"প্লাসমিড" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(তথ্য)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
==Properties and characteristics==
[[File:Plasmid replication (english).svg|400px|thumb|right|There are two types of plasmid integration into a host bacteria: Non-integrating plasmids replicate as with the top instance, whereas [[episomes]], the lower example, can integrate into the host [[chromosome]].]]
যুক্তরাষ্ট্রের [[https://en.m.wikipedia.org/wiki/Molecular_biology আণবিক জীববিজ্ঞানী]] [[জোসুয়া লেডারবার্গ]] ১৯৫২ সালে প্রথম প্লাসমিড শনাক্ত করেন।<ref>{{cite journal |author= Lederberg J |title= Cell genetics and hereditary symbiosis |journal=Physiol. Rev. |volume=32 |issue= 4 |pages= 403–430 |year= 1952 |pmid= 13003535 |doi=}}</ref> ১৯৬৮ সালে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল যে প্লাসমিডকে অতিরিক্ত জেনেটিক উপাদান হিসেবে আলাদা বাহকে সংযুক্ত করা যায়। <ref>{{cite web |url=http://mgen.microbiologyresearch.org/about/content/journal/mgen/standing-on-the-shoulders-of-giants/falkow3 |title=Microbial Genomics: Standing on the Shoulders of Giants |author=Stanley Falkow |work=Microbiology Society}}</ref> এবং এটাই তাকে ভাইরাস থেকে পৃথক করেছে এবং এর সংজ্ঞায় পরিবর্তন আসল, বুঝা গেল প্লাসমিড ক্রোমোজোমের বাইরেও টিকে থাকতে পারে ও স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজের প্রতিলিপি গঠন করতে পারে।<ref name=finbarr />
 
কোষের অভ্যন্তরে স্বাধীনভাবে প্লাসমিড নিজের প্রতিলিপন করতে চাইলে তাকে অবশ্যই ডিএনএ এর ছাচ তৈরী করতে হবে,যা সূচনা বিন্দু([https://en.m.wikipedia.org/wiki/Origin_of_replication origin of species] হিসেবে কাজ করবে। যেহেতু এটি নিজে নিজে প্রতিলিপি গঠন করতে পারে তাই এই এই দৃষ্টিকোণ থেকে প্লাসমিডকে [[Replicon https://en.m.wikipedia.org/wiki/Replicon_(genetics)| replicon]] বলা হয়।<!--অনুবাদ??? A typical bacterial replicon may consist of a number of elements, such as the gene for plasmid-specific replication initiation protein (Rep), repeating units called [[iteron]]s, [[DnaA]] boxes, and an adjacent AT-rich region.--><ref>{{cite book |url= https://books.google.com/books?id=r6QC0hTwsrwC&pg=PA2#v=onepage&q&f=false |title= E. Coli Plasmid Vectors: Methods and Applications |editors= Nicola Casali, Andrew Preston |series= Methods in Molecular Biology, Vol. 235|publisher= Humana Press |year= 2003 |author= Finbarr Hayes |chapter= Chapter 1 - The Function and Organization of Plasmids |pages= 5–6 |isbn= 978-1-58829-151-6}}</ref><!--অনুবাদ??? Smaller plasmids make use of the host replicative enzymes to make copies of themselves, while larger plasmids may carry genes specific for the replication of those plasmids. A few types of plasmids can also insert into the host chromosome, and these integrative plasmids are sometimes referred to as [[https://en.m.wikipedia.org/wiki/Episome episome]]s in prokaryotes.<ref name="brown">{{cite book |url= https://books.google.com/books?id=yEvt3JdtgTQC&pg=PT26&lpg=PT26#v=onepage&q&f=false |title= Gene Cloning and DNA Analysis: An Introduction|author= T. A. Brown |publisher= Wiley-Blackwell |edition= 6th |year= 2010 |chapter= Chapter 2 - Vectors for Gene Cloning: Plasmids and Bacteriophages |isbn= 978-1405181730}}</ref>-->
 
যতই ক্ষুদ্র হোক নানা কেন প্লাসমিড অন্ততপক্ষে একটা হলেও জিন বহন করে। প্লাসমিড যে সকল জীন বহন করে তার অধিকাংশই বাহক কোষের জন্য উপকারী। উদাহরণ স্বরুপ: প্রতিকূল পরিস্থিতিতে বাহক কোষকে টিকে থাকার জন্য প্লাসমিড সহায়তা করে। কিছু জীন অ্যান্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে। আবার কিছু জীন ভারী পদার্থ যেগুলো প্রতিরোধ করে <!--অনুবাদ???while others may produce [[https://en.m.wikipedia.org/wiki/Virulence_factor virulence factor]]s that enable a bacterium to colonize a host and overcome its defences, or have specific metabolic functions that allow the bacterium to utilize a particular nutrient, including the ability to degrade recalcitrant or toxic organic compounds.<ref name=finbarr/>--> প্লাসমিড সক্ষম ব্যাকটেরিয়া দিয়ে [[nitrogenhttps://en.m.wikipedia.org/wiki/Nitrogen_fixation fixation|fixnitrogefix nitrogen]](নাইট্রোজেন সংবন্ধন) করাতে। কিছু কিছু প্লাসমিডের কোষে কোনো প্রভাব দেখা যায় না।অথবা বাহকে তাদের উপকার কী সেটা এখনো নির্ণয় করা যায় নি। এইধরনের প্লাসমিডকে বলা হয় ক্রিপটিক প্লাসমিড (cryptic plasmids) <ref>{{cite book |url= https://books.google.co.uk/books?id=a4lrPKQWjtAC&pg=PA21#v=onepage&q&f=false |title= The Biology of Plasmids |publisher= Wiley-Blackwell; First Edition |year= 1996 |author= David Summers |chapter= Chapter 1 - The Function and Organization of Plasmids |pages= 21–22 |isbn= 978-0632034369}}</ref>
 
==তথ্যসূত্র ==