"শিশু নির্যাতন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

 
কমিউনিষ্ট যুগের সমাপ্তির পরে, অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন আসে। বাবা-মায়ের কর্তব্য পালনের ধারায় অনেক খোলাখুলি আর মেনে নেয়ার ব্যাপার যোগ হয় এবং শিশুদের সাথে বন্ধন দৃঢ় হয়, শিশু নির্যাতন তখনও ছিল একটি মারাত্মক চিন্তার বিষয় হিসেবে। যদিও এটি এখন সহজেই চিহ্নিত করা যায় তবুও এটি পুরোপুরি কখনোই বন্ধ হয়নি। পিতা-মাতার নিয়ন্ত্রনমূলক মনোভাব, অর্থ কষ্ট, বেকারত্ব লাঘব হলেও নেশাজাতীয় দ্রব্যে ব্যবহার ফলত নির্যাতন এখনও পূর্ব ইউরোপে শিশু নির্যাতনের ক্ষেত্রে একটি বড় উপাদান।<ref name="Sebre, S. 2004" />
 
একটি গবেষনা চালানো হয় যাতে বাল্টিক, পূর্ব ইউরোপের দেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞরা ছিলেন তারা [[লাটভিয়া]], [[লিথুনিয়া]], [[মেসিডোনিয়া]] এবং [[মালডোবা]] ইত্যাদি দেশে শিশু নির্যাতনের কারন পর্যালোচনা করেন। এ দেশগুলোতে যথাক্রমে ৩৩%, ৪২%, ১৮% এবং ৪৩% শিশু কমপক্ষে একটি শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে।<ref>{{cite journal |authors=Sebre S, Sprugevica I, Novotni A, Bonevski D, Pakalniskiene V, Popescu D, Turchina T, Friedrich W, Lewis O |title=Cross-cultural comparisons of শিশু-reported emotional এবং শারীরিক নির্যাতন: Rates, risk factors এবং [[psychoসামাজিক]] উপসর্গ |journal=শিশু নির্যাতন & অবহেলা, the International Journal |volume=28 |issue=1 |pages=113–127 |year=2004 |pmid=15019442 |doi=10.1016/j.chiabu.2003.06.004}}</ref> তাদের পাওয়া ফলাফলের মতে, বাবা-মায়ের চাকুরি করা বা বেকার থাকা, মদ্যপান, পারিবারিক আকার ইত্যাদির সাথে শিশু নির্যাতনের সম্পর্ক রয়েছে।<ref name="Sebre, S. 2004" /> চারটি দেশের মধ্যে তিনটি দেশেই বাবা-মায়ের বস্তুগত নির্যাতনের সাথে শিশু নির্যাতনের সম্পর্ক পাওয়া গেছে এবং যদিও খুব কম হার দেখাচ্ছে তবুও এটি চতুর্থ দেশেও পাওয়া গেছে।<ref name="Sebre, S. 2004" /> Each country also showed a connection between the father not working outside of the home এবং either emotional or শারীরিক শিশু নির্যাতন.<ref name="Sebre, S. 2004" />
 
সাংস্কৃতিক এই পার্থক্য অনেক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে পর্যালোচনা করা যায়। বেশি গুরুত্বপূর্ন হল সবদেশেই বাবা-মায়ের আচরণ একেক রকম। একটি সংস্কৃতিতে একটি আচরণ একেকভাবে গ্রহণ করা হয় এবং হয়ত অন্য সংস্কৃতিতে তা অগ্রহণযোগ্য। এক দেশে হয়ত যেটা স্বাভাবিক অন্য দেশে তা নির্যাতন বলে ধরা হয় এসবই ঐ দেশের সামাজিক রীতিনীতি।<ref name="Sebre, S. 2004" />
 
