"হেয়াত মামুদ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্প্রসারণ
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে)
(সম্প্রসারণ)
 
==সাহিত্যকর্ম==
তিনি মোট চারটি কাব্য রচনা করেন।<ref name="বাংলাপিডিয়া"/> হেয়াত মামুদ জন্মগত ভাবে রংপুরের অধিবাসী থাকায় তাঁর সাহিত্যে রংপুর অঞ্চলের ভাষা ও ভাষারীতির ব্যবহার রয়েছে। ''জঙ্গনামা'' (১৭২৩) কাব্যগ্রন্থে রয়েছে কারবালার বিষাদময় কাহিনীর বিবরণ। এটি মূলত ফারসি কাব্যের অনুসরণে রচিত। ''সর্বভেদবাণী'' (১৭৩২) কাব্যে রয়েছে নীতিকথামূলক বয়ান। মামুদ সংস্কৃত পঞ্চতন্ত্র কাব্যের ফারসি অনুবাদ মফরেহুল-কুলুব থেকে এর উপাদান সংগ্রহ করেন।
 
”যার বিদ্যা নাই সে জানে না ভাল মন্দ, শিরে দুই চক্ষু আছে তথাপি সে অন্ধ” - তাঁর বহুলপ্রচলিত অনেক আধ্যাতিক বানীর মধ্যে একটি।
 
==গ্রন্থের তালিকা==
* ''আম্বিয়াবাণী'' (১৭৫৮)
 
==সম্মাননা==
==লিগ্যাসি==
কবি হেয়াত মামুদের সম্মানে [[বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়|বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের]] একটি ভবনের নামকরণ করা হয়েছে ''কবি হেয়াত মামুদ ভবন''।<ref name="ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম">{{cite news |author= |title=বেরোবিতে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত |url=http://www.campuslive24.com/campus.89261.live24/ |date=ডিসেম্বর ১৪, ২০১৪ |accessdate=ডিসেম্বর ১৪, ২০১৪ |work=ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম }}</ref>
 
==মৃত্যু==
ধারণা করা হয় আনুমানিক ১৭৬০ সালে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। প্রতি বছর ঝাড়বিশিলায় কবির মাজার প্রাঙ্গণে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে কবির জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী ১৭ ফেব্রুয়ারি পালিত হয়ে আসছে।<ref name="The Daily Nayadiganta">{{cite news |author= |title=আজ সাধক কবি হেয়াত মামুদের মৃত্যুবার্ষিকী |url=http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/1355 |date=ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৫ |accessdate=সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৬ |work=The Daily Nayadiganta }}</ref> এছাড়াও সরকারি জেলা পরিষদের উদ্যোগে কবির স্মৃতি কেন্দ্র স্থাপিত করা হয়েছে।
ধারণা করা হয় আনুমানিক ১৭৬০ সালে তিনি মৃত্যু বরণ করেন।
 
==তথ্যসূত্র==
[[বিষয়শ্রেণী:১৬৯৩-এ জন্ম]]
[[বিষয়শ্রেণী:১৭৬০-এ মৃত্যু]]
[[বিষয়শ্রেণী:বাঙালি কবি]]
[[বিষয়শ্রেণী:রংপুর জেলার ব্যক্তিত্ব]]
২,২৪৪টি

সম্পাদনা