"অযৌন প্রজনন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
'''অযৌন প্রজনন''' ({{lang-en|Asexual reproduction}}) হল [[যৌনতা]]বিহীন [[প্রজনন|বংশবৃদ্ধি]] প্রক্রিয়া<ref name="Dawson">{{cite journal|author = Dawson KJ |title = The Advantage of Asexual Reproduction: When is it Two-fold?|journal = Journal of Theoretical Biology |date = October 1995|volume = 176|pages = 341–347|url = http://www.ingentaconnect.com/content/ap/jt/1995/00000176/00000003/art00203 |issue = 3|doi = 10.1006/jtbi.1995.0203}}</ref>।
 
মিওসিস প্রক্রিয়ায় জনন কোশ বা গ্যামেট তৈরি এবং দুটি ভিন্ন লিঙ্গের গ্যামেটের মিলনসংযুক্তি ব্যতিরেকে একটিমাত্র জীবদেহ থেকে স্বতন্ত্র অপত্য তৈরি হওয়ার ঘটনাকে অযৌন জনন বলে। এই প্রক্রিয়ার প্রজননে একটি একক জীব নিজের অবিকল প্রতিলিপি বা ক্লোন তৈরি করে। জনিতৃ কোষ এবং প্রতিলিপিত নতুন কোষে জিনের গঠন সম্পূর্ণ অপরিবর্তিত থাকে।
 
এককোষী জীবদেহে ([[মনেরা]] ও [[ প্রোটিস্টা]]) অযৌন জনন সর্বাধিক পরিলক্ষিত হয়। এছাড়া বিবর্তনগতভাবে অনুন্নত জীবেরাও অযৌন পদ্ধতিতে জনন ক্রিয়া সম্পন্ন করে। উন্নত উদ্ভিদদের ক্ষেত্রে অঙ্গজ জননের মাধ্যমে অযৌন জনন ঘটে। মেরুদণ্ডী এবং উন্নত অমেরুদণ্ডী প্রাণীদের ক্ষেত্রে অযৌন জনন ঘটে না।
 
বিপুল বৈচিত্র্যময় জীবজগতে প্রতিটি জীব তার নিজস্ব জনন পদ্ধতিতে বিবর্তিত হয়েছে। জীবের বাসস্থান, আভ্যন্তরীণ শারীরিক গঠন এবং আরও অন্যান্য নিয়ামক দ্বারা জীবের প্রজনন পদ্ধতি নির্ধারিত হয়। বিভাজন (Fission), কোরকোদ্গম (Budding), রেণু উৎপাদন (Sporulation), গেমিউল গঠন (Gemmule formation), গেমা গঠন (Gemmae formation), খণ্ডীভবন ও পুনরুৎপাদন (Fragmentation & Regeneration), প্লাজমোটমি (Plasmotomy), অঙ্গজ জনন (Vegetative propagation) এবং অন্যান্য উপায়ে অযৌন জনন ক্রিয়া সংঘটিত হয়।
 
==অযৌন জননের প্রকার==
*'''বিভাজনঃ'''
১৯৯টি

সম্পাদনা