প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

সৌরভ বেরা.com
খ্রিস্টীয় অষ্টম শতকের প্রথমভাগে [[আদিমল্ল|রঘুনাথ মল্ল]] [[মল্ল রাজবংশ|মল্ল রাজবংশের]] প্রতিষ্ঠা করলে এই অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিবর্তন ত্বরান্বিত হয়। [[বিষ্ণুপুর মহকুমা|বিষ্ণুপুর মহকুমার]] মহকুমা-শহর [[বিষ্ণুপুর|বিষ্ণুপুরে]], যা সেই সময় বন-বিষ্ণুপুর নামে পরিচিত ছিল, মল্লভূম নামে পরিচিত মল্লরাজ্যের রাজধানী স্থাপিত হয়। মল্লরাজবংশ প্রায় ১০০০ বছর এই অঞ্চল শাসন করেন ও বাংলার ইতিহাসে অন্যতম শ্রেষ্ঠ ও প্রজাহিতৈষী রাজবংশ রূপে খ্যাতি অর্জন করেন। [[১৭৬৫]] সালে দেওয়ানি লাভের পর বিষ্ণুপুর [[ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি|ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির]] অধীনে আসে। পরে মরাঠা আক্রমণ ও [[১৭৭০]] সালের মন্বন্তরে এই অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক কাঠামো সম্পূর্ণ বিনষ্ট হয়। [[১৭৮৭]] সালে বিষ্ণুপুর ও [[বীরভূম জেলা|বীরভূম]] জেলাদুটি সংযুক্ত করে একই জেলায় পরিণত করা হয়। [[১৭৯৩]] সালে বিষ্ণুপুরকে বীরভূম জেলা থেকে বিচ্ছিন্ন করে [[বর্ধমান জেলা|বর্ধমান জেলার]] সঙ্গে যুক্ত করা হয়। [[১৮০৫]] সালে বিষ্ণুপুরকে জঙ্গলমহল জেলার সঙ্গে যুক্ত করা হয়। [[১৮৩৭]] সালে [[বাঁকুড়া|বাঁকুড়াকে]] সদর করে ও বিষ্ণুপুরকে পৃথক করে পশ্চিম বর্ধমান জেলা গঠন করা হয়। [[১৮৮১]] সালে বর্তমান বাঁকুড়া জেলা স্থাপিত হয়।
 
বাঁকুড়া জেলা [[পশ্চিমবঙ্গ|পশ্চিমবঙ্গের]] দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে [[ছোটনাগপুর মালভূমি]] ও নিম্ন গাঙ্গেয় সমভূমির মধ্যবর্তী অংশে অবস্থিত। এই জেলার মোট আয়তন ৬৮৮২ বর্গ কিলোমিটার। জেলার পশ্চিমদিকে রয়েছে ল্যাটেরাইট গঠিত পাহাড়শ্রেণি, উপত্যকা, গভীর অরণ্য ও শিলাস্তুপময়মুশনকলঙতোস্তুপময় বন্ধুর ভূমিভাগ। [[শুশুনিয়া]] ও [[বিহারীনাথ]] এই অঞ্চলের উল্লেখযোগ্য পাহাড়। তার পূর্বে শিলাস্তুপ, নিম্নশৈলশিরা ও উপত্যকাযুক্ত মধ্যভাগের অসমতল ভূমিভাগ। জেলার পূর্বদিকে [[বাঁকুড়া সদর মহকুমা|সদর মহকুমার]] অধিকাংশ থানা ও সমগ্র [[বিষ্ণুপুর মহকুমা]] নিয়ে বিরাট পলিগঠিত সমতলভূমি পশ্চিম থেকে ক্রমশ নিচু হয়ে নেমে এসেছে।
== ভূগোল ==
{{মূল নিবন্ধ|বাঁকুড়া জেলার ভূগোল}}
 
