"অ্যালবাম" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(নতুন পৃষ্ঠা: অ্যালবাম হল  CD, লিপি , অডিও টেপ, বা  অন্য কোন মাধ্যমে কতগুলো অড...)
 
অ্যালবাম হল  [[CD]], লিপি , অডিও টেপ, বা  অন্য কোন মাধ্যমে কতগুলো অডিও লিপির সংগ্রহকে একক অনুচ্ছেদে প্রকাশ। ২০ শতকের গোড়ার দিকে এর উন্নতি হয়,[[গ্রামোফোন]] নামে,যার গতি ছিল প্রতি মিনিটে ৭৮ টি ঘুর্নন। যা পরে ১৯৪৮ এ সালে ৩৩<sup>১</sup>⁄<sub>৩</sub> ঘুর্ননে উন্নীত হয়। ভিনাইল LP লিপি  এখনো প্রকাশ করা হয় যদিও CD ও MP3 ধরন এখন সার্বজনিন। ১৯৭০ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত ভিনাইল রেকর্ডের পাশাপাশি অডিও টেপ বেশি ব্যবহৃত হয়েছিল। 
 
একটি অ্যালবাম যেকোন জায়গায়ই লিপিবদ্ধ করা যেতে পারে। লিপিবদ্ধ করতে কয়েক ঘন্টা থেকে কয়েক বছর ও লাগতে পারে। সাধারণত কতগুলো ক্ষুদ্র অংশকে লিপিবদ্ধ করে পরে মিশানো হয়। যে লিপি একবারেই তৈরি করা যায় তাকে “সরাসরি”(live) বলা হয়,যা কিনা স্টুডিওতেও করা সম্ভব। স্টুডিও মূলত শব্দ শোষণ,প্রতিধ্বনি কমানোর জন্য তৈরি করা হয় যাতে ভিন্ন অংশগুলোকে বিভিন্ন সময়ে নেয়া যেতে পারে। কিন্তু অন্য স্থানে প্রতিধ্বনি থাকে যা ‘সরাসরি’ শব্দ তৈরি করে। অধিকাংশ স্টুডিওতেই প্রচুর সম্পাদনা,শব্দ সুবিধা, স্বরের সমন্বয় করা যায়। আধুনিক লিপিবদ্ধ করার প্রযুক্তি অনুসারে, সুরকার হেডফোন ব্যবহার করে পুর্বের অংশ শুনে  ভিন্ন রুমে বা ভিন্ন সময়ের লিপি সংগ্রহ করে পারে । 
২২৭টি

সম্পাদনা