রোয়ান অ্যাটকিনসন: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
১৯৫৫ সালের ৬ জানুয়ারি ইংল্যান্ডের নিউক্যাসলে জন্মগ্রহণ করেন এই ইংলিশ অভিনেতা, কমেডিয়ান এবং নাট্যকার। তার পুরো নাম রোয়ান সেবাস্টিয়ান অ্যাটকিনসন। ডাক নাম রো। তার বাবার নাম এরিক অ্যাটকিনসন এবং মায়ের নাম এলা মে। তিন ভাইয়ের মধ্যে সবার ছোট মি. বিন।
 
== '''প্রাথমিক জীবন''' ==
অ্যাটকিনসন ৬ই জানুয়ারি, ১৯৫৫ সালে ইংল্যান্ডের, [[ডুরহাম বিভাগ|ডুরহাম বিভাগের]], [[কনসেট|কনসেটে]] জন্ম গ্রহণ করেন<ref name="FamilyDetective">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|url=http://www.telegraph.co.uk/education/main.jhtml?view=DETAILS&grid=&xml=/education/2007/08/25/fafamdet125.xml|title=Family Detective - Rowan Atkinson|first=Nick|last=Barratt|publisher=[[The Daily Telegraph]]|date=25 August 2007}}</ref>। তার পিতা এরিক অ্যাটকিনসন একজন কৃষক এবং কোম্পানি পরিচালক ছিল এবং তার মাতা এল্লা মে (née Bainbridge)<ref name="FamilyDetective"/>। তার বড় দুই ভাই, রডনি অ্যাটকিনসন, একজন Eurosceptic [[অর্থনীতিবিদ]], যে ২০০০ সালে [[যুক্তরাষ্ট্র রাজ্য ইন্ডিপেন্ডেন্স পার্টি]] নেতৃত্ব নির্বাচন অল্পের জন্য হারিয়েছিল, এবং রুপেরট অ্যাটকিনসন।<ref>[http://www.abc.net.au/foreign/stories/s374382.htm Foreign Correspondent - 22 July 1997: Interview with Rodney Atkinson], ''[[Australian Broadcasting Corporation]]'', retrieved 27 January 2007</ref><ref>[http://news.bbc.co.uk/1/low/uk_politics/5221824.stm Profile: UK Independence Party], ''[[BBC News]]'', 28 July 2006, retrieved 27 January 2007</ref>
 
১৯৯০ সালে ‘মি. বিন’ নিয়ে টেলিভিশন পর্দায় হাজির হন রোয়ান অ্যাটকিনসন। মি. বিন মূলত ১৪ পর্বের একটি হাস্যরসাত্মক ব্রিটিশ টিভি ধারাবাহিক। আইটিভি নামক একটি টেলিভিশন চ্যানেলে এর প্রথম পর্বটি প্রচারিত হয় ১৯৯০ সালের প্রথম দিনটিতে। শেষ পর্বটির নাম 'হেয়ার বাই মি. বিন অব লন্ডন'। প্রথমে শুধু টিভি সিরিয়াল থাকলেও মি. বিন নিয়ে সিনেমা এমনকি কার্টুনও নির্মিত হয়েছে এবং মি. বিন প্রতিটি ক্ষেত্রেই অসম্ভব জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। টানা বিশ বছর রোয়ান এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন। শুরুর দিকে মি. বিন ছাড়াও এ সময় তিনি দ্যা ব্ল্যাক অ্যাডার এবং ফানি বিজনেসসহ বেশ কয়েকটি তুমুল জনপ্রিয় টিভি সিরিজে নিয়মিত অভিনয় করেন। কিন্তু সবগুলোকে ছাড়িয়ে যায় ‘মি. বিন’। এমনকি নিজের নামটাকেও হারাতে হয় রোয়ান অ্যাটকিনসনকে। তারই তালগোল পাকানো কাণ্ড-কারখানায় ভরপুর এ ব্রিটিশ কমেডি সিরিজের লেখক হলেন রবিন ড্রিসকল এবং রোয়ান অ্যাটকিনসন নিজে। ১৯৯৭ সালে ‘বিন: দ্য আলটিমেট ডিজাস্টার মুভি’ এবং ২০০৭ সালে ‘মিস্টার বিন’স হলিডে’ চলচ্চিত্র দুটি মুক্তি পায়। এছাড়া যুক্তরাজ্যের ‘আইটিভি ওয়ান’ চ্যানেলে ২০০২ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ‘মিস্টার বিন’ কার্টুন প্রচারিত হয়।
 
=== '''মি. বিন থেকে রোয়ান অ্যাটকিনসনের বিদায়''' ===
২০১২ সালের নভেম্বরে রোয়ান অ্যাটকিনসন ডেইলি টেলিগ্রাফকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিন চরিত্রে আর হাজির না হওয়ার ঘোষণা দেন। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন এই চরিত্রটি দিনে দিনে তাকে শিশুতে রূপান্তর করে দিচ্ছে। এই চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার জন্য যে শারীরিক শক্তির প্রয়োজন হয় সেটিও আজকাল আর তিনি পাচ্ছেন না। এছাড়া তার মতে, একজন পঞ্চাশ ঊর্ধ্বের ব্যাক্তিকে শিশুসুলভ অভিনয় করাটা একেবারেই বেমানান। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি এখন থেকে আমি সিরিয়াসধর্মী চরিত্রগুলোতেই শুধু অভিনয় করব।’ সুতরাং এই চরিত্রে তাকে আর দেখা যাবে না কখনোই।
 
=== ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি ===
অ্যাটকিনসন দর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গির সমালোচনার জন্য পরিচিত। তিনি যুক্তরাজ্যের ধর্মসংক্রান্ত একটি আইনের ত্রুটি আছে বলে ঘোষণা করেন।
 
৮০টি

সম্পাদনা