"ইউ নু" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

টেমপ্লেটে সংশোধন
(বানান সংশোধন)
(টেমপ্লেটে সংশোধন)
 
== ধর্মীয় কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ ==
[[থেরবাদ]] বৌদ্ধ ধর্মে তিনি নিবেদিত প্রাণ ছিলেন। ১৯৫২ সালে কাবা আয়া প্যাগোডা ও মহা পসন্ন গুহ নির্মাণ করেন। কলমা সুত্তে আকৃষ্ট ইউ নু। বৌদ্ধ ধর্মীয় এ মতবাদে বিশ্বাসীগণকে তাঁদের বিশ্বাস ও নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তে গৃহীত যে-কোন বাস্তব বিষয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়: স্বয়ং যাচাই না করে কোন কিছু বিশ্বাস করা যাবে না।<ref name="cbs">{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি|url=http://www.youtube.com/watch?v=myi_Vg5vu9I|title=Burma, Buddhism, and Neutralism|date=3 February 1957|work=See It Now|publisher=Youtube|accessdate=12 August 2011}}</ref>
 
২৯ আগস্ট, ১৯৬১ নিজ উদ্যোগে রাষ্ট্রধর্ম বিষয়ে সংসদে অণুমোদন দেন।<ref name="sal">{{citeবই bookউদ্ধৃতি|last=Sahliyeh|first=Emile F.|title=Religious resurgence and politics in the contemporary world|publisher=SUNY Press|year=1990|pages=39–40|isbn=978-0-7914-0382-2}}</ref> এ আইনে [[বৌদ্ধ ধর্ম|বৌদ্ধ ধর্মকে]] রাষ্ট্রধর্মের মর্যাদা দেয়া হয়। তাঁর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতেও এ বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছিল।
 
== ব্যক্তিগত জীবন ==
১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৫ তারিখে ৮৭ বছর বয়সে ইয়াংগুনের বাহান শহরে তাঁর দেহাবসান ঘটে।<ref>[http://www.burmalibrary.org/reg.burma/archives/199502/msg00074.html U Nu Dies], Reuters, February 14, 1995</ref> তাঁর পূর্বেই ১৯৯৩ সালে মায়া ই’র মৃত্যু ঘটেছিল। এ দম্পতির পাঁচ সন্তান ছিল।
 
১৯৫৫ সালে যুগোস্লাভিয়ার বেলগ্রেড বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রী প্রদান করে।<ref>{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি |url=http://www.bg.ac.rs/csrp/nauka/pocasni_doktori.php |title=University of Belgrade: Honorary Doctors |format= |work= |accessdate=2012-06-11}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
{{সূত্র তালিকা}}
{{reflist}}
 
== আরও দেখুন ==
== আরও পড়ুন ==
{{refbegin}}
*{{Citeবই bookউদ্ধৃতি |last=Butwell |first=Richard |title=U Nu of Burma |location=Stanford |publisher=Stanford University Press |year=1969 |isbn= }}
*{{Citeবই bookউদ্ধৃতি |last=Cady |first=John |title=A History of Modern Burma |location= |publisher=Cornell University Press |year=1960 }}
*{{Citeবই bookউদ্ধৃতি |last=Charney |first= Michael W. |title= "Ludu Aung Than: Nu's Burma During the Cold War," in Christopher E. Goscha & Christian F. Ostermann (ed.), ''Connecting Histories: Decolonization and the Cold War in Southeast Asia, 1945-1962'' |location= Washington, DC & Stanford California |publisher=Woodrow Wilson Center Press & Stanford University Press): pp. 335-355 |year=2009 |isbn= }}.
* Hunter, Edward (1957) ''The People Win Through: a play by U Nu'' (New York: Taplinger Publishing Co).
*{{Citeবই bookউদ্ধৃতি |authorlink=Martin Smith (journalist) |last=Smith |first=Martin |title=Burma: Insurgency and the Politics of Ethnicity |location=Dhaka |publisher=University Press |year=1999 |isbn=1-85649-659-7 }}
{{refend}}
*{{Citeবই bookউদ্ধৃতি |last=Tinker |first=Hugh |title=The Union of Burma |location= |publisher=Oxford University Press |year=1957 }}
 
== বহিঃসংযোগ ==
৩,৬৯,৩৯৪টি

সম্পাদনা