"কৃষ্ণবস্তু" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বানান
(কৃষ্ণকায়া-কে কৃষ্ণবস্তু-তে পুনর্নির্দেশনার সাহায্যে সরানো হয়েছে)
(বানান)
[[Image:blackbody-lg.png|thumb|303px|তাপমাত্রা কমতে থাকলে কৃষ্ণকায়া বিকিরণ লেখের শীর্ষবিন্দু নিম্নতর তীব্রতা ও উচ্চতর তরঙ্গদৈর্ঘ্যের দিকে স্থানান্তরিত হতে থাকে। র‌্যালে এবং জিন্‌সের চিরায়ত নকশার সাথে কৃষ্ণকায়া বিকিরণ লেখের তুলনা করা যায়।]]
'''কৃষ্ণকায়াকৃষ্ণবস্তু''' (কৃষ্ণ বস্তুকৃষ্ণকায়া, ব্ল্যাক বডি) পদার্থবিজ্ঞানে ব্যবহৃত একটি শব্দ। যে বস্তু তার উপর আপতিত দৃশ্যমান এবং অদৃশ্য সকল ধরণের [[তাড়িতচৌম্বক বিকিরণ]] শোষণ করে নেয় তাকে কৃষ্ণকায়া বলে। কোন বিকিরণই এই বস্তু ভেদ করে যেতে পারেনা এবং আপতিত কোন বিকিরণ প্রতিফলিতও হয়না। অর্থাৎ এতে কোন [[প্রতিফলন]] বা [[সঞ্চালন]] হয়না, কেবলই [[শোষণ]] ঘটে। এই বৈশিষ্ট্যের কারণে কৃষ্ণকায়া আদর্শ তাপ বিকিরণকারী বস্তুতে পরিণত হয়। অর্থাৎ তারা যে তাড়িতচৌম্বক বিকিরণ নিঃসরণ করে তার বর্ণালি সরাসরি তাদের তাপমাত্রার সাথে সম্পর্কিত। ৭০০ কেলভিন (৪৩০° সেলসিয়াস) বা আরও কম তাপমাত্রার কৃষ্ণকায়াগুলো দৃশ্যমান তরঙ্গদৈর্ঘ্যে খুবই স্বল্প পরিমাণ বিকিরণ করে। তাই এদের কালো দেখায়। অবশ্য এই তাপমাত্রার উপরে কৃষ্ণকায়া থেকে দৃশ্যমান তরঙ্গদৈর্ঘ্যে বিকিরণ হয়। তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে সাথে এই বিকিরণ লাল রং থেকে শুরু হয়ে কমলা, হলুদ এবং সাদা রংয়ের তরঙ্গদৈর্ঘ্যে ঘটে এবং শেষ হয় গিয়ে নীল রংয়ে।
 
কৃষ্ণকায়াকৃষ্ণবস্তু শব্দের ইংরেজি প্রতিশব্দ "ব্ল্যাক বডি" প্রথম ব্যবহার করেছিলেন [[গুস্তাফ কার্শফ]], [[১৮৬০]] সালে। কৃষ্ণকায়া কর্তৃক বিকিরিত আলোকরশ্মিকে [[কৃষ্ণকায়া বিকিরণ]] বলা হয়। [[কোয়ান্টাম বলবিজ্ঞান|কোয়ান্টাম বলবিজ্ঞানের]] ইতিহাসে এই কৃষ্ণকায়া বিকিরণের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।<ref>When used as a [[compound adjective]], the term is typically hyphenated, as in "black-body radiation", or combined into one word, as in "blackbody radiation". The hyphenated and one-word forms should not generally be used as nouns.</ref>
 
==আরও দেখুন==
 
<!--Categories-->
[[Category:তাপগতিবিজ্ঞানতাপ বিকিরণ]]
[[Category:তাড়িতচৌম্বক বিকিরণ]]
[[Category:জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞান]]
১৩,৪৫৫টি

সম্পাদনা