প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

 
==হুমকি ও সাংবাদিক হত্যা==
২০০৫ সালের ১৭ নভেম্বর পত্রিকাটির [[ফরিদপুর জেলা|ফরিদপুরের]] নিজস্ব প্রতিবেদক ও ফরিদপুর ব্যুরো কার্যালয়ের প্রধান সাংবাদিক গৌতম দাসকে হত্যা করা হয়। মামলা সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুর শহরের মুজিব সড়কের সংস্কার এবং পুনর্নির্মাণের অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ পরিবেশন করায় সাংবাদিক গৌতম দাসের ওপর ক্ষুদ্ধ হয় ততকালীন [[বিএনপি|২০০৬ সালের ক্ষমতাসীন সরকারের]] মদদপুষ্ঠ ঠিকাদার গোষ্ঠী ও তাদের সহযোগী চক্র। এর জের ধরে তাকে খুন করা হয়। হত্যাকাণ্ডের দীর্ঘ ৮ বছর পর ২০১৩ সালের ২৭ জুন এ মামলায় নয়জনের যাবজ্জীবনের রায় দেন আদালত।
 
২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি শাহাজাদপুর পৌর আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ভিপি রহিমের সমর্থকরা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর মেয়র হালিমুল হক মিরুর বাড়ি ঘেরাও করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় ব্যক্তিগত শর্টগান নিয়ে গুলি ছুড়তে ছুড়তে বিপরীত পক্ষকে ধাওয়া করে মেয়র ও তার ভাই। সেই মুহূর্তে সংবাদ সংগ্রহে দায়িত্বরত সমকালের সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি সাংবাদিক আবদুল হাকিম শিমুল গুলিবিদ্ধ হন। ৩ ফেব্রুয়ারি বগুড়া হাসপাতাল থেকে ঢাকা আনার পথে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। বর্তমানে মামলা চলমান রয়েছে।
 
১৫টি

সম্পাদনা