"চোল সাম্রাজ্য" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বানান ঠিক করা হয়েছে
(টেমপ্লেটে সংশোধন)
(বানান ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
'''চোল রাজবংশ''' ([[তামিল ভাষা|তামিল]]: சோழர் குலம்; {{IPA2|ˈt͡ʃoːɻə}}) ছিল একটি [[তামিল জাতি|তামিল]] রাজবংশ। দক্ষিণ ভারতের কোনো কোনো অঞ্চলে এই সাম্রাজ্যই ছিল সর্বাপেক্ষা দীর্ঘকালীন সাম্রাজ্য। চোল রাজবংশের প্রথম নথিভুক্ত উল্লেখ পাওয়া যায় খ্রিষ্টপূর্ব তৃতীয় শতাব্দীতে লিখিত [[মহামতি অশোক|সম্রাট অশোকের]] শিলালিপিতে। বিভিন্ন অঞ্চলে এই রাজবংশের শাসন খ্রিষ্টীয় ত্রয়োদশ শতাব্দী পর্যন্ত স্থায়ী হয়েছিল।
 
চোল রাজ্যের মূল কেন্দ্র ছিল [[কাবেরী নদী|কাবেরী নদীর]] উর্বর উপত্যকা। কিন্তু খ্রিষ্টীয় নবম শতাব্দীর মধ্যভাগ থেকে খ্রিষ্টীয় ত্রয়োদশ শতাব্দীর প্রথম ভাগ পর্যন্ত স্থায়ী চোল সাম্রাজ্যের স্বর্ণযুগে এই সাম্রাজ্য আরও বড়ো অঞ্চলে প্রসারিত হয়েছিল।<ref name=sastri>[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 5</ref> দুই শতাব্দীরও অধিক সময় [[তুঙ্গভদ্রা]] নদীর দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত দাক্ষিণাত্যের সকল অঞ্চল এই সাম্রাজ্যের অধীনে এসে ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল।<ref name="sastri5">[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 157</ref> [[প্রথম রাজরাজ চোল]] ও তাঁর পুত্র [[প্রথম রাজেন্দ্র চোল|প্রথম রাজেন্দ্র চোলের]] শাসনকালে চোল সাম্রাজ্য [[দক্ষিণ এশিয়া]] ও [[দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া|দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার]] অন্যতম প্রধান সামরিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক শক্তিতে পরিণত হয়।<ref name=kulke115/><ref name=keay215>Keay, p 215</ref> সম্রাট [[প্রথম রাজেন্দ্র চোল]] গঙ্গাতীরবর্তী অঞ্চলগুলি অধিকার করার উদ্দেশ্যে সৈন্য অভিযান প্রেরণ করলে, পূর্বভারতের কিয়দংশ চোল সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত হয়। এছাড়াও রাজেন্দ্র চোল এক প্রবল নৌযুদ্ধের পর [[শ্রীবিজয়|শ্রীবিজয়ের]] সামুদ্রিক সাম্রাজ্য উৎখাত সাধন করেন এবং একাধিকবার চীনা আক্রমণ প্রতিহত করেন।<ref name="sastri158">[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 158</ref> ১০১০-১২০০ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যবর্তী সময়ে দক্ষিণে [[মালদ্বীপ]] থেকে উত্তরে বর্তমান [[অন্ধ্রপ্রদেশ]] রাজ্যের [[গোদাবরী নদী]] অববাহিকা পর্যন্ত চোল সাম্রাজ্য বিস্তৃত ছিল।<ref name=majumdar407>Majumdar, p 407</ref> রাজরাজ চোল উপদ্বীপীয় [[দক্ষিণ ভারত]] জয় করেন, বর্তমান [[শ্রীলঙ্কা]] ভূখণ্ডের কিছু অংশ অধিকার করেন এবং মালদ্বীপ দ্বীপপুঞ্জ নিজ অধিকারে আনেন।<ref name=keay215/> প্রথম রাজেন্দ্র চোল উত্তর ভারতে সেনা অভিযান প্রেরণ করেন। তিনি [[পাটলিপুত্র|পাটলিপুত্রের]] [[পাল সাম্রাজ্য|পাল সম্রাট]] [[মহীপাল|মহীপালকে]] পরাজিত করে গঙ্গা নদীর অববাহিকা পর্যন্ত পালচোল সাম্রাজ্য প্রসারিত করেন। এছাড়া [[মালয় দ্বীপপুঞ্জ|মালয় দ্বীপপুঞ্জের]] রাজ্যগুলির বিরুদ্ধেও তিনি সফলভাবে যুদ্ধে অবতীর্ণ হন।<ref name="srivijaya">The kadaram campaign is first mentioned in Rajendra's inscriptions dating from his 14th year. The name of the Srivijaya king was Sangrama Vijayatungavarman. [[K.A. Nilakanta Sastri]], ''The CōĻas'', pp 211–220</ref><ref name=meyer73>Meyer, p 73</ref> ত্রয়োদশ শতাব্দীর প্রথম ভাগে [[পাণ্ড্য]] রাজ্যের উত্থান ঘটলে চোল সাম্রাজ্য পতনের পথে অগ্রসর হতে থাকে। পাণ্ড্য রাজ্যই চোলদের পতনের প্রধান কারণ হয়।<ref name=sastri192>[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 192</ref><ref name=sastri195>[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 195</ref><ref name=sastri196>[[K.A. Nilakanta Sastri]], ''A History of South India'', p 196</ref>
 
চোল সাম্রাজ্যের উত্তরাধিকার ছিল সুদূরপ্রসারী। তাঁরা [[চোল সাহিত্য|তামিল সাহিত্যের]] পৃষ্ঠপোষকতা করেন। তামিল সাহিত্য ও স্থাপত্যের কিছু মহান নিদর্শন তাঁদেরই পৃষ্ঠপোষকতায় সৃজিত হয়েছে।<ref name=keay215/> চোল রাজারা একাধিক মন্দির ও স্থাপনা নির্মাণ করেন। এই মন্দিরগুলি কেবলমাত্র ধর্মোপাসনার স্থানই ছিল না, বরং এক একটি প্রধান অর্থনৈতিক কেন্দ্র হিসেবেও গড়ে উঠেছিল।<ref name=geeta20>Vasudevan, pp 20–22</ref><ref>Keay, pp 217–218</ref> তাঁরা ছিলেন একটি কেন্দ্রীয় [[চোল সরকার|সরকার ব্যবস্থার]] পথপ্রদর্শক এবং একটি নিয়মতান্ত্রিক আমলাতন্ত্রের উদ্ভাবক।
৫১টি

সম্পাদনা