"বেশান্তর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
 
হিন্দু পুরাণে বেশান্তর একটি পরিচিত ঘটনা। [[রামায়ণ|রামায়ণে]] উত্তরকাণ্ডে রাজা ইলার কাহিনিতে ভগবান [[শিব]]কে নারীবেশে পার্বতীর সাথে জলকেলি করতে দেখা যায়। [[সমুদ্র মন্থন|সমুদ্র মন্থনে]] [[বিষ্ণু]] অসুরদের লক্ষ্যচ্যুত করতে "মোহিনী" নামে নারীর রূপ ধারণ করেন। সেটাকেও বেশান্তরের রূপভেদ বলা যেতে পারে। [[মহাভারত|মহাভারতে]] অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বেশান্তর-সম্বন্ধীয়। বিরাটপর্বে অজ্ঞাতবাসে থাকাকালীন [[অর্জুন]] প্রায় এক বছর "[[বৃহন্নলা]]" নামে নর্তকী নারীর ছদ্মবেশ ধরে মৎস্যরাজ্যে যাপন করেছিলেন (বর্তমানে ''বৃহন্নলা'' শব্দটি রূপান্তরকামী অর্থে ব্যবহৃত হয়)। রাজা দ্রুপদের কন্যা [[শিখণ্ডী]] পুরুষ সেজে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করতেন। আবার মৌষলপর্বে যাদবরা কৃষ্ণপুত্র [[শাম্ব]]কে জোরপূর্বক গর্ভবতী নারী সাজিয়ে বিদ্রূপ করেছিল।
 
গ্রিক পুরাণে ওম্ফ্যালি হেরাক্লিসকে স্ত্রীবেশে দাসী হিসেবে জীবন অতিবাহিত করার শাস্তি দিয়েছিলেন। ট্রোজান যুদ্ধ থেকে বাঁচতে অ্যাকিলিস নারীর ছদ্মবেশ ধারণ করেছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে ইউরোপে মহিলারা ছেলেদের পোশাক পরার অনুমতি পেতেন না। তবে ইতিহাসে প্রতাপশালী নারীযোদ্ধাদের বেশান্তর করতে দেখা যায়। যেমন, ফ্রান্সের 'জোয়ান অফ আর্ক', ভারতের ঝাঁসির রানি [[লক্ষ্মীবাঈ]]।
 
ভারতীয় থিয়েটার ও চলচ্চিত্রের ইতিহাসে বেশান্তরের অনেক উদাহরণ আছে। তৎকালীন সমাজে মেয়েদের অভিনয় করা প্রথা-বিরুদ্ধ ছিল বলে, নারীচরিত্রে পুরুষদেরই অভিনয় করতে হত। ১৯১৩ সালে নির্মিত প্রথম ভারতীয় ছবি "রাজা হরিশ্চন্দ্র"-তে হরিশ্চন্দ্রের স্ত্রী তারাদেবীর ভূমিকায় অভিনয় করেন আন্না সালুঙ্কে নামে এক মরাঠি যুবক। বাংলা থিয়েটারেও অনুরূপ দৃষ্টান্তের অভাব নেই। শোনা যায়, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দাদা [[জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর]] মেয়ে সেজে নারী-চরিত্রাভিনয়ে পারদর্শী ছিলেন। [[মাইকেল মধুসূদন দত্ত|মাইকেল মধুসূদন দত্তের]] কৃষ্ণকুমারী নাটকে জ্যোতিরিন্দ্রনাথ অহল্যাদেবী নামে এক সাহসী রানির ভূমিকায় অভিনয় করেন।
১,২১৩টি

সম্পাদনা