প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

সম্পাদনা সারাংশ নেই
== জনসংখ্যার উপাত্ত ==
ভারতের ২০১১ সালের আদম শুমারি অনুসারে বহরমপুর শহরের জনসংখ্যা হল ৩০৫৬০৯ জন।<ref name="census">{{cite web | accessdate = সেপ্টেম্বর ২৫ | accessyear = ২০০৬ | url = http://web.archive.org/web/20040616075334/www.censusindia.net/results/town.php?stad=A&state5=999 | title = ভারতের ২০০১ সালের আদম শুমারি}}</ref> এর মধ্যে পুরুষ ৫১%, এবং নারী ৪৯%।
 
== পরিবহণ বাবস্থা ==
রেল - বহরমপুর উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গ উভয় এর সাথেই রেল এর মাধ্যমে যুক্ত। এই শহরের প্রধান রেল স্টেশন দুটি হল বহরমপুর কোর্ট ও খাগড়াঘাট রোড । পূর্ব রেল এর শিয়ালদহ বিভাগের রাণাঘাট- লালগোলা শাখা লাইনের উপর অবস্থিত বহরমপুর কোর্ট একটি 'বি' শ্রেণির স্টেশন । ভাগীরথী এক্সপ্রেস (১৩১০৩/১৩১০৪), হাজারদুয়ারী এক্সপ্রেস (১৩১১৩/১৩১১৪), ধন ধান্যে এক্সপ্রেস (১৩১১৭/১৩১১৮) , শিয়ালদহ- লালগোলা ফাস্ট প্যাসেঞ্জার (৫৩১৭৯/৫৩১৭৪) , শিয়ালদহ- লালগোলা প্যাসেঞ্জার (৫৩১৮১/৫৩১৭২/৫৩১৭৫/৫৩১৭৮) এই স্টেশনের সাথে নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগণা, কলকাতা জেলার সংযোগ করেছে। ভাগিরথী নদীর অপর পাড়ে রয়েছে খাগড়াঘাট রোড স্টেশন যা হাওড়া বিভাগের হাওড়া- আজিমগঞ্জ শাখা লাইনের উপর অবস্থিত। এর উপর দিয়ে উত্তরবঙ্গ ও আসাম এর ট্রেন সংযোগ আছে। ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস, পুরী-কামাখ্যা এক্সপ্রেস, পাহাড়িয়া এক্সপ্রেস নবদ্বীপ ধাম-মালদা টাউন এক্সপ্রেস,তিস্তা- তোর্সা এক্সপ্রেস, কামরূপ এক্সপ্রেস,রাধিকাপুর এক্সপ্রেস , হাটেবাজারে এক্সপ্রেস হল এই লাইনের গুরুত্বপূর্ণ ট্রেন। উভয় রেলপথ এর মধ্যে ভাগিরথীর অপর সেতু স্থাপন এর মাধ্যমে সংযোগ স্থাপন এর কাজ ২০০৩ সালে শুরু হয়েছে যা চালু হলে এই শহর তথা জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রভূত উন্নতি ঘটবে।
 
সড়ক- বহরমপুর মুর্শিদাবাদ জেলার সদর শুধু তাই নয়, এটি পশ্চিমবঙ্গের কেন্দ্রীয় অবস্থানে আছে, এটা উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণ বাংলার যোগসূত্র হিসাবে কাজ করে. এই শহরের মধ্যে দিয়ে গেছে ৩৪ নং জাতীয় সড়ক। স্থানীয় পরিবহনের জন্য রিকশা ও ই-রিকশা (টুকটুক গাড়ী হিসাবে পরিচিত) উপর নির্ভরশীল। উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গ থেকে নিয়মিত বাস সার্ভিস আছে। বহরমপুর এর প্রধান বাস টার্মিনাস টি হল "মোহনা"। কলকাতা (ধর্মতলা) থেকে নিয়মিত বাস সার্ভিস আছে.এছাড়াও বাস সার্ভিস দুমকা (ঝাড়খণ্ড), দুর্গাপুর, সিউড়ী, আসানসোল, বর্ধমান, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, বোলপুর, রামপুরহাট, নলহাটি, মালদা, শিলিগুড়ি, বালুরঘাট, গঙ্গারামপুর, কৃষ্ণনগর, রাণাঘাট, সাইথিয়া ইত্যাদি পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য অংশের জন্য আছে.
 
জল - বহরমপুর শহর এর উত্তর-দক্ষিণে ভাগিরথী পারাপারের জন্য নৌকা ও লঞ্চচ রয়েছে। এছাড়াও বহরমপুর থেকে আজিমগঞ্জ, লালবাগ, জিয়াগঞ্জ ইত্যাদি অন্যান্য শহরে পাওয়া যায়.
 
 
 
== তথ্যসূত্র ==
{{Reflist}}
 
{{পশ্চিমবঙ্গের-শহর-অসম্পূর্ণ}}
৩০টি

সম্পাদনা