"রাগ (সংগীত)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
==রাগ ভৈরব==
অতি প্রাচীন এই রাগটি ভৈরো, ভ্যায়রো, মালব, ভৈরব ইত্যাদি বিভিন্ন নামে পরিচিত।প্রাচীন হলেও বর্তমান প্রচলিত ভৈরবের সাথে আগের ভৈরবের কোন মিল নেই। এটি একটি ঠাট রাগ। রে,ধা কোমল- গাওয়ার সময় আন্দোলিত হয় এবং বিশেষ মহত্বপূর্ণ ভাবে ফুটে উঠে। ভৈরবী ঠাটের কোমল গা ও নি এর স্থলে শুদ্ধ গা নি ব্যবহার করলেই ভৈরব ঠাটের স্বর সপ্তক পাওয়া যায়। রাগটি প্রাত:কালীন সন্ধি প্রকাশ রাগ। ধৈবতের আন্দোলন কালে কোমল নি ঈষৎ প্রয়োগ হয় এবং রে স্বরটি অতি কোমল ও অবরোহে বেশী প্রাধান্য পায়। কুশলতার সাথে অবরোহ গতিতে কোমল নি ব্যবহার করা যায়। গমঋ, দমপ, দমপ দনর্স এই স্বর সংগতি মীড় যুক্ত হয়ে বেশী প্রয়োগ হয়। আরোহে সঋগম/ন্ সগম/সগম এ রকম বিভিন্ন ভাবে স্বর প্রয়োগ হয়ে থাকে। ম র মীড় হলেও এর সাথে প র সংযোগ হয়ে একটি বিশেষ রূপ ফুটে উঠে যা সঠিক তালিম প্রাপ্ত গায়ক গণের পক্ষেই কেবল গেয়ে দেখানো সম্ভব। ভৈরবের সমপ্রকৃতির রাগ হচ্ছে কলিংড়া এবং রামকেলী।
 
 
 
পরিচয়: রে ধা কোমল বাকী সব শুদ্ধ স্বর ব্যবহৃত হয়। রে ও ধা এর ব্যবহার শিখে নেয়ার মত একটি বিষয়।
অঙ্গ: উত্তরাংগ।
সময়: মধ্যরাত্রি (তবে কেউ কেউ মনে করেন সন্ধাবেলাও রাগটি গাওয়া যেতে পারে)।<ref>http://www.gunjanmusicschool.com/raga/raga-kafi</ref>
==রাগ ভৈরবী==
 
এই রাগ ভৈরবী ঠাটের আশ্রয় রাগ বা তার উৎস ,ঠাট রাগ । রাগ ভৈরবী সংকীর্ণ শ্রেণীর ও সরলব্রক্রগতির নাতিচঞ্চলশান্ত প্রকৃতির ভক্তি ও শিঙ্গার রসাত্মক , দ্রুপধ ও ঠুমরী অঙ্গে প্রচলিত। ঠুমরী বা যে কোন হালকা অঙ্গের গানে ঠাটের ১২টি সুরই ব্যাবহার করা হয় ।
ঠাটঃ ভৈরবী।
জাতিঃ সম্পূর্ণ।
আরোহী: স ঋ জ্ঞ ম প ধ ণ র্স ।
অবরোহী: র্স ণ ধ প ম জ্ঞ ঋ স।
বাদী স্বর: মধ্যম (ম) মতান্তরে ধৈবত (ধ)।
সমবাদী: ষড়জ (স) মতান্তরে গান্ধার (গ)
== তথ্যসূত্র ==
<references/>
১৪টি

সম্পাদনা