"ভৈরব (অবতার)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বজ্রযানী তন্ত্রগ্রন্থগুলিতে বিপুল পরিমাণে ভৈরব-স্তুতি করা হয়েছে। বিশেষ করে ‘ডামর’ শাখার তন্ত্রের প্রায় পুরোটাই ভৈরব দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। ‘ভূতডামর তন্ত্র’-এ স্পষ্ট বলা হয়েছে, বৈদিক দেব-দেবীদের প্রভাব কলিযুগে অস্তমিত হবে। প্রধান দেবতা হিসেবে আবির্ভূত হবেন ভৈরবরা। এ থেকে বোঝা যায়, ১১ শতক নাগাদ বজ্রযান ব্রাহ্মণ্যধর্মের প্রতিস্পর্ধী হিসেবে উত্থিত হয়েছিল।
 
মনে রাখতে হবে, এই সময় থেকেই তারা, ভদ্রকালী, রুদ্রগণেশ প্রভৃতি বৌদ্ধতান্ত্রিক দেবী হিন্দু দেবলোকে প্রবেশ করতে শুরু করেন। এ সময় থেকেই হিন্দু তন্ত্রে জটিলতা বাড়তে থাকে। ছায়াচ্ছন্ন ডামর শাখায় আগ্রহ তুঙ্গে ওঠে।
 
==জৈন ধর্মে==