[[এশিয়া]]র বাবা-মায়ের দৃষ্টিভঙ্গি বিশেষত আদর্শগত দৃষ্টিভঙ্গি আমেরিকানদের থেকে আলাদা। অনেকেই তাদের ঐতিহ্যগত সংস্কৃতিতে [[মানব শরীর|শারীরিক]] এবং আবেগের নৈকট্যকে জীবনভর বন্ধনের সিড়ি বলে মানেন আবার শিশুর প্রতি বাবা-মায়ের কতৃত্বপূর্ন আচরণ প্রতিষ্ঠা এবং শিশুকে নিয়মানুবর্তীতা শেখাতে শক্ত নিয়মকানুন মেনে চলার ঐতিহ্যগত রীতিনীতেতে জোর দেন।<ref name="Lau, A. S. 2006">Lau, A. S., Takeuchi, D. T., & Alegría, M. (2006). Parent-to-শিশু aggression among Asian American parents: Culture, context, এবং vulnerability. ''Journal of Marriage এবং Family'', 68(5), 1261–1275. Retrieved</ref> বাবা-মায়ের দ্বায়িত্বের পাশাপাশি নিয়মানুবর্তীতা শেখানোর প্রথা এশিয়ান সংস্কৃতিতে অতি সাধারণ যেমন চীন, ভারত, সিংগাপুর, ভিয়েতনাম এবং কোরিয়া।<ref name="Lau, A. S. 2006" /> কিছু সংস্কৃতিতে, জোর করে বাবা-মায়ের কতৃত্ব করাকে শিশু নির্যাতন হিসেবে দেখা হয় কিন্তু অন্য সংস্কৃতিতে যেমন এশিয়ারগুলোয় এটিকে বাবা মায়ের সন্তানের প্রতি মনোযোগ হিসেবে দেখা হয়।<ref name="Lau, A. S. 2006" />
 
সংস্কৃতিতে এমন ভিন্নতার কারনে শিশু নির্যাতন যখন গবেষনা করা হয় তখন এসব বিষয় বিবেচনা করা গুরুত্বপূর্ন।
 
২০০৬ সালের হিসাব মোতাবেক, কঙ্গোর কিনশাসাতে ২৫০০০ থেকে ৫০০০০ হাজার শিশুকে ডাইনি শিশু হিসেবে আখ্যা দেয়া হয়েছে এবং তাদের বর্জন করা হয়েছে।<ref>Dowden, Richard (12 February 2006). [https://www.theguardian.com/world/2006/feb/12/theobserver.worldnews11 "Thousএবংs of শিশু 'witches' turned on to the streets to starve"] {{webarchive|url=https://web.archive.org/web/20161115052631/https://www.theguardian.com/world/2006/feb/12/theobserver.worldnews11 |date=15 November 2016 }}. ''[[The Observer]]'' (London).</ref> মালাউইতে শিশুদেরকে ডাইনী আখ্যা দেয়া স্বাভাবিক ব্যাপার এবং অনেক শিশুকে বর্জন করা হয়, নির্যাতন করা হয় এবং শেষতক হত্যারও নজির আছে।<ref>Byrne, Carrie (16 June 2011). [http://www.consultancyafrica.com/index.php?option=com_content&view=article&id=783:hunting-the-vulnerable-witchcraft-এবং-the-law-in-malawi&catid=91:rights-in-focus&Itemid=296 "Hunting the vulnerable: Witchcraft এবং the law in Malawi"] {{webarchive|url=https://web.archive.org/web/20120329233740/http://www.consultancyafrica.com/index.php?option=com_content&view=article&id=783:hunting-the-vulnerable-witchcraft-এবং-the-law-in-malawi&catid=91:rights-in-focus&Itemid=296 |date=29 March 2012 }}. Consultancy Africa Intelligence.</ref> নাইজেরিয়ায় আকওয়া ইবোম স্টেট এবং ক্রস রিভার স্টেটে প্রায় ১৫০০০ শিশুকে ডাইনী আখ্যায়িত করা হয়।<ref>[http://www.cnn.com/2009/WORLD/africa/05/18/nigeria.শিশু.witchcraft/index.html "নির্যাতন of শিশু 'witches' on rise, aid group says"] {{webarchive|url=https://web.archive.org/web/20121106012011/http://www.cnn.com/2009/WORLD/africa/05/18/nigeria.শিশু.witchcraft/index.html |date=6 November 2012 }}. CNN. 18 May 2009.</ref>
 
