"রাগ (সংগীত)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

রাগ বিলাবল, বিলাবল ঠাটের অর্ন্তগত একটি রাগ।এই রাগের বৈশিষ্ট্য এবং রুপ ঠাটের সঙ্গে বেশী মিল সম্পন্ন বলে রাগটি বিলাবলের ঠাট রাগ হিসেবে পরিচিত্। কথিত আছে হযরত বেলাল (র:) একটি বিশেষ সুরে আযান দিতেন এবং তাঁর সেই সুরের প্রতিফলনকে ভিত্তি করেই বিলাবল রাগের সৃষ্টি ও নাম করন । এ রাগে সব শুদ্ধ স্বর ব্যবহৃত হয়। নিম্নে বিস্তারিত বর্ণনা দেওয়া হল:-
 
পরিচয়: সব স্বর শুদ্ধ ব্যবহৃত হয় এবং এর চলন বক্রগতি সম্পন্ন।এ রাগের সাথে কল্যাণ ঠাটের প্রচুর সাদৃশ্য থাকায় কখনো কখনো একে প্রাত:কালের কল্যাণও বলা হয়।এই রাগের আরোহে যখনমধ্যমযখন মধ্যম বর্জিত হয় এবং অবরোহে অল্প মাত্রায় কোমল নিষাদ প্রযুক্ত হয়,তখন তাকে আলহিয়া বিলাবল বলা হয়,এই রাগটিই বেশী প্রচলিত।
 
ঠাট: বিলাবলবিলাবল।
জাতি: সম্পূর্ণ-সম্পূর্ণসম্পূর্ণ।
আরোহী: সা রা গা মা পা ধা না র্সার্সা।
অবরোহী: র্সা না ধা পা মা গা রা সাসা।
চলন: স, গা, রা, সা, ন্ ধ্, ন্ ধ্ পা, প্ ধ্ ন্ ধ্ ন্ সা, গ র গম গ প, মগ, মর স।
পকড়: স গর গ,মগ প,মধপমপ, মগ,মর,স।
বাদী স্বর: ধাধা।
সমবাদী স্বর: গাগা।
অঙ্গ: উত্তরাঙ্গউত্তরাঙ্গ।
সময়: প্রাত:কালকাল।<ref>http://www.gunjanmusicschool.com/raga/raga-bilabwala</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==