"বিল কপসন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

প্রারম্ভিক জীবন - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি
(আরও দেখুন - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি)
(প্রারম্ভিক জীবন - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি)
'''উইলিয়াম হেনরি কপসন''' ({{lang-en|Bill Copson}}; [[জন্ম]]: [[২৭ এপ্রিল]], [[১৯০৮]] - [[মৃত্যু]]: [[১৪ সেপ্টেম্বর]], [[১৯৭১]]) ডার্বিশায়ারের স্টোনব্রুম এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।<ref name="Cap">{{cite book |title=If The Cap Fits |last=Bateman |first=Colin |authorlink= |coauthors= |year=1993 |publisher=Tony Williams Publications |location= |isbn=1-869833-21-X |page=43 |pages= |url= }}<!--|accessdate=20 April 2011--></ref> ১৯৩৯ থেকে ১৯৪৭ সময়কালে [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল|ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের]] অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩২ থেকে ১৯৫০ সময়কালে ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে ডার্বিশায়ারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলারের দায়িত্বে ছিলেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন '''বিল কপসন'''।
 
== প্রারম্ভিক জীবন ==
ডার্বিশায়ারের স্টোনব্রুম এলাকায় জন্মগ্রহণকারী উইলিয়াম হেনরি কপসন খনি শ্রমিক ছিলেন। সতীর্থ বোলার [[টমি মিচেল|টমি মিচেলের]] ন্যায় ১৯২৬ সালের সাধারণ ধর্মঘটের কারণে ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। ধর্মঘটের পূর্ব-পর্যন্ত ক্রিকেট খেলায় কোনরূপ আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়নি। তবে, সহকর্মী শ্রমিকদের সহযোগিতার কারণে স্থানীয় বিনোদন মাঠে ক্রিকেট খেলায় যোগ দিতে উদ্বুদ্ধ করে।
 
বোলার হিসেবে গ্রহণযোগ্য মাত্রায় পেস বোলিং করতেন ও ব্যতিক্রমধর্মী সোজাভাবে বলকে ডেলিভারি করতেন। এরফলে ব্যাটসম্যানকে প্রত্যেক বলকেই মোকাবেলা করতে বাধ্য করা হতো। পরের মৌসুমে মর্টন কলিয়ারি দলের পক্ষে খেলার সুযোগ ঘটে তাঁর। এরপর ডার্বিশায়ার লীগে ক্লে ক্রস ক্লাবে যোগ দেন। বেশ সফলতা পাওয়ায় ১৯৩২ সালে ডার্বিশায়ার কর্তৃপক্ষ দলের সদস্য হিসেবে মনোনীত করে।
 
প্রথম-শ্রেণীর খেলায় ডার্বিশায়ারের পক্ষে খেলেছেন। এ সময়ে তিনি সহস্রাধিক উইকেটের সন্ধান পেয়েছেন। তন্মধ্যে, ১৯৩৬ সালের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করেছেন। সারে দলের বিপক্ষে অভিষেক ঘটা ঐ খেলায় সারের ব্যাটসম্যান [[অ্যান্ডি স্যান্ডহাম|অ্যান্ডি স্যান্ডহামকে]] নিজের প্রথম বলেই বিস্ময়করভাবে আউট করেন। তবে মৌসুমের বাদ-বাকী সময় তাঁর ক্রীড়াশৈলী মাঝারিমানের ছিল।
 
১৯৩৩ সালে কপসনকে ডার্বিশায়ার দলের নিয়মিত সদস্যের মর্যাদা লাভ করেন। স্বল্প দূরত্ব থেকে দৌঁড়ে বোলিং করলেও ফাস্ট বোলারদের ন্যায় ক্রীড়াশৈলী উপস্থাপন করতেন। গ্রীষ্মের অনুপযোগী পিচেও তিনি সফলতা পেয়েছেন।
 
ক্রিকেট সংবাদদাতা কলিন বেটম্যানের মতে, দীর্ঘ চুলের অধিকারী পেস বোলার হিসেবে কপসন খেলায় প্রাণের সূচনা নিয়ে অগ্রসর হতেন। তিনি দূর্ঘটনাবশতঃ ক্রিকেটে জড়িয়ে পড়েন।
 
২৪ জুন, ১৯৩৯ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক ঘটে বিল কপসন।
৭০,৬৬৬টি

সম্পাদনা