"তড়িৎ বিশ্লেষণ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

কর্ম পদ্ধতি, তড়িৎ বিশ্লেষণের সূত্রাবলী
(কর্ম পদ্ধতি, তড়িৎ বিশ্লেষণের সূত্রাবলী)
[[চিত্র:Electrolysis Apparatus.png|thumb|ল্যাবরটরিতে তড়িৎ বিশ্লেষনের জন্যে ব্যবহার করা যন্ত্র। |275x275px]]
[[রসায়ন]] বিদ্যায় যখন কোন তড়িৎ-বিশ্লেষ্য পদার্থের দ্রাবকে দ্রবীভূত কিংবা বিগলিত অবস্থার মধ্য দিয়ে [[তড়িৎ প্রবাহ]] চালনা করা হয় তখন ঐ তড়িৎ-বিশ্লেষ্য পদার্থের রাসায়নিক বিয়োজন ঘটে নতুন রাসায়নিক ধর্মবিশিষ্ট পদার্থ উৎপন্ন হয়, এই পদ্ধতিকে '''তড়িৎবিশ্লেষণ''' (ইংরেজিঃ Electrolysis) বলে।<ref>Vanýsek, Petr (2007). [http://www.hbcpnetbase.com/articles/08_08_88.pdf "Electrochemical Series"], in [http://www.hbcpnetbase.com/ ''Handbook of Chemistry and Physics: 88th Edition'']</ref> তড়িৎবিশ্লেষণ পদ্ধতি খনিজ পদার্থ থেকে বিভিন্ন ধাতু উৎপাদনে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।<ref name=":0">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|url=http://www.rsc.org/chemistryworld/Issues/2003/August/electrolysis.asp|title=Enterprise and electrolysis...|website=www.rsc.org|access-date=2016-08-09}}</ref> তড়িৎবিশ্লেষণে তড়িৎ শক্তি রাসায়নিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।
 
 
== কর্ম পদ্ধতি ==
তড়িৎ বিশ্লেষণ পদ্ধতিতে কোন আয়নিক পদার্থের (তড়িৎ-বিশ্লেষ্য) দ্রবন বা তার গলিত অবস্থার মধ্য দিয়ে [[সমক্ষ তড়িৎ]] [[তড়িৎ প্রবাহ|প্রবাহ]] (Direct Currecnt) পাঠালে [[তড়িৎদ্বার|তড়িৎদ্বারে]] রাসায়নিক বিক্রিয়া হয় এবং ঐ পদার্থের বিয়োজন হয়ে নতুন ধর্মের পদার্থ উৎপন্ন হয়। তড়িৎ-বিশ্লেষণের জন্যে প্রয়োজনীয় হলঃ
 
(১) তড়িৎ-বিশ্লেষ্য পদার্থ, (২) [[সমক্ষ তড়িৎ]] [[তড়িৎ প্রবাহ|প্রবাহের]] উৎস এবং (৩) দুইটি [[তড়িৎদ্বার]]
[[চিত্র:Chloralkali membrane.svg|thumb|487x487px|ব্রাইনের তড়িৎবিশ্লেষণ। অ্যানোডে ('''A''') ক্লোরাইড (Cl<sup>−</sup>) জারিত হয়ে ক্লোরিন উৎপন্ন করে। ক্যাথোডে ('''C''') জল বিজারিত হয়ে হাইড্রোক্সাইড এবং হাইড্রোজেন গ্যাস উৎপন্ন করে]]
 
উদাহরন স্বরূপ, [[ব্রাইনের তড়িৎবিশ্লেষণ|ব্রাইনের তড়িৎবিশ্লেষণে]] [[সোডিয়াম হাইড্রোক্সাইড]] উৎপাদনের জন্য [[সোডিয়াম ক্লোরাইড|সোডিয়াম ক্লোরাইডের]] জলীয় দ্রবনকে তড়িৎ বিশ্লেষণ করা হয়। [[ব্রাইন|ব্রাইনের]] সম্পৃক্ত দ্রবণকে একটি প্রকোষ্ঠে প্রেরণ করা হয় যেখানে ক্লোরাইড আয়ন অ্যানোডে জারিত হয়, ইলেকট্রন হারিয়ে ক্লোরিন গ্যাস তৈরী করেঃ
: 2Cl<sup>−</sup> → Cl2 + 2[[Electron|e<sup>−</sup>]]
ক্যাথোডে জল থেকে উৎপন্ন ধনাত্বক হাইড্রোজেন আয়ন হাইড্রোজেন গ্যাস এবং হাইড্রোক্সাইড আয়ন উৎপন্ন করেঃ
: 2H2O + 2e<sup>−</sup> → H<sub>2</sub> + 2OH<sup>−</sup>
মেমব্রেন সেলের মেমব্রেনটি আয়ন ভেদী এজন্য একে আয়ন-এক্সচেঞ্জ মেমব্রেন বলে। এই মেমব্রেন সোডিয়াম আয়নকে (Na<sup>+</sup>) অপরপার্শ্বে যেতে দেয় যেখানে হাইড্রোক্সাইড আয়নের সাথে বিক্রিয়া করে [[কস্টিক সোডা]] (NaOH) প্রস্তুত করে। ব্রাইনের তড়িৎবিশ্লেষণের সামগ্রিক বিক্রিয়াটি নিম্নরূপঃ
: 2NaCl + 2H2O → Cl2 + H2 + 2NaOH
 
== তড়িৎ বিশ্লেষণের সূত্রাবলী ==
 
=== ফ্যারাডের প্রথম সূত্র ===
[[মাইকেল ফ্যারাডে]] ১৮৩২ সালে তার পরীক্ষা দ্বারা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হন যে, গলিত বা দ্রবীভূত কোন তড়িৎ-বিশ্লেষ্য পদার্থের মধ্যে তড়িৎ প্রবাহ করলে ঐ পদার্থের বিয়োজনের ফলে তড়িৎদ্বারে জমাকৃত বা দ্রবীভূত পদার্থের ভর প্রবাহিত বিদ্যুৎ আধান বা বিদ্যুৎ শক্তির পরিমানের সঙ্গে সমানুপাতিক।
 
অর্থাৎ,
 
=== ফ্যারাডের দ্বিতীয় সূত্র ===
 
== ব্যবহার ==
৬৮টি

সম্পাদনা