"আর্থার কোনান ডয়েল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

আর্থার কোনান ডয়েলের জীবন ছিল বহুমাত্রিক এবং রোমাঞ্চপূর্ণ। তিনি একাধারে ছিলেন একজন [[ইতিহাস|ইতিহাসজ্ঞ]], [[তিমি শিকার|তিমি শিকারী]], [[ক্রীড়া|ক্রীড়াবিদ]], [[যুদ্ধ-সাংবাদিক]] এবং [[আত্মিকবাদ|আত্মিকবাদী]]।
 
জীবনের প্রথমভাগে, তিনি এডিনবারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেষজবিদ্যা বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং শেষতক [[লন্ডন|লন্ডনে]] স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করেন। ভেষজ-ব্যবসায় গা-ছাড়া ভাবের কারণে তাঁর হাতে থাকত বিস্তর অবসর। এবং এমনি একসময়ে তিনি সুবিখ্যাত [[শার্লক হোম্‌স]] সিরিজের গল্পগুলি লিখতে শুরু করেন। তাঁর প্রথম সাফল্য ছিল '[[রক্তসমীক্ষা]]'(A Study in Scarlet)'। এটি সর্বপ্রথম [[১৮৮৭]] সালে [[বীটনের বড়দিনের বার্ষিকী]](Beeton's Christmas Annual)তে প্রকাশিত হয়। [[১৮৯০]] সালে '[[চিহ্নচতুষ্টয়]]'(The Sign of Four) প্রকাশিত হওয়ার পর তিনি ভেষজ-ব্যবসা ছেড়ে দেন এবং লেখা-লেখিতে পুরোমাত্রায় আত্মনিয়োগ করেন। তিনি অনেক গল্প, কল্প-কাহিনী এবং ইতিহাস-কেন্দ্রিক রোমাঞ্চ কাহিনী লিখলেও বিখ্যাত চরিত্র শার্লক হোম্‌স-কে নিয়ে লেখা [[গোয়েন্দা-কাহিনী]]গুলিই তাকে বিশ্বজোড়া খ্যাতি এনে দিয়েছে। সত্য বলতে কি, এই হোমস্ চরিত্রটির উপর একঘেয়েমিজনিত বিরক্তির কারণে ডয়েল যখন '[[তার শেষ অভিবাদন]]'(His Last Bow)-এ হোম্‌স-কে মেরে ফেলেন, তখন জনতার দাবির মুখে ডয়েলহোমস চরিত্রটিকে অলৌকিকভাবে পুনরুজ্জীবিত করতে বাধ্য হন।
 
বাস্তব জীবনেও তিনি দু-দুবার গোয়েন্দাগিরি করে অন্যায়ভাবে দোষী-সাব্যস্ত ব্যক্তিদের নির্দোষ প্রমাণ করতে সফল হন। ডয়েলকে [[বোয়ের]] যুদ্ধের সময় দক্ষিণ আফ্রিকান এক মাঠ-চিকিৎসাকেন্দ্রে অবদান রাখার জন্য [[১৯০২]] সালে নাইট উপাধিতে ভূষিত করা হয়।
 
''সূত্রঃ শার্লক হোমসঃ দ্য কমপ্লিট নভেলস এন্ড স্টোরিজ, ব্যান্টাম ক্লাসিক্স
''সূত্রঃ Sherlock Holmes: The Complete Novels and Stories, Bantam Classics''
 
 
১,০৫৭টি

সম্পাদনা