"দারাসবাড়ি মসজিদ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্প্রসারণ
(টেমপ্লেট যুক্ত করা হল)
(সম্প্রসারণ)
{{Infobox religious building
| name = দারাসবাড়ি মসজিদ
| native_name =
| native_name_lang =
| image = Darasbari Mosque (cropped).jpg
| image_size =
| alt = দারাসবাড়ি মসজিদ (দক্ষিন পূর্ব কোন থেকে)
| caption = দারাসবাড়ি মসজিদ
| map_type =
| map_size =
| map_alt =
| map_relief =
| map_caption =
| location = {{flagicon|Bangladesh}}[[চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা]], [[বাংলাদেশ]]
| latitude = 24.8323777
| longitude = 88.1343714
| coordinates_region =
| coordinates_format =
| coordinates_display =
| coordinates_footnotes =
| religious_affiliation =
| deity =
| rite =
| sect =
| tradition =
| festival = <!-- or | festivals = -->
| cercle =
| sector =
| municipality =
| district = [[চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা]]
| territory =
| prefecture =
| state =
| province =
| region = [[রাজশাহী]]
| country = বাংলাদেশ
| administration =
| consecration_year = ১৪৭৯ (আনুমানিক)
| organisational_status =
| functional_status = সংরক্ষিত
| heritage_designation =
| ownership = [[বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর]]
| governing_body =
| leadership =
| bhattaraka =
| patron =
| website =
| architect =
| architecture_type =
| architecture_style =
| founded_by = শামসুদ্দিন আবুল মুজাফফর ইউসুফ শাহ
| creator =
| funded_by =
| general_contractor =
| established =
| groundbreaking =
| year_completed =
| construction_cost =
| date_demolished = <!-- or | date_destroyed = -->
| facade_direction =
| capacity =
| length =
| width =
| width_nave =
| interior_area =
| height_max =
| dome_quantity = ৯
| dome_height_outer =
| dome_height_inner =
| dome_dia_outer =
| dome_dia_inner =
| minaret_quantity =
| minaret_height =
| spire_quantity =
| spire_height =
| site_area =
| temple_quantity =
| monument_quantity =
| shrine_quantity =
| inscriptions =
| materials = ইট, টেরাকোটা ও টাইল
| elevation_m =
| elevation_footnotes =
| nrhp =
| designated =
| added =
| refnum =
| footnotes =
}}
{{এশিয়ার মসজিদ}}
'''দারাসবাড়ি মসজিদ''' [[বাংলাদেশ|বাংলাদেশের]] একটি ঐতিহাসিক স্থাপত্য যার অবস্থান [[চাঁপাইনবাবগঞ্জ]] জেলার [[ছোট সোনা মসজিদ|ছোট সোনা মসজিদের]] সন্নিকটে। মসজিদটির অবস্থান ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে। [[সোনামসজিদ স্থল বন্দর]] থেকে [[মহানন্দা]] নদীর পাড় ঘেঁষে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে বাংলাদেশ রাইফেলস-এর [[সীমান্ত তল্লাশী ঘাঁটি]] ; এই ঘাটিঁর অদূরে অবস্থিত [[দখল দরওয়াজা]]। দখল দরওয়াজা থেকে প্রায় এক কি্লোমিটার হেঁটে আমবাগানের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়ে একটি দিঘী পার হয়ে দক্ষিণ পশ্চিমে ঘোষপুর মৌজায় দারাসবাড়ি মসজিদ ও দারাসবাড়ি মাদ্রাসা অবস্থিত। ১৪৫০ থেকে ১৫৬৫ খ্রিস্টাব্দ অবধি [[গৌড়]] ছিল তৎকালীন বাংলার রাজধানী ; এ সময়ই এ মসজিদটি নির্মিত হয়েছিল। অনুমিত হয়েছে যে ১৪৭৯ খ্রিস্টাব্দে [[শামসুদ্দিন আবুল মুজাফফর ইউসুফ শাহ]]-এর আমলে বড় আকারের এ মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল। আকারে এটি ছোট সোনা মসজিদের চেয়েও বড়। দীর্ঘদিন মাটিচাপা পড়েছিল এ মসজিদ। সত্তর দশকের প্রথমভাগে খনন করে এটিকে উদ্ধার করা হয়। মসজিদটি দীর্ঘকাল আগে পরিত্যাক্ত হয়েছে, বর্তমানে চারপাশে গাছগাছালির ঘের। পরিচর্যার অভাবে এ মসজিদটি বিলীয়মান। এর সংলগ্ন সমসাময়িক আরেকটি স্থাপনা হহলো [[দারাসবাড়ি মাদ্রাসা]]। দিঘীর এক পারে মসজিদ এবং অন্য পারে মাদ্রাসা অবস্থিত।
 
