"চিলারায়" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎রাজ অভিষেক: বানান ঠিক করা হয়েছে
(→‎শিক্ষা: বানান ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
(→‎রাজ অভিষেক: বানান ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
 
==রাজ অভিষেক==
চিলারায়ের পিতা বিশ্বসিংহ মৃত্যুর পূর্বে ভবিষৎ নির্ধারন করে রেখেছিলেন। সেইমতে, জেষ্ঠ পুত্র নরসিংহ বিদেশ যাওয়া, নরনারায়ননরনারায়ণ নিজ দেশে রাজত্ব করা ও চিলারায়কে রনধর্মরণধর্ম পালন করার জন্য আদেশ দেন। ১৫৩৩ সনে বিশ্বসিংহের মৃত্যু হয়। সেইসময়ে নরনারায়ননরনারায়ণ ও চিলারায় বারানসীতে শিক্ষা গ্রহন করিতেছিলেন। সুযোগ পেয়ে নরসিংহ রাজসিংহাসনে বসেন। রতনী ধাই নামক ব্যক্তি স্বর্গীয় রাজার আদেশ উলঙ্ঘনলঙ্ঘন হওয়া দেখে নাগভোগ নামক সন্ন্যাসীর হাতে চিঠি দিয়ে নরনারায়ননরনারায়ণ ও চিলারায়কে রাজধানী আসার নির্দেশ করেন। রাজধানী পৌছে নরনারায়ন ও চিলারায় নরসিংহকে যুদ্ধে পরাস্ত করেন। ১৫৩৪ সনে নরনারায়ননরনারায়ণ রাজসিংহাসনে বসেন । রাজ অভিষেক হওয়ার সময় চিলারায়ের নাম দেওয়া হয় সগ্রামসংগ্রাম সিংহ ।
 
==কোচ রাজ্য বিস্তার==
নরনারায়ন সিংহাসনে বসে পিতৃ রাজ্য বিস্তার করার কল্পনা করেন। চিলারায়ের সাহায্যে নরনারায়ন রাজ্য বিস্তার করতে সক্ষম হয়। ১৫৬৩ সনের জুন মাসে চিলারায় আহোমের রাজধানী গড়গাঁও দখল করে। তিনি কাছাড় আক্রমণ করে রাজধানী মাইবং দখল কর। ফলস্বরুপ কছাড়ী রাজা কোচ রাজ্যের বশ্যতা স্বীকার করেন। কাছাড় জয় করে তিনি মণিপুর, শ্রী হট্ট, খাইরাম,চট্টগ্রাম, ডিমরুয়া ইত্যাদি রাজ্য জয় করেন। জয়ন্তীয়া রাজা, ত্রিপুরার রাজা ও সিলেটের রাজা তাঁর সৈন্যের হাতে মৃত্যুবরন করেন।
৫১টি

সম্পাদনা