২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে, দক্ষিন কোরিয়ায় জনসাধারনের প্রচার থেকে দেখা যায় শিশু নির্যাতন প্রায় ১৩% বেড়েছে গত বছরের তুলনায় এবং ৭৫% শিশুর বাবা-মা'ই হল আক্রমণকারী।<ref>{{Cite news|url=http://www.ytn.co.kr/_ln/0103_201603160622133266|title=지난해 아동학대 17% 증가...가해자 75% 친부모|last=YTN|date=2016-03-16|work=|access-date=|via=|deadurl=no|archiveurl=https://web.archive.org/web/20160405202227/http://www.ytn.co.kr/_ln/0103_201603160622133266|archivedate=5 April 2016|df=dmy-all}}</ref>
 
== উন্মোচন এবং পরীক্ষা ==
[[File:Winking Christina by kirbyslover.jpg|thumb|নির্যাতন প্রকাশ করার কাজে অনেক সময় পুতুলের সাহার্য নেয়া হয়।]]
Suspicion forযে শিশু এখনো স্বাধীনভাবে চলাচল করতে পারে না তার ক্ষেত্রে যখন কোন আঘাত হয় (কোন অস্বাভাবিক জায়গায় বা একের অধিক আঘাত যা এখনো শুকায়নি এমন উপসর্গ) তাহলে তাকে শারীরিক নির্যাতন বলে সন্দেহের যথেষ্ট কারন রয়েছে<ref>{{cite journal|last1=Christian|first1=C. W.|title=The Evaluation of Suspected শিশু শারীরিক নির্যাতন|journal=Pediatrics|date=27 April 2015|volume=135|issue=5|pages=e1337–e1354|doi=10.1542/peds.2015-0356}}</ref>
 
অনেক আইনেই, নির্যাতন যাকে সন্দেহ করা হচ্ছে কিন্তু প্রমাণ করা হয়নি এমন ঘটনাকে শিশু নিরাপত্তা সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে জানানো হয যেমন যুক্তরাষ্ট্রের [[শিশু নিরাপত্তা সেবা]], তার স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের (প্রাথমিক যত্ন প্রদানকারী এবং নার্স) সুপারিশ করে থাকে তারা যেন নির্যাতনের প্রাথমিক লক্ষণ প্রকাশ পেলে শিশুটিকে যেন তাৎক্ষনিক নিরাপত্তার দেয়া হয়। সন্দেহউদ্রেককারী নির্যাতনকারীর থেকে আলাদা কোন পরিবেশে নির্যাতিতকে সরানো হয় যাতে তার সাথে সাক্ষাৎকার ও পরীক্ষা করা যায়। যেসব গল্প মূল ঘটনার সাথে যুক্ত নয় তা এড়িয়া যাওয়া হয়। যেহেতু নির্যাতনের বর্ণনা মানসিক চাপের হতে পারে কখনো কখনো লজ্জাজনক। নির্যাতিত শিশুকে বারবার প্রেষনা দিতে হয় যে সে ঠিক কাজটিই করছে, সে খারাপ নয়, সে কোন খারাপ কাজ করে নি এবং নির্যাতনটি অবশ্যই তাদের দোষে ঘটে নি। পুতুলের সাহায্যে শিশুরা অনেক সময় কি ঘটেছে তা বর্ণনা করে থাকে। সন্দেহউদ্রেককারী নির্যাতনকারীর বেলায় সুপারিশ করা হয় কোন অপরিপক্ক সিদ্ধান্ত না নিতে, হুমকি না দেখাতে এবং নিজেরা কতটা বিস্মিত বা খারাপ বোধ করছে তা প্রকাশ না করতে যাতে করে তার কাছ থেকে তথ্য আদায় করা যায়।<ref>Wilson, S.F.W, Giddens, J.F.G. (2009) Health Assessment for Nursing Practice. St.Louis: Mosby Elsevier, page 506.</ref>
 
== মূল্যবধারন ==
 
=== শিশু পাচার ===
১,৯৮১টি

সম্পাদনা