'''দারাসবাড়ি মসজিদ''' ({{lang-en|Darasbari Mosque}}) বা '''দারাসবাড়ি''' [[চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা|চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার]] [[শিবগঞ্জ উপজেলা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ|শিবগঞ্জ উপজেলার]] [[ছোট সোনা মসজিদ]] ও [[কোতোয়ালী দরজা|কোতোয়ালী দরজার]] মধ্যবর্তী স্থানে ওমরপুরের সন্নিকটে অবস্থিত বাংলার প্রথম যুগের মুসলিম স্থাপত্যের কীর্তির একটি উল্লেখযোগ্য নিদর্শন।<ref name="গৌড়ের ইতিহাস">{{cite book |last=চক্রবর্তী |first1=রজনীকান্ত |url=http://50.30.47.15/ebook/bangla/Gourer_Itihas.pdf |format=PDF |title=গৌড়ের ইতিহাস |edition=1 & 2 |location=Bankim Chatterjee Street, Calcutta 700 073 |publisher=Dev's Publishing |date=January 1999 }}</ref>
{{অসম্পূর্ণ}}
 
{{বাংলাদেশের মসজিদ}}
 
==অবস্থান==
'''দারাসবাড়ি মসজিদ''' এর অবস্থান [[চাঁপাইনবাবগঞ্জ]] জেলার [[ছোট সোনা মসজিদ|ছোট সোনা মসজিদের]] সন্নিকটে। মসজিদটির অবস্থান ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে। [[সোনামসজিদ স্থল বন্দর]] থেকে [[মহানন্দা]] নদীর পাড় ঘেঁষে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে বাংলাদেশ রাইফেলস-এর [[সীমান্ত তল্লাশী ঘাঁটি]] ; এই ঘাটিঁর অদূরে অবস্থিত [[দখল দরওয়াজা]]। দখল দরওয়াজা থেকে প্রায় এক কি্লোমিটার হেঁটে আমবাগানের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়ে একটি দিঘী পার হয়ে দক্ষিণ পশ্চিমে ঘোষপুর মৌজায় দারাসবাড়ি মসজিদ ও দারাসবাড়ি মাদ্রাসা অবস্থিত।
 
==ইতিহাস==
দর্স অর্থ পাঠ। সম্ভবতঃ একসময় মসজিদ সংলগ্ন একটি [[মাদ্রাসা]] ছিল এখানে। ঐতিহাসিক অনুসন্ধানের সময় মুনশী এলাহী বখশ কর্তৃক আবিস্কৃত একটি [[আরবী লিপি|আরবী শিলালিপি]] অনুযায়ী (লিপি-দৈর্ঘ্য ১১ ফুট ৩ ইঞ্চি, প্রস্থ ২ফুট ১ ইঞ্চি) ১৪৭৯ খ্রিস্টাব্দে (হিজরী ৮৮৪) [[শামসুদ্দিন আবুল মুজাফফর ইউসুফ শাহ|সুলতান শামস উদ্দীন ইউসুফ শাহের]] রাজত্বকালে তাঁরই আদেশক্রমে এই মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয়। জেনারেল ক্যানিংহাম তার নিজের ভাষাতে একে দারাসবাড়ি বা কলেজ বলেছেন।<ref>{{cite book |last=মোহাম্মদ জাকারিয়া |first1=আবুল কালাম |title=বরেন্দ্র অঞ্চলের ইতিহাস - বরেন্দ্র অঞ্চলের পূরাকীর্তি |chapter=রাজশাহী বিভাগ - ইতিহাস-ঐতিহ্য |edition=১ম |date=এপ্রিল ১৯৯৮ |page=৩২০ |accessdate=2016-02-16 }}</ref>
 