বাঁকুড়া জেলা [[পশ্চিমবঙ্গ|পশ্চিমবঙ্গের]] দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে [[ছোটনাগপুর মালভূমি]] ও নিম্ন গাঙ্গেয় সমভূমির মধ্যবর্তী অংশে অবস্থিত। এই জেলার মোট আয়তন ৬৮৮২ বর্গ কিলোমিটার। জেলার পশ্চিমদিকে রয়েছে ল্যাটেরাইট গঠিত পাহাড়শ্রেণি, উপত্যকা, গভীর অরণ্য ও শিলাস্তুপময় বন্ধুর ভূমিভাগ। [[শুশুনিয়া]] ও [[বিহারীনাথ]] এই অঞ্চলের উল্লেখযোগ্য পাহাড়। তার পূর্বে শিলাস্তুপ, নিম্নশৈলশিরা ও উপত্যকাযুক্ত মধ্যভাগের অসমতল ভূমিভাগ। জেলার পূর্বদিকে [[বাঁকুড়া সদর মহকুমা|সদর মহকুমার]] অধিকাংশ থানা ও সমগ্র [[বিষ্ণুপুর মহকুমা]] নিয়ে বিরাট পলিগঠিত সমতলভূমি পশ্চিম থেকে ক্রমশ নিচু হয়ে নেমে এসেছে।
বাঁকুড়া জেলার অধিকাংশ ল্যাটেরাইট ও পলি মৃত্তিকা দ্বারা গঠিত। তবে পশ্চিমাংশ সিস্টোস ও নিসোস শিলা দিয়ে ও ও দক্ষিণাংশ পাললিক শিলা দ্বারা গঠিত। এই জেলা মূলত ল্যাটেরাইট কাঁকড় ও বেলে-দোঁয়াস মাটিতে গঠিত হলেও উত্তরে [[দামোদর উপত্যকা|দামোদর উপত্যকার]] কিছু অঞ্চল সাম্প্রতিক পলি দ্বারাই গঠিত। [[দামোদর নদ|দামোদর]], [[দ্বারকেশ্বর নদ|দ্বারকেশ্বর]], [[কংসাবতী নদী|কংসাবতী]] ও [[শিলাই নদী|শিলাই]] এই জেলার প্রধান নদনদী।
বাঁকুড়া জেলার উষ্ণ ও শুষ্ক, কিন্তু স্বাস্থ্যকর। গ্রীষ্মকালীন সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যথাক্রমে ৪৪º-৪৫º সেন্টিগ্রেড ও ১৫º সেন্টিগ্রেড। শীতকালীন সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যথাক্রমে ৩৩º সেন্টিগ্রেড ও ৬º সেন্টিগ্রেড। বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ১৪০০ মিলিমিটার।
বাঁকুড়া জেলায় বনভূমির পরিমাণ ২৪৭.৭০ হাজার হেক্টর (জেলার মোট আয়তনের ২১.৪৭%)। মূলত শুষ্ক ক্রান্তীয় পর্ণমোচী অরণ্য বা শালবন বেশি দেখা যায়। এছাড়া পিয়াশাল, সেগুন, বহেড়া, পলাশ, কুসুম, মহুয়া, পিপুয়া, বাবলা, আম, কাঁঠাল, পারাষি প্রভৃতি গাছও দেখা যায়। <ref>ধনধান্যে (যোজনা পত্রিকা গোষ্ঠীর বাংলা মাসিক) জুন, ২০০৭ সংখ্যা, পৃ. ৫৮</ref>নীনেওপনো মুছো সমীপত মুশকথ মুছুট মুশকথাওই মুখেরা মাটিমতব মুছুনে মত্তীয মুশেকি নবাঁ মুশিনা মুছলা পরাখিষ সমীলার্ব সিনজেখতিনয় পুনিসাই । মেসেকাছুক স্বীজি মুখেরাপটক
 
== প্রশাসনিক বিভাগ ==
বেনামী ব্যবহারকারী