনুযায়ী ঐতিহ্যবাহী গোত্রীয় সম্মেলন মজলিসে প্রাপ্ত বয়স্ক যেকোনো ব্যক্তি বাদশাহর কাছে আবেদন করতে পারে।<ref name=Cavendish92>{{বই উদ্ধৃতি |title=World and Its Peoples: the Arabian Peninsula |last=Cavendish |first=Marshall |year=2007 |isbn=978-0-7614-7571-2 |pages=92–93}}</ref>
 
== জীবনযাত্রা ==
সৌদি নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান খুবই উন্নত।নাগরিকদের সব সুযোগ সুবিধা সরকার থেকেই দেওয়া হয়।সৌদির ৮০.৫% লোক শিক্ষিত।সৌদি নাগরিকেরা অত্যন্ত বিলাসবহুল জীবনযাপন করেন।২০১৮ তে সৌদি ফুটবল টিম রাশিয়ায় ফিফা বিশ্বকাপে যোগ দেবে।সৌদি আরবে অপরাধের হার প্রায় শূণ্য।সকল অপরাধের শাস্তি ইসলামী শরিয়ত অনুযায়ী দেওা হয়।চুরির শাস্তি হিসেবে দুই হাত কব্জি পর্যন্ত কেটে দেওয়া হয়।
 
== প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ ==
 
== অর্থনীতি ==
সৌদি আরব এর মূল অর্থনীতি পেট্রোলিয়াম ভিত্তিক; বাজেটে রাজস্ব মোটামুটি ৭৫% এবং রপ্তানি আয়ের ৯০% তেল শিল্প থেকে আসে।আসে।সৌদি আরবে সমগ্র বিশ্বের ভূ-ভাগের ২০% খনিজ তেলের মজুদ রয়েছে।পরিমাণে এটা ২৬ হাজার কোটি ব্যারেল।তেল ছাড়াও গ্যাস ও স্বর্ণ খনি।জিএনপি অনুসারে সৌদি আরব বিশ্বের শীর্ষ ধনী দেশের একটি।
 
== সাম্প্রতিক পরিবর্তন ==
যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের উদ্যোগে যে পরিবর্তনগুলো এসেছে তা হলোঃ
 
১।নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া
 
২।নারীদের সেনাবাহিনীতে যোগদান
 
৩।নারীদের আবায়া পরার বাধ্যবাধক্তা তুলে ফেলা
 
৪।সিনেমা চালু করা
 
৫।রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন নীতি সংস্কারকরা ইত্যাদি।
 
== পোশাক ==
সৌদি নারীরা আবায়া,বোরকা,হিজাব ও অন্যান্য শালীন পোশাক পরেন।পুরুষেরা আলখাল্লা,জুব্বা,গুত্রা (মাথায় পরার আরব্য পোশাক),টুপি পরিধান করেন।সকল প্রকার অশালীন পোশাক সৌদি আরবে নিষিদ্ধ।
 
== সংস্কৃতি==
৬৭টি

সম্পাদনা