==অবকাঠামো==
দীর্ঘদিন মাটিচাপা পড়েছিল এ মসজিদ। সত্তর দশকের প্রথমভাগে খনন করে এটিকে উদ্ধার করা হয়। মসজিদটি দীর্ঘকাল আগে পরিত্যাক্ত হয়েছে, বর্তমানে চারপাশে গাছগাছালির ঘের। পরিচর্যার অভাবে এ মসজিদটি বিলীয়মান। এর সংলগ্ন সমসাময়িক আরেকটি স্থাপনা হহলো [[দারাসবাড়ি মাদ্রাসা]]। দিঘীর এক পারে মসজিদ এবং অন্য পারে মাদ্রাসা অবস্থিত। আকারে এটি ছোট সোনা মসজিদের চেয়েও বড়।
 
ইট নির্মিত এই মসজিদের অভ্যন্তরের আয়তক্ষেত্র দুই অংশে বিভক্ত। এর আয়তন ৯৯ ফুট ৫ ইঞ্চি, ৩৪ ফুট ৯ ইঞ্চি। পূর্ব পার্শ্বে একটি বারান্দা, যা ১০ ফুট ৭ ইঞ্চি। বারান্দার খিলানে ৭টি প্রস্ত্তর স্তম্ভের উপরের ৬টি ক্ষুদ্রাকৃতি গম্বুজ এবং মধ্যবর্তীটি অপেক্ষাকৃত বড় ছিল। উপরে ৯টি গম্বুজের চিহ্নাবশেষ রয়েছে উত্তর দক্ষিণে ৩টি করে জানালা ছিল। উত্তর পশ্চিম কোণে [[মহিলা|মহিলাদের]] [[নামাজ|নামাজের]] জন্য প্রস্তরস্তম্ভের উপরে একটি ছাদ ছিল। এর পরিচয় স্বরূপ এখনও একটি মেহরাব রয়েছে। এতদ্ব্যতীত পশ্চিম দেয়ালে পাশাপাশি ৩টি করে ৯টি কারুকার্য খচিত মেহরাব বর্তমান রয়েছে। এই মসজিদের চারপার্শ্বে দেয়াল ও কয়েকটি প্রস্তর স্তম্ভের মূলদেশ ব্যতীত আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। এখানে প্রাপ্ত তোগরা অক্ষরে উৎকীর্ণ ইউসুফি শাহী লিপিটি এখন কোলকাতা জাদুঘরে রক্ষিত আছে।
 
==আরো দেখুন==
* [[সৈয়দ নেয়ামতউল্লাহ|শাহ সৈয়দ নেয়ামতউল্লাহ]]
* [[ছোট সোনা মসজিদ]]
* [[বড় সোনা মসজিদ]]
* [[তোহাখানা]]
* [[রহনপুর]]
 
==তথ্যসূত্র==
{{সূত্র তালিকা}}
 
{{বাংলাদেশের মসজিদ}}
[[বিষয়শ্রেণী:বাংলাদেশের মসজিদ]]
[[বিষয়শ্রেণী:চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা]]
[[বিষয়শ্রেণী:বাংলাদেশের প্রাচীন নিদর্শন]]
[[বিষয়শ্রেণী:বাংলাদেশের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান]]
[[বিষয়শ্রেণী:বাংলার প্রত্নস্থল]]
[[বিষয়শ্রেণী:প্রত্নতাত্ত্বিক স্থল]]
[[বিষয়শ্রেণী:বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান]]