"প্রেমানন্দ দত্ত" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

তথ্যাদি
(তথ্যাদি)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা দৃশ্যমান সম্পাদনা
 
== প্রফুল্ল রায় হত্যা ==
চট্টগ্রামে বিপ্লবীদের ওপর নজর রাখার জন্যে ব্রিটিশ পুলিশের গোয়েন্দা সাব-ইন্সপেক্টর প্রফুল্ল রায় কুখ্যাত ছিল। এই ব্যক্তি অনন্ত সিংহকে গ্রেপ্তার করলে প্রেমানন্দ দত্ত প্রতিশোধ নিতে সসচেষ্ট হন। প্রফুল্ল রায়ের সসাথে বন্ধুত্ব করে চচট্টগ্রাম পল্টনের মমাঠে নির্জন জায়গায় নিয়ে ১৯২৪ এর ২৪শে মে তাকে গুলি করে হত্যা করেনকরেন। প্রফুল্ল মৃত্যুকালীন জবানবন্দীতে প্রেমানন্দের নাম বলে যায় এবং তিনি গ্রেপ্তার হন।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|title=Chittagong Summer 1930|last=Manasi Bhattacharya|first=|publisher=HarperCollins publishers|year=|isbn=|location=|pages=Timeline}}</ref> ব্যারিস্টার [[যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্ত]] তার হয়ে মামলা লড়েছিলেন।লড়েন। মামলার প্রধান সাক্ষী রায়বাহাদুর সতীশ রায়কে সুকৌশলে জেরা করে, আইনি জটিলতার মারপ্যাঁচে ফেলে প্রেমানন্দ কে বেকসুর খালাস করেন যতীন্দ্রমোহন।
 
== মৃত্যু ==
প্রফুল্ল রায় হত্যা মমামলায় মুক্তি পেলেও অন্য মামলায় তাকে পপুলিশ আবার গ্রেপ্তার ককরে জেলে পাঠায়। জেলে থাকার সময় তার মানসিক অবস্থার অবনতি ঘটে। তাকে [[রাঁচি]]<nowiki/>র মানসিক হসপিটালে পাঠানো হয়। সেখানেই এই বিপ্লবীর মৃত্যু হয়।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|title=সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান|last=প্রমথ খন্ড|first=সুবোধচন্দ্র সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত|publisher=সাহিত্য সংসদ|year=২০০২|isbn=81-85626-65-0|location=কলকাতা|pages=৩২০}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==