"প্লাসমিড" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
যুক্তরাষ্ট্রের [https://en.m.wikipedia.org/wiki/Molecular_biology আণবিক জীববিজ্ঞানী] [[জোসুয়া লেডারবার্গ]] ১৯৫২ সালে প্রথম প্লাসমিড শনাক্ত করেন।<ref>{{cite journal |author= Lederberg J |title= Cell genetics and hereditary symbiosis |journal=Physiol. Rev. |volume=32 |issue= 4 |pages= 403–430 |year= 1952 |pmid= 13003535 |doi=}}</ref> ১৯৬৮ সালে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে প্লাসমিডকে অতিরিক্ত জেনেটিক উপাদান হিসেবে আলাদা বাহকে সংযুক্ত করা যায়। <ref>{{cite web |url=http://mgen.microbiologyresearch.org/about/content/journal/mgen/standing-on-the-shoulders-of-giants/falkow3 |title=Microbial Genomics: Standing on the Shoulders of Giants |author=Stanley Falkow |work=Microbiology Society}}</ref> এবং এটাই তাকে ভাইরাস থেকে পৃথক করেছে এবং এর সংজ্ঞায় পরিবর্তন আসল, বুঝা গেল প্লাসমিড ক্রোমোজোমের বাইরেও টিকে থাকতে পারে ও স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজের প্রতিলিপি গঠন করতে পারে।<ref name=finbarr />
 
কোষের অভ্যন্তরে স্বাধীনভাবে প্লাসমিড নিজের প্রতিলিপন করতে চাইলে তাকে অবশ্যই ডিএনএ এর ছাচ তৈরী করতে হবে,যা সূচনা বিন্দু([https://en.m.wikipedia.org/wiki/Origin_of_replication origin of species] হিসেবে কাজ করবে। যেহেতু এটি নিজে নিজে প্রতিলিপি গঠন করতে পারে তাই এই এই দৃষ্টিকোণ থেকে প্লাসমিডকে [https://en.m.wikipedia.org/wiki/Replicon_(genetics) replicon] বলা হয়।<!--অনুবাদ??? A typical bacterial replicon may consist of a number of elements, such as the gene for plasmid-specific replication initiation protein (Rep), repeating units called [[iteron]]s, [[DnaA]] boxes, and an adjacent AT-rich region.--><ref>{{cite book |url= https://books.google.com/books?id=r6QC0hTwsrwC&pg=PA2#v=onepage&q&f=false |title= E. Coli Plasmid Vectors: Methods and Applications |editors= Nicola Casali, Andrew Preston |series= Methods in Molecular Biology, Vol. 235|publisher= Humana Press |year= 2003 |author= Finbarr Hayes |chapter= Chapter 1 - The Function and Organization of Plasmids |pages= 5–6 |isbn= 978-1-58829-151-6}}</ref> Smallerক্ষুদ্রাকৃতির plasmidsপ্লাসমিড makeতাদের useবাহকের ofপ্রতিলিপন theউৎসেচক hostব্যবহার replicativeকরে enzymesনিজেদের toপ্রতিলিপি makeকরে copiesথাকে। ofকিন্তু themselves,বড় whileপ্লাসমিডগুলো largerনিজেদের plasmidsপ্রতিলিপির mayজন্য carryসুনির্দিষ্ট genesজীন specificধারণ forকরতে theপারে। replicationকিছু ofকিছু thoseপ্লাসমিড plasmids.নিজেদেরকে বাহক Aক্রোমোজোমে fewঅভ্যন্তরে typesসংযুক্ত ofকরতে plasmidsপারে। canএই alsoধরনের insertবিশেষ intoপ্লাসমিডকে theবলা host chromosome, and these integrative plasmids are sometimes referred to asহয় [https://en.m.wikipedia.org/wiki/Episome episomeএপিজোম] in prokaryotes.<ref name="brown">{{cite book |url= https://books.google.com/books?id=yEvt3JdtgTQC&pg=PT26&lpg=PT26#v=onepage&q&f=false |title= Gene Cloning and DNA Analysis: An Introduction|author= T. A. Brown |publisher= Wiley-Blackwell |edition= 6th |year= 2010 |chapter= Chapter 2 - Vectors for Gene Cloning: Plasmids and Bacteriophages |isbn= 978-1405181730}}</ref>
 
যতই ক্ষুদ্র হোক নানা কেন প্লাসমিড অন্ততপক্ষে একটা হলেও জিন বহন করে। প্লাসমিড যে সকল জীন বহন করে তার অধিকাংশই বাহক কোষের জন্য উপকারী। উদাহরণ স্বরুপ: প্রতিকূল পরিস্থিতিতে বাহক কোষকে টিকে থাকার জন্য প্লাসমিড সহায়তা করে। কিছু জীন অ্যান্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে। আবার কিছু জীন ভারী পদার্থ যেগুলো প্রতিরোধ করে while others may produce [https://en.m.wikipedia.org/wiki/Virulence_factor virulence factor] that enable a bacterium to colonize a host and overcome its defences, or have specific metabolic functions that allow the bacterium to utilize a particular nutrient, including the ability to degrade recalcitrant or toxic organic compounds.<ref name=finbarr/> প্লাসমিড সক্ষম ব্যাকটেরিয়া দিয়ে [https://en.m.wikipedia.org/wiki/Nitrogen_fixation nitrogefix nitrogen](নাইট্রোজেন সংবন্ধন) করাতে। কিছু কিছু প্লাসমিডের কোষে কোনো প্রভাব দেখা যায় না।অথবা বাহকে তাদের উপকার কী সেটা এখনো নির্ণয় করা যায় নি। এইধরনের প্লাসমিডকে বলা হয় ক্রিপটিক প্লাসমিড (cryptic plasmids) <ref>{{cite book |url= https://books.google.co.uk/books?id=a4lrPKQWjtAC&pg=PA21#v=onepage&q&f=false |title= The Biology of Plasmids |publisher= Wiley-Blackwell; First Edition |year= 1996 |author= David Summers |chapter= Chapter 1 - The Function and Organization of Plasmids |pages= 21–22 |isbn= 978-0632034369}}</ref>