"বুর্কিনা ফাসো" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বুর্কিনা ফাসোর নাগরিকেরা জাতি নির্বিশেষে "বুর্কিনাবে" নামে পরিচিত। ফরাসি ভাষা সরকারী ভাষা হলেও মুখের ভাষা হিসেবে ব্যাপক প্রচলিত নয়। বেশির ভাগ লোক মোরে ভাষাতে কথা বলেন। ব্যবসা বাণিজ্যে দিউলা ভাষাটি অনেক ব্যবহৃত হয়।
===ধর্ম===
[[চিত্র:Religions - Tougan - Burkina Faso.jpg|থাম্ব|ডান|বুর্কিনা ফাসোর জনগণের ধর্মসমূহ (নীল মুসলমান, সবুজ ক্যাথলিক খ্রিস্টান, হলুদ প্রোটেস্টান্ট খ্রিস্টান এবং হালকা নীল জড়োপাসক)]]
দেশটির জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি মুসলমান। প্রায় এক-পঞ্চমাংশ রোমান ক্যাথলিক খিস্টান এবং প্রায় এক-ষষ্ঠাংশ প্রথাগত ধর্মগুলি পালন করে। বাকীরা মূলত প্রোটেস্টান্ট খ্রিস্টান বা অধার্মিক। উয়াগাদুগু শহরে রোমান ক্যাথলিক আর্চবিশপের গির্জা অবস্থিত। এছাড়া সারা দেশজুড়ে অনেক বিশপশাসিত ধর্মীয় অঞ্চল রয়েছে।
 
===জনবসতির বিন্যাস===
বুর্কিনা ফাসোর জনসংখ্যা দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে অসমভাবে বণ্টিত। পূর্বের ও কেন্দ্রের অঞ্চলগুলি ঘনবসতিপূর্ণ এবং এখানে দেশের জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেকের বাস। দেশের বাকী অঞ্চলগুলিতে জনসংখ্যা বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে আছে। জনসংখ্যার প্রায় তিন-চতুর্থাংশ গ্রামে বাস করে। গ্রামগুলি ভোল্টা নদীগুলির উপত্যকা থেকে দূরে উঁচু ভূমিতে অবস্থিত। ভোল্টা নদীগুলির দুই তীরের প্রায় বেশ কিছু মাইল ভেতর পর্যন্ত এলাকাতে কোন জনবসতি নেই, কেননা এই এলাকাতে [[ঘুমন্ত রোগ|ঘুমন্ত রোগের]] জীবাণু বহনকারী [[ৎসেৎসে মাছি]] এবং [[নদী অন্ধত্ব]] রোগের জীবাণু বহনকারী [[সিমুলিয়াম মাছি]]র ব্যাপক প্রাদুর্ভাব রয়েছে।
৩৮,৩৬১টি

সম্পাদনা